ফিচার টাইপ
স্বাস্থ্য পরিচর্যা (ইত্তেফাক) এর ফিচার গুলো

সুস্থ ও অসুস্থ অবস্থায় রোজা
১২ জুলাই, ২০১৪
ইসলামের অন্যতম স্তম্ভ রমজানের রোজা। শুধু আত্মশুদ্ধিই নয়, এ মাস আত্ম- নিয়ন্ত্রণেরও। রোজার অন্যতম লক্ষ্য মানুষের স্বাস্থ্যগত উন্নতি সাধন। রোজা রাখলে অনেকে স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় করেন, কিন্তু প্রকৃত পক্ষে রোজায় কারও স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে গেছে বা রোজা রেখে ক্ষুধা তৃষ্ণায় কাতর হয়ে কারও মৃত্যু হয়েছে, এমন কোন ঘটনার কথা শুনা যায়নি। রোজা কষ্টকর ইবাদত এবং রোজার দ্বারা শরীরে চাপ পড়ে বলে অনেকেই রোজা ছেড়ে দেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে, শরীয়তের বিধান অনুযায়ী সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়া রোজা পরিত্যাগ ...
সন্তানের আচরণগত সমস্যা
১২ জুলাই, ২০১৪
দশ বছর বয়সী সন্তানের অসংখ্য-অগনিত আচরণ সমস্যা নিয়ে এক মা-বাবা দিশেহারা হয়ে ছুটে আসেন আমার চেম্বারে। সে বাড়ির কাউকেই মানে না, কারও কথা শুনে না, সবাইকে খুব মারে, খেতে চায় না, কোন কাজ করতে বললে সে কিছুই করতে পারেনা। করার চেষ্টাও করে না, খুব বিরক্ত হয়ে বলে, 'আমি পারি না, করবো না, তুমি করো।' ছেলেটিকে নিয়ে মা-বাবা ভীষণ উদ্বিগ্ন ও হতাশ হয়ে আমাকে বললেন, এর আগে অনেক চেষ্টা করেছি, কিন্তু কোন লাভ হয়নি। ও যদি শুধুমাত্র পড়ালেখা করে তাহলে ...
রোজায় স্বাস্থ্য ও খাদ্যাভ্যাস
২৮ জুন, ২০১৪
শুরু হচ্ছে মুসলমানদের বহু কাংখিত পবিত্র সিয়াম সাধনার মাস মাহে রমজান। এই মহাপবিত্র মাসে বাংলাদেশসহ বিশ্বের কোটি কোটি ধর্মপ্রান মুসলমানগণ রোজা পালন করে থাকেন। অনেক অসুস্থ ব্যক্তিও রোজা পালন করেন। রোজাদারগণ যাতে সুস্থ থেকে রোজা পালন করতে পারেন এবং ইফতার ও সাহরীতে স্বাস্থ্য সম্মত আহার করেন এসব বিষয়ে এবার ইত্তেফাকের স্বাস্থ্য পাতা সাজানো হয়েছে প্রখ্যাত লিভার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মবিন খানের নানা পরামর্শ নিয়ে। কালেমা, নামাজ, রোজা, হজ্জ্ব ও যাকাত- এ পাঁচটি প্রধান স্তম্ভের উপর দাঁড়িয়ে আছে ইসলাম। একজন ব্যক্তির ...
ছোলার খাদ্য গুণ
২৮ জুন, ২০১৪
স্বাস্থ্যকর খাবার হিসাবে ছোলা বা বুটের বেশ সুনাম। রোজার ইফতারীতে মুড়ি, পিঁয়াজু আর শশার সাথে ছোলা না হলে চলে না। দীর্ঘক্ষণ ভিজিয়ে রেখে ইফতারীতে তেল-মশলায় ভাজা ছোলা আমাদের সংস্কৃতি বা ঐতিহ্যের অংশই হয়ে গেছে। ছোলা মুখ- রোচকও বটে। শক্তি দেয়। পেটেও থাকে বেশিক্ষণ। ছোলা অত্যন্ত পুষ্টিকর। এটি আমিষের একটি উল্লেখযোগ্য উত্স। ছোলায় আমিষের পরিমাণ মাংস বা মাছের আমিষের পরিমাণের প্রায় সমান। প্রতি ১০০ গ্রাম ছোলায় আছে: প্রায় ১৭ গ্রাম আমিষ বা প্রোটিন, ৬৪ গ্রাম শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট এবং ৫ গ্রাম ফ্যাট বা তেল। ছোলার শর্করা বা কার্বোহাইডেটের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম। খাওয়ার পর খুব তাড়াতাড়িই হজম হয়ে গ্লুকোজ হয়ে রক্তে চলে যায় না। বেশ সময় নেয়। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ছোলার শর্করা ভাল। ছোলার ফ্যাট বা তেলের বেশির ভাগই পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাট, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর নয়। প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট ছাড়া ছোলায় আরও আছে বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ লবন। প্রতি ১০০ গ্রাম ছোলায় ক্যালসিয়াম আছে প্রায় ২০০ মিলিগ্রাম, লৌহ ১০ ...
রোজায় অসুস্থতা এবং ওষুধ
২৮ জুন, ২০১৪
স্বাস্থ্যবান মানুষের জন্য রোজার ব্যাপারে আমাদের প্রশ্ন না থাকলেও অসুস্থ মানুষের ক্ষেত্রে প্রশ্ন থাকে। অসুস্থ ব্যক্তি রোজা রাখতে পারবে কি না, পারলে তার ইফতার-সেহরী কেমন হবে, ওষুধ খাওয়ার নিয়ম কি হবে এই ধরনের নানাবিধ প্রশ্ন। যেমন: একটি সাধারণ প্রশ্ন হল, অন্যান্য সময় যে ওষুধগুলো সকালে ও দুপুরে খাওয়া হতো সেগুলো কখন খাবে? একই সাথে রাতের ওষুধগুলো তখন কিভাবে খাওয়া যেতে পারে? এর একটি সহজ উত্তর হল, রোজার সময় রাতের অনুমোদিত খাওয়ার সময়টি দিনের মত ধরে নিলেই হয়। সেক্ষেত্রে সকালের ওষুধ ইফতারের পর পর, দুপুরেরটা মধ্যরাতে এবং রাতেরটা সেহরীর সময় খেয়ে নিতে হবে। তবে রাতের সময়কাল যেহেতু কম, সেহেতু ওষুধ সেবনের আগে ডাক্তারের পরামর্শ মোতাবেক ওষুধের সময়সীমা পরিবর্তন করে সেই অনুযায়ী ওষুধ খাওয়া দরকার। এছাড়া কিছু রোগ আছে, যাতে রোজা রাখলে রোগী বেশী অসুস্থ হয়ে পড়বে, সেক্ষেত্রে রোজা রাখার জন্য ইসলামও বাধ্য করেনি। এ ক্ষেত্রে রোগী সুস্থ হওয়ার পর যে কয়টি রোজা রাখতে পারেনি, সে কয়টি কাযা করে নিবে। আর ...
কোন তেলে রান্না, কোন তেলে হবে ভাজা
২১ জুন, ২০১৪
রান্নায় তেল ব্যবহার নিয়ে বেশ কথা হচ্ছে অনেক দিন ধরে। আবার কেউ কেউ বলছেন তেল ছাড়া রান্না। কেউ বলছেন, কম তেলে রাধুন, আবার কোন তেলে রান্না করবেন তা নিয়েও তর্কবিতর্ক কম নয়। তেল দিয়ে ভাজাভাজি করতে আবার অনেকের বারন। বলছেন, ভাপে সিদ্ধ করুন তেল ছাড়া, ঢাকা দিয়ে রাধুন, গ্রীল করুন, সেঁকে খান, তেলে ভেজে খাবেন না। এটাও ঠিক, স্বাভাবিক সুস্থ মানুষ একেবারে তেল চর্বি খাবেন না, তাও মানা যায় কিভাবে, এতটা বৈরাগ্য সাধন কেন? আবার অনেকে তেল চর্বি বেশিও ...
ডায়াবেটিস: যত্ন নিবেন কিভাবে
০৭ জুন, ২০১৪
ডায়াবেটিস নীরব ঘাতক হিসেবে পরিচিত এখন। শরীরকে আক্রমণ করে ধীরে ধীরে। টাইপ-১ ডায়াবেটিস তরুণদের মধ্যে বেশি, তবে বেশ বিরল। প্রচণ্ড পিপাসা ও বারবার প্রস্রাব উপসর্গ থাকতে পারে। টাইপ-২ ডায়াবেটিস হলে উপসর্গ নাও থাকতে পারে। এজন্যই রোগীরা চেকআপ করতে দেরী করে ফেলতে পারেন। যার ফলে ইতিমধ্যে হয়ত জটিলতার সূচনা হয়ে গেছে। কারো ডায়াবেটিস আছে কিনা তা জানার সবচেয়ে নিশ্চিত উপায় হলো রক্তের গ্লুকোজ মেপে দেখা। রক্তের গ্লুকোজ মেপে দেখা না হলে ডায়াবেটিস রোগীর আহার ও পানীয় পান ও বিপজ্জনক হয়ে ...
রোগজীবাণু প্রতিরোধে ডাব
০৭ জুন, ২০১৪
ডাবের জলের ব্যপারে নতুন করে কিছু বলার নেই। সুস্বাদু এই পানীয়টি গোটা এশিয়া ও লাতিন আমেরিকার মানুষের কাছে এটি সমান প্রিয়। তবে কেবল পানীয় হিসাবেই নয়, ডাবের পানির মধ্যে বিজ্ঞানীরা ওষুধিগুণও খুঁজে পেয়েছেন। ডায়রিয়াতে এর পানি উপকার দেয়। এটি হার্টের পক্ষেও ভালো। এখন আবার জানা গেছে ডাবের পানি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সক্ষম। বছরের পর বছর ব্যবহার করার ফলে চলতি এন্টিবায়োটিক ওষুধ রোগজীবাণু প্রতিরোধী হয়ে উঠেছে। এই সমস্যা মোকাবিলায় বিজ্ঞানীরা নজর দিয়েছেন শরীরে প্রতিরোধ গড়ে তোলার মূল বস্তু বিভিন্ন প্রোটিনের প্রতি। যখন কোনো রোগজীবাণূ শরীরে প্রবেশ করে, আমাদের দেহের প্রতিরোধ কোষ প্রোটিন দিয়ে তৈরি এন্টিবড়ি উত্পন্ন করে। বিজ্ঞানীরা গাছপালার বিভিন্ন অংশ যেমন ফুল, পাতা, মূল ইত্যাদি থেকে রোগজীবাণু ধ্বংসকারী প্রোটিন তৈরি করেছেন। পশ্চিমবঙ্গ ও ব্রাজিলের একদল গবেষক ডাবের পানির মধ্যে খুঁজে পেয়েছেন তিনটি নতুন ধরনের বিভিন্ন গুণসম্পন্ন পেপটাইজম যা বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া যারা খাদ্যকে বিষিয়ে দেয়, দুধ ও মাংসকে নষ্ট করে তাদের মেরে ফেলে। আগামী দিনে এইসব পেপটাইজম ভবিষ্যতের এন্টিবায়োটিক ...
উচ্চ রক্তচাপ: আপনার করণীয়
৩১ মে, ২০১৪
অসংক্রামক রোগের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ অন্যতম। উচ্চ রক্তচাপ প্রায়ই একটি স্থায়ী রোগ হিসেবে বিবেচিত। এর জন্য চিকিত্সা ও প্রতিরোধ দুটোই জরুরী । তা না হলে বিভিন্ন জটিলতা, এমনকি হঠাত্ করে মৃত্যুরও ঝুঁকি থাকে। উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন স্বাবাভিক রক্তচাপ বলতে বোঝায় সেই বল, যার সাহায্যে রক্ত শরীরের একস্থান থেকে অন্যস্থানে পেঁছায়। হূদপিন্ডের পাম্পিং ক্রিয়ার মাধ্যমে রক্তচাপ তৈরি হয়। রক্ত চাপের কোন একক নির্দিষ্ট মাত্রা নেই। বিভিন্ন বয়সের সাথে সাথে একেক জন মানুষের শরীরে রক্তচাপের মাত্রা ভিন্ন এবং একই মানুষের ...
একটি পুরুষের সমস্যা
৩১ মে, ২০১৪
অজ্ঞানতার কারণে পুরুষের একটি বিশেষ সমস্যা নিয়ে বিভ্রান্তি হয়। এ ধরণের সমস্যা দেখা দিলে অনেকে লজ্জায় ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে চাননা অনেকেই । ফলে পারিবারিক সমস্যা হতে পারে। অনেকে হতাশায় আক্রান্ত হয়ে সব কিছুর উপর আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। অন্য দিকে স্ত্রী ডিপ্রেসিভ রোগে আক্রান্ত হন এবং স্বামীর সংসারের প্রতি অমনোযোগী হয়ে পড়েন। মানসিক উত্কণ্ঠা, দুঃশ্চিন্তা, ডায়াবেটিসসহ বেশ কিছু রোগের কারণে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। মানসিক অস্থিরতা, দুঃশ্চিন্তা বা কখনও কখনও বিয়ের প্রথম দিকে হতে পারে। গবেষণায় দেখা যায় মানুষের ...
ব্রণের চিকিত্সায় ডা:জাহানারা খানের পরামর্শ
৩১ মে, ২০১৪
বর্তমান সময়ে ব্রণ ও ব্রণের দাগ অধিকাংশ নারী-পুরুষের একটি বড় সমস্যা। অনেক সময় এটি দীর্ঘ মেয়াদি শারিরীক ও মানসিক সমস্যার কারণ হতে পারে। বাংলাদেশে একমাত্র লেজার মেডিকেলে স্কীন অ্যানালাইসিস, বায়োরেসোনেন্স ও হরমোন পরিক্ষার মাধ্যমে কারণ অনুসন্ধান করে দেয়া হচ্ছে লেজার ও অন্যান্য আধুনিক চিকিত্সা। ব্রণের চিকিত্সা পদ্ধতি সম্পর্কে লেজার মেডিকেলে চীফ কনসালটেন্ট ডা. জাহানরা খান বলেন- 'দীর্ঘমেয়াদী ব্রণের পেছনে কারণ হিসেবে এখন আমরা পাচ্ছি-হরমোনের সমস্যা এবং খাবার ও পরিবেশগত বিভিন্ন টক্সিন-এর প্রভাব। এ কারণে শুধু মেডিসিন ব্যবহারে ব্রণের চিকিত্সা অসম্পূর্ণ থেকে যায়। কিন্তু আমরা লেজার মেডিকেল কারণ অনুসন্ধান করে সঠিক ও দীর্ঘস্থায়ী চিকিত্সা দিয়ে থাকি। তাই চিকিত্সার ক্ষেত্রে আমাদের দৃষ্টি ভঙ্গি বদলানো প্রয়োজন।' ...
পুষ্টিকথা : আঙ্গুর
২৪ মে, ২০১৪
 আঙ্গুরে প্রচুর পরিমাণে রেসভেরাট্রল (পলিফেনোল) বিদ্যমান যা শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেডেন্ট হিসেবে ফ্রি রেডিক্যালকে ধ্বংস করে, ক্যান্সার কোষ বৃদ্ধিতে বাধা দেয় এবং অকাল বার্ধক্য প্রতিরোধ করে।  আঙ্গুরে বিদ্যমান বোরন হাঁড়কে মজবুত করে যা অষ্টিওপোরোসিস এর চিকিত্সায় কার্যকরী।  রেসভেরাট্রল স্মৃতি শক্তি প্রখর করে। বয়োবৃদ্ধির সাথে সম্পর্কিত দৃষ্টি শক্তি কমে যাওয়ার সম্ভাবনা হরাস করে  আঙ্গুর নাইট্রিক অক্সাইড এর উত্পাদন বৃদ্ধি করে রক্তনালীসমূহকে সম্প্রসারিত করার মাধ্যমে উচ্চ রক্তচাপ প্রশমন করে এবং রক্তের অতিরিক্ত জমাটবদ্ধতা দূর করে।  ভিটামিন ই রক্তে ...
শরীরচর্চা করুন, সুস্থ থাকুন
২৪ মে, ২০১৪
আজকাল পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই ক্রনিক রোগের প্রকোপ বাড়ছে। কোলেস্টেরলের হূদক্ষতিকর মান, উচ্চ রক্তচাপ এবং কোমরে মেদের বাহুল্য-ভবিষ্যতে হূদরোগের সম্ভাবনা যে অনেক বাড়িয়ে দেবে, এ বিষয়টি নি:সন্দেহ। তবে উত্সাহব্যঞ্জক একটি সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা যায় ব্যায়াম করলে সেই ঝুঁকি অনেকটা কমে যায়, অন্যান্য ঝুঁকি উচুতে থাকলেও তা হয়। কয়েক যুগ আগে থেকেই বিজ্ঞানীরা প্রথম কিছু স্বাস্থ্য সমস্যাকে হূদরোগের সঙ্গে সম্পর্কিত দেখে আসছেন। জগত্ বিখ্যাত ফ্রামিংহাম হার্ট স্ট্যাডিতে যেমন গবেষকরা ম্যাসাচুসেটস্ ফ্রামিংহামে বসবাসরত ৫২০০ জন-এর অধিক পূর্ণবয়স্ক লোকদের স্বাস্থ্য ও জীবন-যাপন মনিটর করে দেখেছেন। ১৯৪৮ সালে শুরু হওয়া এই গবেষণার ফলাফল বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা নির্বাচন করেন যে, উচ্চ রক্তচাপ, কোলেস্টেরল মান, স্থূলতা, বয়স, জেন্ডার, ধূমপান প্রতিটিরই কোন ব্যক্তির ভবিষ্যতে হূদরোগের সম্ভাবনা কতটুকু আছে এর উপর পরিমাপযোগ্য প্রভাব রয়েছে। তাদের প্রাপ্ত ফলাফল থেকে গবেষকরা উদ্ভাবন করেন ফ্রামিংহাম রিস্ক স্কোর যা থেকে কোনও ব্যক্তির স্বাস্থ্য সংখ্যা বিশেষ করে রক্তচাপ ও কোলেস্টেরল মানের উপর ভিত্তি করে আগামী দশ বছরে হার্ট এ্যাটাকের সম্ভাবনা গণনা করার ...
এনজিওগ্রাম
১৭ মে, ২০১৪
একদিন সকালে জাতীয় হূদরোগ হাসপাতালের বহির্বিভাগে একজন বয়স্ক ভদ্রলোক এসে বললেন, ডাক্তার সাহেব আমার বুকে মাঝে মাঝে ব্যথা হয়। হূদরোগের ডাক্তারের পরামর্শে নিয়মিত হার্টের ওষুধ খাই। আমি জেনেছি এনজিওগ্রাম করে রিং বসালে ব্যথা চলে যায়। আপনি ব্যবস্থা করুন। ডাক্তার সাহেব উত্তর দিলেন, আপনাকে ওয়ার্ডে ভর্তি করে নিচ্ছি। প্রয়েজনীয় পরীক্ষার পর আপনি উপযুক্ত হলে এনজিওগ্রাম করে রিং বসানোর ব্যবস্থা হবে। এনজিওগ্রাম করে রিং বসানোর ৩দিন পর নতুন জীবন নিয়ে ভদ্রলোক বাড়ী গেলেন। হূদপৃণ্ড মানবদেহের অত্যাবশ্যক অঙ্গ যা সমস্ত দেহে বিশুদ্ধ রক্ত ওঅক্সিজেন পৌছে দেয়। হূদপৃণ্ড নিজস্ব তিনটি করোনারী আর্টারির মাধ্যমে বিশুদ্ধ রক্ত ও অক্সিজেন পেয়ে থাকে। এই তিনটি রক্তনালীর এক বা একাধিকে চর্বি জমে সংকুচিত (ব্লক) হলেই ইসকেমিক হার্ট ডিজিজ হয়। রুগী বুকে ব্যথা অনুভব করে থাকে। সাথে চাপ, শ্বাস কষ্ট বা বুক ভারী হতে পারে। এনজিওগ্রাম কি রক্তনালীতে ডাই বা স্পেশাল রং পুশ করে হূদযন্ত্রের রক্তনালী বা আর্টারির অবস্থা, ব্লক এবং শাখা প্রশাখা ইত্যাদি বোঝার পদ্ধতির নাম এনজিওগ্রাম। সাধারণতঃ ...
হিপ প্রতিস্থাপন
১০ মে, ২০১৪
হিপ এর সমস্যা বয়স এর উপর নির্ভর করে ভিন্নতর হয়। তাই একে অন্যের থেকে আলাদা ধরণের সমস্যা নিয়ে রোগীরা চিকিত্সকের কাছে আসেন। যেমন জন্মের পরপর হয় ডিডিএইচ (ডেভেলপমেন্টাল ডিসপ্লাসিয়া অব হিপ) এছাড়া ট্রানজিয়েন্ট সাইনুভাইটিস পারথেস ডিজিজ, সিল্পিড ক্যাপিটাল ফিমোরাল ইপিথাইসিস ইত্যাদি। প্রতিটি সমস্যার আলাদা আলাদা ব্যবস্থাপনাও রয়েছে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে উপরোক্ত সমস্যাগুলো জটিল আকারে দেখা দেয় এবং রোগীরা আর স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারে না, তখন প্রয়োজন হয় সম্পূর্ণ হিপ প্রতিস্থাপনের। এছাড়া মধ্য বয়সে শুরু হয় এভিএন ( ভাসকুলার ...
হোমিওপ্যাথি : ক্যান্সারে কেমোথেরাপি ক্ষতিকর
১০ মে, ২০১৪
ক্যান্সার চিকিত্সায় বহুল ব্যবহূত কেমোথেরাপি রোগীকে সুস্থ না করে বরং ক্যান্সার আরো বাড়িয়ে দিতে পারে। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় এমন প্রমাণ পাওয়া গেছে। ন্যাচার মেডিসিন সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে এ দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। প্রতিবেদনটিতে বিজ্ঞানীরা বলেছেন, কেমোথেরাপি সুস্থ দেহকোষের ক্ষতিসাধন করতে পারে যার ফলে ঐ কোষগুলো বিশেষ একটি প্রোটিন নিঃসরণ করে। এতে করে ক্যান্সার আরো বাড়তে থাকে এবং পরবর্তী চিকিত্সার ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে উঠে। মানবদেহে কেমোথেরাপির মাধ্যমে ক্যান্সার কোষগুলো ধ্বংস করতে বেশ বেগ পেতে হয় অথচ একই আক্রান্ত ...
টুটকা : ধনিয়ার গুণ
১০ মে, ২০১৪
আধুনিক বৈজ্ঞানিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে ধনিয়া পুরুষ ও মহিলাদের যৌন আকাঙ্খা বৃদ্ধি করে। পুরুষের লিঙ্গ উত্থানজনিত সমস্যা দূর করে। ধনিয়া প্যানক্রিয়াসের বিটাকোষ হতে ইনসুলিন নিঃসরণ বৃদ্ধি করে এবং রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ কমায়, ফলে এটি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ধনিয়া কার্যকরী উপাদান ডোডিসেনাল টাইফয়েড, প্যারাটাইফয়েড, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন মারাত্মক রোগ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে। ...
কৃষকের স্বাস্থ্য সমস্যা
০৩ মে, ২০১৪
বিশ্বজুড়ে প্রায় ১০০ কোটি ৩০ লক্ষ লোক কৃষিপণ্য উত্পাদনে নিয়োজিত। পৃথিবীর মোট শ্রমিক যতজন রয়েছেন এর প্রায় অর্ধেক। এর মধ্যে মাত্র ৯% কৃষিজীবী রয়েছেন শিল্পসমৃদ্ধ দেশগুলোতে। এদের প্রায় ৬০% শতাংশ রয়েছেন উন্নয়নশীল দেশগুলোতে। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ১০০ কোটিরও বেশি মানুষ রয়েছেন দারিদ্রসীমার নিচে। দারিদ্র বেশি পল্লী অঞ্চলে। ছোট চাষী, বর্গাচাষী এধরণের কৃষকের দারিদ্র সীমাহীন। আর্থ সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশগত নানা উপাদান জোর প্রভাব ফেলে কৃষক ও কৃষিজীবী মানুষের স্বাস্থ্য ও জীবন-যাত্রার মানের উপর। যে পরিবেশে গ্রামের কৃষক কাজ করেন এবং ...
নাক দিয়ে রক্তক্ষরণ হলে
০৩ মে, ২০১৪
নাক দিয়ে রক্ত পড়াকে এপিসট্যাক্সিস বলে। সাধারণত: নাকের সেপটামের সামনে ও নিচের এলাকায় আঘাত পেলে রক্ত পড়া শুরু হয়। নাকের এ অংশে অনেকগুলো ধমনী একত্রিত হয়। নাক হতে রক্ত পড়ার কারণগুলোর নানা ধরণের। রোগের কারণ: ১. স্থানীক কারণ- নাকে আঘাত লাগলে নাকে আঙ্গুল বা নখ দিয়ে শক্ত ক্রাস্ট খুঁটে তুললে। নাকে সংক্রমণ যেমন-সর্দি, সাইনুসাইটিস ইত্যাদি হলে। নাকে টিউমার হলে। ২. সাধারণ কারণ-  উচ্চ রক্তচাপের কারণে রক্ত স্বল্পতা থাকলে হিমোফিলিয়া নামক রক্তের রোগ হলে (এ ধরণের রোগীর কেটে গেলে ...
পুদিনার গুণ
০৩ মে, ২০১৪
পুদিনায় বিদ্যমান মেনথল উদ্দীপক, বায়ুনাশক, পাকস্থলীর শক্তিবর্ধক, শীতলকারক ও চর্ম রোগে কার্যকরী। পুদিনা ডায়রিয়া, কলেরা ও জন্ডিসে কার্যকরী। ট্যানিন অ্যান্টিসেপ্টিক, রক্তক্ষরণ প্রতিরোধক ও ক্ষতসরক। পুদিনা ফুসফুস ও কিডনির মাধ্যমে দেহ হতে ক্ষতিকর বর্জ্য পদার্থ অপসারণে সহায়তা করে। পুদিনা সন্ধি ব্যথা, মাথা ব্যথা, দাঁত ব্যথা, বমি, অজীর্ণতা, গলার প্রদাহ ও মুখের দূর্গন্ধ দূর করে। ...
আমাশয় এবং আইবিএস
১৯ এপ্রিল, ২০১৪
দীর্ঘমেয়াদী আমাশয়ের সমস্যার মধ্যে একটি হলো ইরিটেবল বাওয়েল সিনড্রোম তথা আইবিএস। পৃথিবীর মানুষ পরিপাকতন্ত্রের যে সমস্যাটির জন্য সবচেয়ে বেশী কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকে এবং যে সমস্যাটির জন্য জীবনযাপনের মানে ঘাটতি হয় তা হলো আইবিএস। রিসার্চ অনুযায়ী একটি দেশের লোকসংখ্যার ২০ শতাংশ আইবিএসের লক্ষণ বহন করে এবং ১০ শতাংশ ডাক্তারের কাছে চিকিত্সার জন্য আসে। পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের প্রায় দুই থেকে তিনগুণ এই সমস্যায় আক্রান্ত হয়। যারা আইবিএস নামক দীর্ঘমেয়াদী আমাশয় সমস্যায় ভুগে তাদের একটি অংশের উক্ত রোগের সাথে থাকে বদহজম, দীর্ঘমেয়াদী ...
ডায়াবেটিসে চোখের সমস্যা
১৯ এপ্রিল, ২০১৪
ডায়াবেটিস গ্রস্ত লোকদের অন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অন্যান্যদের তুলনায় ২৫ গুণ বেশি। দীর্ঘকাল ধরে রক্তে উঁচুমাত্রার সুগার থাকলে রেটিনা সমৃদ্ধকারী ক্ষুদ্র রক্তনালীগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং এক সময় দৃষ্টিহানি ঘটে। একে বলা হয় ডায়াবেটিক রেটিনোপথ্যাথী। আপনার ডায়াবেটিস যত পুরনো হবে এর সম্ভাবনাও তত বেশি। সমস্যাটির প্রাথমিক পর্যায়ে আপনার রেটিনাস্থ রক্তনালীর গাত্র দূর্বল হয়ে পড়ে। তিলক-এ তরল এসে না পড়া পর্যন্ত অনেকেই এ সমস্যা অনুধাবন করতে পারে না। এ রোগ বাড়ার এক পর্যায়ে রোগীর রেটিনায় কিছু দুর্বল, ভঙ্গুর, রক্তনালী গজিয়ে উঠতে পারে। এসব রক্তনালীর কোনটা ফেটে গিয়ে রক্তক্ষরণ হলে আপনি তাত্ক্ষণিকভাবে দৃষ্টি হারাতে পারেন। রক্তনালীর চারপাশে এক ধরনের টিস্যু গজিয়ে উঠে আপনার রেটিনাকে অক্ষিগোলক থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলতে পারে। নয়া এই রক্তনালী যদি চোখের তরল প্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে তাহলে চাপ সৃষ্টি হয়ে গ্লুকোমা ঘটে। তাই আপনি ডায়াবেটিসগ্রস্ত হলে নিয়মিত চোখ পরীক্ষা করান। ডায়াবেটিক রেটিননোপ্যাথী হলে তা আগেভাগে শনাক্ত করাটা জরুরি। দৃষ্টিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া প্রতিরোধে ডায়াবেটিসের সযত্ন ব্যবস্থাপনা অত্যাবশ্যক। আপনার ডায়াবেটিক ...
পেটের পীড়া আমাশয়
১২ এপ্রিল, ২০১৪
একজন শিক্ষক, বয়স পঞ্চাশ, উদ্বিগ্ন মনে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চেম্বারে বসে আছেন। কয়েকদিন যাবত্ তার পেটটা ভাল যাচ্ছে না। এর আগেও তার পাতলা পায়খানার সমস্যা হয়েছে। কিন্তু এবার তিনি লক্ষ্য করেছেন- পায়খানার সাথে লাল লাল রক্ত যাচ্ছে। তাই তিনি চিন্তিত মনে তার সমস্যা নির্ণয়ের চেষ্টায় চিকিত্সকের শরণাপন্ন হয়েছেন। একজন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। বয়স চব্বিসের কাছাকাছি হবে। কয়েক মাস ধরে তার পেটে সমস্যা হচ্ছে। দিনে দুই থেকে তিনবার পায়খানা হয়, প্রত্যেকবার পায়খানার আগে পেটটা মোচড় দিয়ে ব্যথা হয়, পায়খানা হয়ে ...
শিশুদের একজিমা হলে করণীয়
১২ এপ্রিল, ২০১৪
একজিমা বা এটোপিক ডার্মাটাইটিস শিশুদের একটি অতি সাধারণ চর্মরোগ। যেসব শিশুদের এ ধরণের চর্মরোগ দেখা দেয় তাদের পিতা মাতারা বছরের পর বছর ধরে ডাক্তারের কাছে ছুটিছুটি করেও বেশীরভাগ ক্ষেত্রে কোন সুফল পাননা। অনেক ক্ষেত্রে শিশুদের চর্মরোগ চিকিত্সার ক্ষেত্রে ভূল চিকিত্সার ঘটনাও কম নয়। বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে শিশুদের যেকোন ধরণের চর্মরোগ হলে প্রথমে পিতা-মাতাগণ শরণাপন্ন হন শিশু বিশেষজ্ঞগণের কাছে। প্রাথমিক চিকিত্সাটা পায় শিশুরা সেখানে। কিন্তু শিশুদের চর্মরোগ চিকিত্সা করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে শিশু বিশেষজ্ঞগণ বেশীরভাগ ক্ষেত্রে উচ্চমাত্রার ওষুধ প্রয়োগ করছেন ...
গরমের খাদ্য তালিকায়যা থাকা প্রয়োজন
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
বাংলাদেশ ষড় ঋতুর দেশ। এখন গ্রীষ্মকাল। জৈষ্ট্যের প্রচন্ড গরমে ও আদ্রতায় জনজীবন অতিষ্ট। প্রচন্ড সূর্যরশ্মির কারণে স্বাস্থ্য সমস্যা বেড়ে যায়। ডায়রিয়া, হজমের ব্যাঘাত, বমি, জ্বর ও পানি স্বল্পতা, অনেক ক্ষেত্রে হিটস্ট্রোক দেখা দেয়। গরমে সুস্থ থাকার জন্য সঠিক খাদ্য নির্বাচন বা অত্যবশ্যকীয় খাবারের উপস্থিতি শরীরকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে পারে। গরমে প্রচুর ঘামের কারণে শরীর থেকে প্রচুর পানি ও লবণ বের হয়ে যায়। ফলে পানি স্বল্পতা দেখা দেয়। শরীরের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা নিয়ন্ত্রণে পানির প্রয়োজন। তাই শরীরের পানির স্বল্পতা রোধ ...
ইডেমা বা শরীরে অতিরিক্ত পানি
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
মানব দেহের টিসু বা কলায় অতিরিক্ত পানি জমে ফুলে যাওয়ার নাম ইডেমা। শরীরের যে কোন স্থানে পানি জমতে পারে, তবে পা, পেট, হাত এবং মুখ এসব স্থানে ইডেমা বেশী দেখা যায়। যেসব কারণে ইডেমা হয় ১. খাদ্যে অতিরিক্ত লবণ ২. হার্ট ফেইলিওর ৩. কিডনি রোগ ৪. লিভার সিরোসিস ৫. গর্ভকাল ৬. লিম্ফ বা লসিকা চলাচলে বাধা ৭. দীর্ঘক্ষন দাড়িয়ে বা বসে থাকা ৮. কিছু ওষুধ- ক্যালসিয়াম ব্লকার, ব্যথানাশক, স্টেরয়েড ইত্যাদি। কোন কোন সময় ইডেমা হার্ট ফেইলিওর, কিডনি রোগ বা লিভার সিরোসিসের মত জটিল রোগের উপসর্গ বা চিহ্ন হিসাবে দেখা দেয়। হার্ট ফেইলিওর হলে হূদযন্ত্র সংকোচনের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পরিমাণ রক্ত বের করতে পারে না। ফলে ফুসফুস, পা, পেটে পানি জমে যায়। কিডনি অসুস্থ হলে প্রস্রাবের মাধ্যমে দেহের অপ্রয়োজনীয় পানি ও লবণ বের করতে পারে না। ফলে, চোখের চারিদিক বা পায়ে পানি জমে ফুলে যায়। লিভার সিরোসিস হলে প্রোটিন উত্পাদন কমে যায়। ফলে পানি রক্তনালীর ভিতরে না থেকে বাইরে চলে যায়। ...
বিব্রতকর সব ঘুমের অভ্যাস
২৯ মার্চ, ২০১৪
ঘুমের সমস্যা নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে কথা হয়, হয়ইতো। তাই না? আলোচনা এমন হয় যে, ঘুম হচ্ছে না, সারা রাত এপাশ-ওপাশ। কিন্তু ঘুমের সময় এমন সব ঘটে, যা বলাও যায়না, মনে হলে লজ্জা লাগে। বিব্রতবোধ তো হয়ই। ঘুমের সময় নাক ডাকে, ঘুমের সময় মুখ দিয়ে লালা বের হয়। বিছানা ভিজে যায়, ঘুমের সময় গ্যাস বের হয়, এসব বিব্রত হওয়ার মত কথা কাউকে বলা যায় না। আবার সহাও যায় না। একজনে কথা এখানে উল্লেখ করছি, নামটা গোপন রাখা হচ্ছে, ভদ্র মহিলা ...
ব্রণের চিকিত্সা নিয়ে বিভ্রান্তি
২৯ মার্চ, ২০১৪
মুখের ব্রণ এখন একটি বড় সমস্যা। হাজার হাজার তরুণ-তরুণী, নারী-পুরুষ ব্রণ নামের তৈলাক্ত গ্রন্থির এ সমস্যায় ভুগে থাকেন। আজকাল ব্রণ চিকিত্সার ক্ষেত্রে লেজারসহ নানা পদ্ধতির কথা বলা হয়। অনেক রোগী প্রশ্ন করেন ব্রণের লেজার করা যায় কিনা। আমি নিজে এ ধরনের প্রশ্নের জবাব দিতে পারি না। রোগীদের একটাই প্রশ্ন ডাক্তার সাহেব টিভিতে, পত্র-পত্রিকায় দেখি লেজার চিকিত্সায় ব্রণ ভালো হয়। আসলে কি লেজার দিয়ে ব্রণের চিকিত্সা হয় কি? আমি আগে একাধিকবার বলেছি, লেজার দিয়ে কখনোই ব্রণের স্থায়ী চিকিত্সা সম্ভব নয়। লেজার দিয়ে ব্রণের সাময়িক নিরাময় হতে পারে। তবে স্থায়ীভাবে বা দীর্ঘ সময় ব্রণ নিরাময় সম্ভব নয়। যেসব লেজার সেন্টার থেকে বলা হয় লেজার দিয়ে ব্রণের চিকিত্সা সম্ভব তাদের কাছে অবশ্যই জেনে নিবেন হাজার হাজার টাকা ব্যয় করে লেজার করার পর মুখের ব্রণ আবার হবে কিনা। কোন লেজার সেন্টারের বিশেষজ্ঞগণ যদি নিশ্চয়তা দেন লেজার দিয়ে ব্রণের স্থায়ী চিকিত্সা দিতে পারবেন তাহলে লেজার-এর পিছনে অর্থ ব্যয় নিশ্চয়ই করতে পারেন। তবে আমি কখনই ...
ডায়াবেটিসে খাদ্য
২২ মার্চ, ২০১৪
যে কোনও সুষম খাদ্য পরিকল্পনার জন্য একটি খাদ্য নির্দেশিকা প্রয়োজন। স্বাস্থ্যকর খাবার থেকে পাওয়া যাবে শরীরের চাহিদা মাফিক সব পুষ্টি উপকরণ। হূদরোগ ও অন্যান্য রোগের ঝুঁকিও কমে। অনেকে ইউএসডিএ খাদ্য নির্দেশিকা 'মাই পিরামিড' ব্যবহার করেন সুষম খাদ্যের জন্য। ডায়াবেটিস রোগীরাও 'মাই পিরামিডের' সাহায্য নিতে পারেন এবং পুষ্টিবিদের পরামর্শে এতে কিছু পরিবর্তন এনে কাজে লাগাতে পারেন। খাদ্য নির্দেশিকা যে পরিমাণ শ্বেতসার ও শর্করা দিনের জন্য প্রয়োজন একে ভাগ ভাগ করে বিভিন্ন বেলায় খাওয়া যেতে পারে। একবেলা বেশি শর্করা খাওয়া ঠিক ...
কৃত্রিম হাঁটু প্রতিস্থাপন
১৫ মার্চ, ২০১৪
মানুষের শরীরের প্রতিটি হাড়ের রয়েছে কাজের ভিন্নতা ও প্রয়োজন আছে। ফলে যে কোন একটি হাড়ের সমস্যায় ব্যহত হবে আপনার স্বাভাবিক জীবন। সেই সঙ্গে বিপর্যস্ত করবে আপনার মানসিকতাও। তবে বর্তমানে চিকিত্সা জ্ঞান ও প্রযুক্তির বদৌলতে এ ধারাতে এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। হাড়ের বিষয়ে যে চিকিত্সা পদ্ধতি ছিল কল্পনাতীত তা এখন বাস্তবে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে উন্নত চিকিত্সাসেবা শুরু হয়েছে আমাদের দেশেও। যার ধারাবাহিকতায় কোমর, হাঁটু, কনুই ও কাঁধের হাড়ের সফল প্রতিস্থাপন এখন দেশেই সম্ভব। হাড়ের জয়েন্ট প্রতিস্থাপন কী শরীরের ...
ক্লান্তি অনেক রোগের উপসর্গ
০১ মার্চ, ২০১৪
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা ক্লান্তির একটি বড় কারণ হলো অনিদ্রা। ঘুম খুব কম হলে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে মনোযোগ ও স্বাস্থ্যের উপর। পূর্ণবয়ষ্কদের প্রতিরাতে ঘুম হওয়া উচিত ৭-৮ ঘন্টা। ঘুম হওয়া উচিত বড় রকমের অগ্রাধিকার। ঘুমের একটি নিয়মিত সূচী থাকাও চাই। ঘুম ঘরে যেন না থাকে ল্যপটপ, সেলফোন ও টিভি। এরপরও সমস্যা থাকলে চিকিত্সকের পরামর্শ। ঘুমের বৈকল্য থাকতেও পারে। নিম্নে ক্লান্তির কারণগুলো হলো: স্লিপএপনিয়া হতে পারে বড় কারণ অনেকে মনে করেন বেশ ঘুম হচ্ছে, নাক ডাকিয়ে ঘুম। কিন্তু ...
গর্ভাবস্থায় ঘুমের ব্যাঘাত
০১ মার্চ, ২০১৪
গর্ভাবস্থায় বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। এসবের মধ্যে ঘুম না হওয়া একটি বড় সমস্যা। ভালো ঘুম না হলে শরীর এবং মন কোনটাই ভাল থাকেনা। আবার ঘুমের যেসব ওষুধ আছে গর্ভাবস্থায় সেসবের ব্যবহার একেবারেই নিরাপদ নয়। তাই গর্ভাবস্থায় ঘুম না হওয়া একটি বড় ধরনের সমস্যা। গর্ভাবস্থায় ঘুম না হবার বিভিন্ন কারণ আছে। যেমনঃ ১. গর্ভাবস্থায় বারবার প্রস্রাব হয়। এভাবে একটানা ঘুম ব্যাহত হয়। ২. গর্ভকালে বুক জ্বালা দেখা দেয়। আর বুক জ্বললে কারো পক্ষে ঘুমানো সম্ভব নয়। এসময় ইসোফেগাসের নিচের ...
হার্ট এ্যাটাক: পুরুষের জ্ঞাতব্য
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
সিনেমায় দেখবেন হার্ট এ্যাটাক হলো বুড়ো নায়কের বুক চেপে ধরে বসে পড়লো। চি চি করে চিত্কার নয়ত গোঙ্গানি, পপাত ধরনীতল। সৌভাগ্য হলে সাহায্য পৌঁছাবে ত্বরিত্। বাস্তব জীবনে এসব উপসর্গ যে সব সময় ঘটে এবং এত সুষ্ট ঘটে তা কিন্তু নয়। ওরেগন হেলথ্ এন্ড সায়েন্স ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক ইমার্জেন্সি মেডিসিন বলেন, কিছু লোকের এ ধরণের ফিল্মি অভিজ্ঞতা হয় তবে অন্যদের তা হয়না। কিছু লোক বলেন, তাদের অস্বস্থি হলো, অস্পষ্ট ভালো না লাগা অনুভব মাত্র-এমন ব্যথা নয় যে বুকে লাগছে। কখনও ...
শীত শেষ, ব্যথা শুরু!
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
শীতে বাত-ব্যথা বেড়ে যায়। ধারণাটা ভুল। শীতের শুরু কিংবা শীতের শেষে গরমের শুরুতে অন্যান্য রোগের মত শারীরিক ব্যথার রোগীর সংখ্যাও বেড়ে যায়। এর যুক্তিসংগত কারণও আছে। ঋতু পরিবর্তনের সময় আমাদের শরীরকে গরম কিংবা ঠান্ডার সাথে মানিয়ে নিতে বেগ পেতে হয়। খেয়াল করে দেখবেন, যারা সাধারণত: সর্দি কাশিতে আক্রান্ত হন না তারাও গরম বা শীতের শুরুতে সিজনাল সর্দি কাশিতে আক্রান্ত হন। এমনি ভাবে যারা আগে থেকেই ঘাড় কোমর হাটু কাধ সহ শারীরিক ব্যথায় ভোগেন তারা তো বটেই অনেক নতুন রোগীও এসময়ে হঠাত্ তীব্র ব্যথায় আক্রান্ত হন। অনেক রোগী অভিযোগ করেন, সামনে ঝুকে মুখ ধুতে গিয়ে তার কোমরে এমন তীব্র টান ধরেছে যে তিনি সোজা হয়ে দাড়াতে পারছেন না কিংবা সকালে গোসল করতে গিয়ে এমন ভাবে ঘাড় খিচে ধরেছে যে আর ঘাড় নাড়াতে পারছেন না। রোগীর বর্ণনা অযৌক্তিক নয়। ঋতু পরিবর্তনের সময় আমাদের শরীরের মাংস পেশীগুলো নতুন আবহাওয়ার সাথে মানিয়ে নিতে গিয়ে স্বাভাবিক স্থিতিস্থাপকতা হারিয়ে ফেলে। ...
ঋতু পরিবর্তনে স্বাস্থ্য সচেতনতা
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
শীত যাচ্ছে, আসছে বসন্ত, এরপরই হয়তো বা প্রচন্ড গরমের গ্রীষ্মকাল। আবহমান কাল থেকেই ঋতুর এই পরিবর্তন চলে আসছে এবং চলতেই থাকবে। এই পরিবর্তনের সাথে সাথে আমাদের স্বাস্থ্যের পরিবর্তন বা রোগব্যাধি হওয়াটাই স্বাভাবিক। তাই আমাদের সবাইকে হতে হবে সচেতন, নিতে হবে কিছু প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা। ঋতু পরিবর্তনের সময় সবচেয়ে বেশি রোগব্যাধির প্রকোপ যায় শ্বাসতন্ত্রের উপর। বেশি দেখা দেয় ছোট বাচ্চা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ বয়স পর্যন্ত সবার সর্দি-কাশি বা কমন কোল্ড। বিশেষ করে শীতের শেষে আর গরমের শুরুতে তাপমাত্রা পরিবর্তনের সময়টাতেই ...
একটি মানসিক সমস্যা
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
স্কুলে অনেক সময় শিশুরা অন্য শিশুকে অপদস্থ করে, ব্যঙ্গাত্মক নামে ডাকে, সামাজিকভাবে বয়কট করে। সাধারণত একই ক্লাসের শক্তিশালী শিশুরা একা বা দলবদ্ধভাবে দুর্বল বা একা কোন শিশুকে উত্যক্ত করে। আবার উপরের ক্লাসের শিশুরাও নিচের ক্লাসের শিশুদের ভয়ভীতি দেখায়। এই ব্যাপারটিকে 'বুলিং' বলা হয়। বিভিন্ন কারণে বুলিং হতে পারে। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় বা জাতিগোষ্ঠীর সদস্য, শারীরিক বা মানসিক প্রতিবন্ধী, দুর্বল দৈহিক গঠন, অন্তর্মুখী স্বভাবের শিশুরা বুলিং-এর শিকার বেশী হয়। বুলিংয়ের শিকার শিশুরা পরবর্তীতে বিভিন্ন মানসিক সমস্যায় ভুগতে পারে। তারা হীনমন্যতায় ভোগে, হতাশা বোধ করে, বিষণ্নতায় আক্রান্ত হয়। অনিদ্রা, খাওয়ায় অরুচিসহ নানা শারীরিক উপসর্গও দেখা দেয়। আত্মবিশ্বাস কমে যায়। অনেকে স্কুুলে যেতে ভয় পায়। স্কুলে অনুপস্থিতির হার বাড়তে থাকে, ফলাফল খারাপ হতে থাকে, একসময় পড়াশোনাও বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এদের আত্মহত্যার ঝুঁকিও অন্যদের চেয়ে বেশী। এসব শিশুর মানসিক সমস্যাগুলো দীর্ঘদিন এমনকি বড় হওয়ার পরও থেকে যেতে পারে। যারা বুলিং করে তারাও নানা ধরনের সমস্যায় ভোগে। তাদের ভেতর স্কুল পালানো এবং পড়ালেখা ছেড়ে ...
সুস্থ-সবল হার্টের জন্য
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
সুস্থ হার্টের জন্য আছে নানা কৌশল। নিম্নে কৌশলগুলো আলোচনা করা হলো- যদি ধূমপান করে থাকেন, বন্ধ করুন এক্ষুনি এই নোংরা অভ্যাসটি হলো হূদ ঝুঁকি হরাসের যে সব প্রধান কৌশলগুলো রয়েছে এদের শীর্ষে। দেশ-বিদেশের সব স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা একবাক্যে বলেন, ধূমপান ছাড়ুন, সার্বিক স্বাস্থ্যের বিনাশ পরিবর্তন ঘটান। লক্ষ্য করুন দেহের মধ্যখানে শরীরের মধ্যস্থান। ওয়েস্টলাইন সুপার থিন্ হতে হবে তা নয়, ক্ষীণ কটি খুব-খুউব তাও নয়। তলপেট যেন মেদপূর্ণ না হয়। ...
দক্ষিণাঞ্চলে হেলথ ক্যাম্প
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিন আইচা থানার চর কচ্ছপিয়া গ্রামে অবস্থিত চরফ্যাশন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে, গণস্বাস্থ্য সমাজ ভিত্তিক মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক, বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকগন আট দিনে ১৮৮৭ জন রোগীকে চিকিত্সা সেবা দিয়েছেন। ৯৫ জন রোগী জেনারেল সার্জারী ও গাইনী। এর মধ্যে ২টি পিত্তথলী অপসারণ, ১ টি ভ্যাজাইনাল হিস্টেকটমি, ২ টি এবডোমিনাল হিস্টেকটমি, ১ টি এবডোমিনাল হেমানজিওমা ১ টি আনডিসেন্ট টেস্টিজ, ১ টি অরকিওটমি, ১২ টি হার্নিয়া, ১ টি ভ্যাজাইনাল সিস্ট, ১ টি মিয়োটমি, ৩ টি সিজারিয়ান সহ ২৫ টি বড় অপারেশন এবং ৭০ টি মাঝারী ও ছোট অপারেশন করা হয়েছে। একটি ৯.১ কিলোগ্রাম ওজনের ওভারিয়ান টিউমার অপারেশন করা হয়েছে। ১৬ জন ব্যক্তির চোখের ছানি কেটে নতুন লেন্স বসিয়ে দৃষ্টিশক্তি পূনরুদ্ধার হয়েছে। ৭ জন ব্যক্তির টেরিজিয়াম ডিসিটি ও ফরেন বডি অপারেশন করা হয়েছে। ...
শিশু যখন অবাধ্যঃ করণীয়
০১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
বাবা মায়ের পুরো সময়টাই কাটে শিশুকে নিয়ে। এত পরিশ্রম, এত পরিকল্পনা, এত উদ্যোগ, এত স্বপ্ন-এর বিরাট অংশ জুড়েই আছে শিশু। যে ঘরে শিশু নেই সে ঘরটিতে যেন বড় ধরণের অপূর্ণাঙ্গতা রয়ে গেছে। এত ভালোবাসা, এত সাধনার ধন শিশু, তাকে বড় করে তোলা কিন্তু সহজ নয়। বড়রা শিশুদের কাছে যেমনটা প্রত্যাশা করেন, শিশু কিন্তু অনেক সময় তেমনটা করতে আগ্রহী থাকেনা। তখন অভিভাবকেরা দুঃখিত হন, বিরক্ত হন, হন আশাহত। কেন হয় এমনটা? জীবনের কোন না কোন পর্যায়ে শিশুরা বড়দের অবাধ্য হয়। ...
কিডনির নালীতে পাথর হলে
০১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
কিডনি মানুষের শরীরের পিছন দিকে মেরুদন্ডের কাছে সীমের বিচির আকৃতির দু'টি অঙ্গ। কিডনির সাথে মূত্রথলির সংযোগকারী নালী রয়েছে যাকে ইউরেটার বা কিডনিনালী বলে। এই কিডনিনালী ২৫ সেঃমিঃ-এর মত লম্বা। এর তিনটি জায়গায় একটু চাপা রয়েছে। প্রথমটি হল কিডনির পেলভিসের সাথে ইউরেটারের সংযোগ স্থল, দ্বিতীয়টি যখন পেলভিক ব্রীজ ক্রস করে এবং তৃতীয়টি যখন মূত্রনালী প্রস্রাবের থলিতে প্রবেশ করে। কিডনি থেকে যখন পাথর কিডনি নালীতে নেমে আসে তখন এই জায়গাগুলোতে পাথর আটকানোর সম্ভবনা থাকে। এখানে উল্লেক্ষ্য যে, মূত্রনালীর পাথর মূত্রনালীতে উত্পন্ন হয় না এটি কিডনিতে উত্পন্ন হয়ে কিডনি নালীর দিকে নেমে আসে। কিডনি নালীতে নেমে আসার সময় এটি কিডনি নালীকে সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বন্ধ করে দিতে পারে। এর ফলে কিডনির ভিতর প্রস্রাব জমে কিডনি আকারে বড় হতে পারে যাকে বলা হয় হাইড্রোনেফ্রোসিস। দীর্ঘদিন এই অবস্থা বিরাজমান থাকলে কিডনি ধীরে ধীরে নষ্ট হতে পারে। কিডনির পাথর ইউরেটারে নেমে আসলে দেহের পিছনে বক্ষ খাঁচার নীচে তীব্র ব্যথা অনুভূত হতে পারে। এই ব্যথা ক্রমশ ...
হূদরোগ: যে উপসর্গগুলো অবহেলা নয়
২৫ জানুয়ারি, ২০১৪
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা হূদরোগ যেমন আমেরিকায় এক নম্বর ঘাতক রোগ, আমেরিকার মোট মৃত্যুর হার ৪০%। তবে উন্নয়নশীল দেশেও হূদরোগ ক্রমে ক্রমে একটি প্রধান ঘাতক রোগ হিসেবে আসছে। কেন হূদরোগ এত ভয়ানক একটি কারণ হলো উপসর্গ দেখা দেবার পরও অনেক ধীরে সাড়া দেন রোগীরা, সাহায্যও চান দেরীতে। হঠাত্ বুকে প্রচণ্ড ব্যথা হলে অনেকে জানেন কার্ডিয়াক জরুরীতে ফোন করতে হবে, তবে হূদরোগের উপসর্গ বিচিত্র রকমের। সব সময় তীব্র বা স্পষ্ট ব্যথা হয়ে আসে না। ব্যক্তি ভেদে, জেন্ডার ভেদেও এর ...
মাড়ির রোগ থেকে হূদরোগ স্ট্রোক ডায়াবেটিস
১৮ জানুয়ারী, ২০১৪
সমপ্রতি বিজ্ঞানিরা প্রমাণ করেছেন যে, মাড়ির প্রদাহ বা ইনফেকশন থেকে দেহে অনেকগুলো মারাত্মক রোগের উত্পত্তি ঘটতে পারে, যেমন হূদরোগ, স্ট্রোক, ডায়াবেটিস ইত্যাদি। তাই আপনার মাড়িও ঝুঁকিপূর্ণ কিনা তা প্রমাণ করতে হলে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো, কে গুরুত্ব দিতে হবে- ১. আপনার বয়স কত? মাড়ির রোগ সাধারণত বয়সের সাথে সাথে বাড়তে থাকে। গবেষণায় দেখা যায়, বয়স্কদের বেশীর ভাগই পেরিওডেন্টাল ডিজিজ হতে পারে তাই তাদের সঠিকভাবে মাড়ির যত্ন দরকার । ২. আপনি পুরুষ না মহিলা গবেষণায় দেখা যায় পুরুষ অথবা মহিলাদের মধ্যে মাড়ির ...
মূত্রথলির ক্যান্সার
১৮ জানুয়ারী, ২০১৪
মূত্রথলি মানুষের তলপেটে অবস্থিত মূত্র সংগ্রহের আধার। এটি সাধারণত পিউবিক বোনের পিছনে থাকে তবে পরিপূর্ণ অবস্থায় তলপেটে চলে আসে। দু'টি কিডনি থেকে দু'টি নালীর মাধ্যমে প্রস্রাব মূত্রথলিতে জমা হয়। যখন মূত্রথলি প্রস্রাবে পরিপূর্ণ হয় তখন এর সংকোচন শুরু হয়। প্রস্রাব নালীর মাধ্যমে মূত্র শরীরের বাহিরে পরিত্যাক্ত হয়। প্রস্রাবের থলির ভিতরের দিকে একধরণের বিশেষ কোষের ঝিল্লি থাকে। এটাকে বলা হয় ট্রাঞ্জিসনাল সেল। এই সেলের বিশেষত্ব হলো এখান থেকে পুনরায় মূত্র শোষণ হয় না এবং প্রসারিত হতে পারে। শরীরের অন্যান্য অঙ্গের ...
নতুন বছরের স্বাস্থ্য
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
বেশি বেশি লবণ খাওয়া যাবেনা দৈনিক সোডিয়াম গ্রহণ ২৩০০ মিলি. গ্রামের বেশি খাওয়া যাবেনা। তবে ৫০ উর্দ্ধ হলে উচ্চ রক্তচাপ থাকলে, ডায়াবেটিস বা কিডনি রোগ থাকলে সোডিয়াম ১৫০০ মিলিগ্রামের বেশি খাওয়া যাবেনা প্রতিদিন। আমরা অনেক লবণ খাই। তাই লবণ খাওয়া কমাতে হবে। রেস্তোরার খাবার, আচার, লবণযুক্ত খাবার, প্রক্রিয়াজাত খাবার থেকে অনেক লবণ আসে। কেবলযে লবণ ঝাকানি থেকে পাতে লবণ খাই তাই নয়। তাই খেতে হবে টাটকা খাবার, যতদূর সম্ভব ঘরে রান্না করা খাবার খেতে হবে। তখন লবণ কম খাবার ...
সাইক্লিং ভাল ব্যায়াম
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
সাইকেল অর্থাত্ বাইসাইকেল চালানো হাঁটা এবং সাতার কাটার মত একটি উত্কৃষ্ট ব্যায়াম। নিয়মিত সাইকেল চালানো শরীরের জন্য খুবই উপকারী। এতে রক্তের কলেস্টেরলের মাত্রা কমে। রক্তচাপও কমে। সপ্তাহে ৩৫ কিলোমিটারের মত পথ সাইকেল চালালে করোনারি হূদরোগের সম্ভাবনা কমে যায় ৫০ শতাংশেরও বেশি। নিয়মিত সাইকেল চালানো শরীরের ওজন কমাতে সহায়ক। সাইকেল চালালে শরীরের জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া বৃদ্ধি পায়। ঘন্টায় মোটামুটি ২০ কিমি. গতিতে সাইকেল চালালে প্রতি ঘন্টায় প্রায় ৫০০ থেকে ৫৫০ ক্যালরি শক্তি খরচ হয়। ২০০৭ সালে ব্রিটিশ জার্নাল অব স্পোর্টস মেডিসিনের এক গবেষণার কথা এটি। এত এনার্জি খরচ হয় বলে নিয়মিত সাইকেল চালালে যারা মোটা তাদের বাড়তি ওজন কমে শরীরের ওজন হয়ে যায় স্বাভাবিক। নিয়মিত সাইকেল চালালে মোটা লোকদের স্বাভাবিক ওজন ফিরে পাবার সম্ভাবনা ৮৫ শতাংশ- এ তথ্য পাওয়া গেছে আর্কাইভস অব পেডিয়েড্রিকস এন্ড এডোলিসেন্ট মেডিসিন নামক জার্নালের একটি সংখ্যায়। ...
এসপিরিন ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি রোধ করে
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
লোডোজ এসপিরিন সেবন হার্টের জন্য ভালো, রোধ করে ক্যান্সারের ঝুঁকি। এমন তথ্যের ভিত্তিতে বিশেষজ্ঞগণ ক্যান্সারের ঝুঁকি রোধে এসপিরিন সেবনের পরামর্শ দিয়ে থাকলেও এতদিন এর কোন বিজ্ঞানভিত্তিক উত্তর দিতে পারেননি বিশেষজ্ঞগণ। এখন সেই উত্তর খুজে পেয়েছেন গবেষকগণ। বিশেষজ্ঞগণ বলছেন, গবেষণায় দেখা গেছে এসপিরিন ও অন্যান্য এসপিরিন জাতীয় ওষুধ ক্যান্সারের জন্য দায়ী এক ধরণের ডিএনএ কোষ বা সোমাটিক জেনম অ্যাবনরমালিটিস বা এসজিএ একত্রিত হওয়ায় গতিকে মন্থর করে দেয়। এই এসজিএ কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সহায়ক। বিশেষজ্ঞগণ গলার ক্যান্সারে আক্রান্তদের ওপর গবেষণায় দেগেছেন যারা নিয়মিত এসপিরিন ও অন্যান্য ননস্টেরয়ডাল এন্টি ইনফ্লামেটরি ওষুধ সেবন করেছেন তাদের ক্যান্সার কোষের ক্ষতিকারক প্রবণতা শতকরা ৯০ ভাগ পর্যন্ত হরাসপেতে পারে। এ ব্যাপারে সানফ্রান্সসিসকোর ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যান্সার ইভালুয়েশন সেন্টারের পরিচালক ড: কার্লো সি ম্যালে উল্লেখ করেছেন যে প্রক্রিয়ায় ঘাতক ব্যাধি এইডসের ভাইরাসের মিউটেশন নিরুপন করা হয় সেই একই প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে ক্যান্সার রোধে এসপিরিনের ভূমিকা নিরূপনে। ড: ম্যালে মনে করেন যে কোন ক্যান্সার খারাপ অবস্থায় যেতে দীর্ঘ সময় ...
শীতে ঠাণ্ডা থেকে রক্ষার ১৫ উপায়
২১ ডিসেম্বর, ২০১৩
আবাসিক সার্জন ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সার্জারি ও মূত্ররোগ বিশেষজ্ঞ চেম্বার:ল্যাব সাইন্স ডায়াগনস্টিক লিঃ ১৫৩/১ গ্রিন রোড, ঢাকা। ঠাণ্ডা লাগলে গলায় খুসখুস ভাব, নাক-চোখ দিয়ে পানি পড়া, মাথা ভার হয়ে থাকা প্রভৃতি উপসর্গ দেখা দেবেই। সাধারণ সর্দি-কাশিতে এক সপ্তাহ পুরো অস্বস্তিতে থাকতে হয়। ওষুধপত্রে তেমন একটা কাজ হয় না। কারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করার মতো কার্যকর ওষুধ খুব একটা নেই। ঠাণ্ডা কিংবা সাধারণ সর্দি-কাশি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। আক্রান্ত ব্যক্তির কাছ থেকে তিন ...
বাইপোলার ডিজঅর্ডার নিয়ে বিভ্রান্তি
২১ ডিসেম্বর, ২০১৩
মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট, ঢাকা বাইপোলার ডিজঅর্ডার আবেগজনিত একটি মানসিক রোগ। নারী-পুরুষ উভয়ই এ রোগে আক্রান্ত হতে পারেন। যাদের নিকটাত্মীয়ের-এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ইতিহাস আছে, তাদের ক্ষেত্রে এ রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেশী। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের গবেষকদলের জরীপ অনুয়ায়ী, বাংলাদেশে ১৮ বছর ও তদূর্ধ্ব বয়সীদের শতকরা ০.৪ ভাগ অর্থাত্ প্রতি হাজারে ৪ জন এ ধরণের রোগে আক্রান্ত। এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের আবেগের দু'টি পর্যায় থাকে। একটি পর্যায় হচ্ছে ম্যানিয়া বা হাইপোম্যানিয়া। ম্যানিয়া পর্যায়ে ব্যক্তিরা অস্বাভাবিক আনন্দ-ফূর্তি অথবা বিরক্ত বোধ করেন, নিজেকে অতি বিত্তশালী বা ক্ষমতাবান মনে করেন, কথা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী বলেন। তাদের মধ্যে অতি উত্তেজনা বা অতিরিক্ত কাজের স্পৃহা দেখা দেয়। কোন নির্দিষ্ট বিষয়ে বা কথায় স্থির থাকতে পারেন না। বেশী খরচ করেন অথবা দান করেন। ঘুম কমে যায়। অনেকের যৌন আগ্রহ অস্বাভাবিক বেড়ে যায়। কিন্তু আক্রান্তরা নিজেদেরকে স্বাভাবিক মনে করেন। তাদের আচরণের অস্বাভাবিকতা অন্যদের চোখে ধরা পড়ে। এসব উপসর্গ ...
রক্তে ইউরিক এসিডের আধিক্য
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৩
আমরা সাধারণত অনেক ধরণের খাবার খাই। তার মধ্যে কিছু কিছু খাবার আছে যা পিউরিন সমৃদ্ধ। দেহের মধ্যে এই পিউরিন ভেঙ্গে ইউরিক এসিডে পরিণত হয় যা বৃক্ক বা কিডনি দ্বারা দেহ থেকে বের হয়ে যায়। কিন্তু অনক সময় নানা কারণে এই ইউরিক এসিড রক্তে বেড়ে যায় যাকে হাইপারইউরিকেমিয়া বলে। রক্তে ইউরিক এসিড বেড়ে গেলেই যে ঐ ব্যক্তির 'বাত রোগে' আক্রান্ত হবে তেমনটা নয়। তবে রক্তে ইউরিক এসিডের আধিক্য বাত রোগ সৃষ্টি করতে পারে। রক্তে ইউরিক এসিড সাধারণত: কয়েকটি কারণে বেড়ে ...
প্রবীণদের স্বাস্থ্য সমস্যা ও করণীয়
০৭ ডিসেম্বর, ২০১৩
জরা বা বার্ধক্য জীবনের এক চরম সত্য। শৈশবের সোনালি সকাল শেষ করে তারুণ্য আর যৌবনের রোদেলা দুপুর পাড়ি দিয়ে মাঝ বয়সের ব্যস্ত বিকেলটাও যখন চলে যায় তখনই জীবন সায়াহ্নের গোধূলী বেলায় আসে বার্ধক্য। এই সময়টা আসলে মানব জীবনের শেষ অধ্যায়। নেহায়েত অকাল মৃত্যু না হলে এই স্তরটিতে শেষ পর্যন্ত পর্দাপন করতেই হবে। বার্ধক্যকে এড়িয়ে চির তারুণ্যের সোনার হরিণ ধরার চেষ্টা মানব ইতিহাস জুড়েই হয়েছে, কিন্তু তার নাগাল পাওয়া যায়নি। বার্ধক্য তাই জীবনের নিয়তি। বার্ধক্য যখন আসে তখন কিছু স্বাভাবিক ...
ক্যান্সার প্রতিরোধে ভিটামিন সি
৩০ নভেম্বর, ২০১৩
ভিটামিন সি পানিতে দ্রবণীয় একটি ভিটামিন। শরীর ভিটামিন সি জমিয়ে রাখতে পারেনা। অতিরিক্ত ভিটামিন সি গ্রহণ করলে তা প্রস্রাবের সাথে দেহ থেকে রেরিয়ে যায়। প্রতিদিন আমাদের এই ভিটামিন খাওয়া উচিত। টক জাতীয় ফলে ভিটামিন সি প্রচুর পরিমাণে থাকে। আমলকী, আমড়া, পেয়ারা, জলপাই, লেবু, বাতাবী লেবু, কমলা, টমেটো, আঙ্গুর, ইত্যাদি ফলে অনেক ভিটামিন সি থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে এই ভিটামিন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। সুতরাং সবার এই ভিটামিন প্রতিদিন প্রচুর পরিমানে খাওয়া উচিত। ভিটামিন সি আমাদের শরীরের বৃদ্ধি এবং ক্ষয়পূরণের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। বিভিন্ন জায়গা কেটে গেলে প্রচুর সি জাতীয় ভিটামিন গ্রহণ করা উচিত। কারণ এই ভিটামিন কোলাজেন তৈরী করে এবং ক্ষতস্থান দ্রুত মেরামত করে। দাঁত এবং অস্থির গঠনেও এর ভূমিকা রয়েছে। ক্যান্সার প্রতিরোধ ছাড়াও বিভিন্ন অসুখ বিসুখের হাত থেকে রক্ষা করতে ভিটামিন সি এর জুড়ি নেই। যেমনঃ- ভিটামিন সি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, সুন্দর, সুস্থ মাড়ির জন্য এই ভিটামিন প্রয়োজন, রক্তের গ্লোকোজ নিয়ন্ত্রণ করে, পোড়া এবং ক্ষত দ্রুত আরোগ্যের ...
একজন ব্রণের রোগী চিকিত্সার কথা
৩০ নভেম্বর, ২০১৩
এমিরেটস এয়ার লাইন্সে চাকুরী করেন এমন একজন ভদ্রমহিলা আমার রোগী। ৭/৮ মাস আগে আমার চেম্বারে এসেছিলেন ইনফেকটেড একনি বা মুখে তীব্র ধরণের একনি নিয়ে। এর আগে দু'জন স্বনামধন্য চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ এবং একটি লেজার সেন্টারে চিকিত্সা নিয়েছেন। আমার চেম্বারে যখন আসলেন তখন মুখে তীব্র ধরণের ক্ষত চিহ্ন ও দাগ। যাকে ডাক্তারী ভাষায় বলা হয় পোস্ট ইনফ্লামেটরী হাইপার পিগমিন্টেশন এন্ড স্কার। আমার চেম্বারটি গরীব ও স্বল্প আয়ের লোকদের জন্য। তবে মাঝে মাঝে সামর্থবান রোগীরাও আসেন। এমিরেটসের ভদ্র মহিলার কাছে ইতিহাস শুনে ...
ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয়
২৩ নভেম্বর, ২০১৩
সহকারী অধ্যাপিকা ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ চেম্বার: জেনারেল মেডিক্যাল হাসপাতাল (প্রা.) লি., ১০৩, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা। ১৭৮০ সালে প্রথম এই রোগের বর্ণনা পাওয়া যায়। মশার মাধ্যমে এর সংক্রমণ বিস্তার ১৯০৫ সালে এবং এটি যে একটি ভাইরাসজনিত রোগ তা ১৯০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। অবশ্য, ১৯৪৪ সাল পর্যন্ত ভাইরাসটি শনাক্ত করা যায়নি। এটি এখন প্রতিষ্ঠিত যে, চারটি পৃথক ধরনের ভাইরাস (টাইপ ১-৪) ডেঙ্গু জ্বরের জন্য দায়ী। এটি একটি ভাইরাসজনিত রোগ যা এডিস মশার কামড়ের মাধ্যমে ছড়ায়। এটি সাধারণত যে সব ঋতুতে ...
শীতের অসুখ:সতর্কতা ও করণীয়
০৯ নভেম্বর, ২০১৩
শীত সমাগত। ঘুম থেকে উঠলেই দেখা যায় প্রকৃতি কুয়াশাচ্ছন্ন, আর সবুজ ঘাসে জমে আছে বিন্দু বিন্দু শিশির। অনেক সময় প্রকৃতি সাজে অপরূপ সৌন্দয্যে, পরয্যটকদের আনাগোনাও বেড়ে যায়। শীতকাল শুরুর এই সময়টা উপভোগ্য হলেও দেখা দিতে পারে বাড়তি কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা। তাই এই সময়টাতে প্রয়োজন কিছুটা বাড়তি সতর্কতা। শুষ্ক আবহাওয়ার সাথে কম তাপমাত্রার সংযোজন আর ধূলাবালির উপদ্রব, সব মিলিয়েই সৃষ্টি করে কিছু স্বাস্থ্যগত সমস্যা। তার জন্য প্রয়োজন কিছু সতর্কতা। শীতে প্রধানত বাড়ে শ্বাসতন্ত্রের রোগ। যদিও এসব রোগের প্রধান কারণ ভাইরাস। ...
ডায়াবেটিস রোগী বাড়ছে
০২ নভেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা ডায়াবেটিস বাড়ছে তবে প্রতিরোধযোগ্য রোগও বটে। আবার ডায়াবেটিস হবার আগের অবস্থাও যে আজকাল বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে তাও ঠিক। প্রি-ডায়াবেটিস। আমেরিকাতে ২৫% লোকের রয়েছে প্রি-ডায়াবেটিস। এদেশেও বেশ দেখা যাচ্ছে এ অবস্থা। রক্তের সুগার স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তবে ডায়াবেটিস হবার মত পর্যায়ে পৌঁছায়নি। এরকম থাকলে দশ বছরের মধ্যে পুরোপুরি ডায়াবেটিস হয়ে যায়। তবে মাত্র ৪% লোক এ সম্বন্ধে অবহিত। কষ্টের কথা হলো, যারাও অবহিত এদের মধ্যে অর্ধেকেরও কম লোক শরীরের ওজন বেশি থাকলে কমিয়ে, কম খেয়ে, ...
উচ্চ রক্তচাপ অবহেলা করবেন না
০২ নভেম্বর, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ কমিউনিটি বেজড্ মেডিকেল কলেজ, ময়মনসিংহ। বাবুল সাহেবের (ছদ্মনাম) বয়স ৫৫ বছর। সুস্থ সবল মানুষ। কোন অসুখ বিসুখ নেই। নিজেকে সুস্থই ভাবেন। কিন্তু এক সুন্দর সকালে হঠাত্ করেই তাঁর 'স্ট্রোক'। ভাগ্যগুণে বেঁচে গেলেন। আপাতত সুস্থ একজন মধ্যবয়সী লোকের হঠাত্ করে কেন এমন হলো? তাঁর ডাক্তার বলেন, অনেক আগে থেকেই বাবুল সাহেবের উচ্চ রক্তচাপ ছিল কিন্তু তা তার কাছে জানা ছিল না। দীর্ঘদিন উচ্চ রক্তচাপ থাকার কারণেই তাঁর এই স্ট্রোকটা হয়েছে। শুরুর দিকেই যদি উচ্চ রক্তচাপ সনাক্ত করা হতো এবং চিকিত্সার মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রণে রাখা হতো, তাহলে হয়তো এই এ্যাটাকটা হতো না। ...
একেটাপিক প্রেগন্যান্সি:অন্যরকম গর্ভধারণ
২৬ অক্টোবর, ২০১৩
নিষিক্ত ডিম্বানু জরায়ুর ভেতরে বিকাশ লাভ করে। কিন্তু দুই শতাংশ ক্ষেত্রে এই নিষিক্তকরণ জরায়ুর বাইরে ঘটে। ডিম্বনালী, ডিম্বাশয়, জরায়ুর আশে পাশে যদি গর্ভসঞ্চার হয় তবে তাকে একেটাপিক প্রেগন্যান্সি বলে। এ ধরনের গর্ভাবস্থার সবচেয়ে বড় বিপদ হছে হঠাত্ ডিম্বনালী ফেটে গিয়ে পেটের ভিতরে তীব্র রক্তক্ষরণ। এরকম হয়ে সঠিক ডায়াগনসিস এবং চিকিত্সা না হলে মৃত্যু ঘটাও অসম্ভব নয়। একেটাপিক প্রেগন্যান্সির কারণ কেন একেটাপিক প্রেগন্যান্সি হয় তার বিভিন্ন ব্যাখ্যা আছে। ডিম্বনালী যদি স্বাভাবিক না থাকে তবে এমনটি হতে পারে। আবার কোন নারীর ...
শরীরের যখন বাড়তি চর্বি
২৬ অক্টোবর, ২০১৩
আমরা দেহে চর্বি বাড়তি হলে ঝরাতে চাই, তবে এজন্য দেহে চর্বি থাকবেনা পরিমিত, তাতো নয়। চর্বি বেশ প্রয়োজনীয়, জানেন তো। চর্বির দুটো কাজ তো আছেই। যেমন- ১. শরীরের বাড়তি ক্যালোরি, চর্বি রাখে ভান্ডারে নিরাপদে। যাতে ক্ষুধার্ত হলে, অনাহারে থাকলে শরীর শক্তি সংগ্রহ করতে পারে সেই ভান্ডার থেকে। ২. চর্বি নি:সৃত করে নানান হরমোন যা নিয়ন্ত্রণ করে দেহের বিপাককে। শরীরে অতিরিক্ত চর্বি থাকা ঠিক নয় সত্যি, তবে এটি পুরুষের মধ্যে স্ত্রী হরমোন বাড়ায় এ বড় মিথ্যে কথা। সত্যি কথা হলো ...
মূত্রথলির ক্যান্সার
১২ অক্টোবর, ২০১৩
সহযোগী অধ্যাপক, ইউরোলজি বিভাগ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। চেম্বার:ঢাকা রেনাল এন্ড জেনারেল হাসপাতাল, ১৬১/এ, লেক সার্কাস, কলাবাগান, ঢাকা মূত্রথলি মানুষের তলপেটে অবস্থিত মূত্র সংগ্রহের আধার। এটি সাধারণত পিউবিক বোনের পিছনে থাকে তবে পরিপূর্ণ অবস্থায় তলপেটে চলে আসে। দু'টি কিডনি থেকে দু'টি নালীর মাধ্যমে প্রস্রাব মূত্রথলিতে জমা হয়। যখন মূত্রথলি প্রস্রাবে পরিপূর্ণ হয় তখন এর সংকোচন শুরু হয়। প্রস্রাব নালীর মাধ্যমে মূত্র শরীরের বাহিরে পরিত্যাক্ত হয়। প্রস্রাবের থলির ভিতরের দিকে একধরণের বিশেষ কোষের ঝিল্লি থাকে। এটাকে বলা হয় ট্রাঞ্জিসনাল ...
লাল মাংসেরভালমন্দ
১২ অক্টোবর, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান, পুষ্টি বিভাগ বারডেম হাসপাতাল, ঢাকা গোশত প্রাণীজ প্রোটিন বা আমিষ। খাদ্য মূল্যের দিক থেকে উদ্ভিদ প্রোটিনের তুলনায় উন্নতর। গোশত সুস্বাদুও বটে। এতে সমস্ত এমাইনো এসিড বিদ্যমান। এছাড়া আছে লৌহ, ফসফরাস, ভিটামিন বি১ ও ভিটামিন বি২। গোশতের চর্বি বেশির ভাগ থাকে বাহিরের অংশে। তবে খাসীর গোশতের পরতে পরতে চর্বি বিদ্যমান। সেজন্য খাসীর গোস্তের চর্বি ছাড়ানো মুশকিল হয়ে পড়ে। কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি থাকলেও গরু ও খাসীর কলিজায় লৌহের পরিমাণও বেশি থাকে। এছাড়া মগজে কোলেস্টেরলের পরিমাণ থাকে ১০০%। দেহে প্রোটিনের ...
শিশুর নাক দিয়ে পানি ঝরা
২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
সহযোগী অধ্যাপক, নাক, কান, গলা বিভাগ হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। চেম্বার: ইনসাফ বারাকাহ কিডনি এন্ড জেনারেল হাসপাতাল, ৩৩৫ মগবাজার, ঢাকা শিশুর নাক দিয়ে যখন প্রায়ই পানি ঝরে তখন বিষয়টি নিয়ে বাবা-মা চিন্তিত না হয়ে আর পারেন না। নাকের এই পানিকে সরাসরি পানি না বলে শ্লেষা বলাই শ্রেয়। সাধারণত ৪ থেকে ৮ বছর বয়সের শিশুদের মধ্যে নাক শ্লেষা ঝরার সমস্যা দেখা যায়। এই বয়সে ঘন ঘন উর্ধ্বশ্বাসনালীর প্রদাহে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি শিশুদের নাক দিয়ে এই শ্লেষা ঝরার ...
ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা যাদের ডায়াবেটিস নেই তাদের তুলনায় যাদের ডায়াবেটিস তাদের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ দেখা যায় বেশি। এমন দেখা যায় পূর্ণবয়স্ক তিন জন ডায়াবেটিকের মধ্যে দুই জনের থাকে উচ্চ রক্তচাপ। ডায়াবেটিস থাকলে উচ্চ রক্তচাপ হওয়ার ঝুঁকিও দ্বিগুণ। চিকিত্সা না হলে উচ্চ রক্তচাপ থেকে হতে পারে হার্ট এ্যাটাক ও স্ট্রোক। বস্তুত: যে ব্যক্তির ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ দুটোই আছে, ডায়াবেটিস নেই এমন লোকের তুলনায়, হূদরোগ হবার সম্ভাবনা প্রায় চারগুণ। পূর্নবয়স্ক ডায়াবেটিক রোগীর ৭৩% শতাংশের রক্তচাপ ১৩০/৮০ এর বেশি ...
ডায়াবেটিস, হূদযন্ত্র ও রক্তনালীর রোগ
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
ডায়াবেটিসের সঙ্গে হূদযন্ত্র ও রক্তনালীর রোগের একটি জোরালো সম্পর্ক বিজ্ঞানীরা খুজে পেয়েছেন। হূদযন্ত্র ও রক্তনালীর রোগ হলো ডায়াবিটসের একটি প্রধান জটিলতা, শুধু তাই নয় ডায়াবেটিস যাদের আছে এদের আগাম মৃত্যুর একটি প্রধান কারণ হলো হূদরোগ। পরিসংখ্যানে দেখা যায় ডায়াবেটিক রোগীর ৬৫% শতাংশ মারা যান হূদরোগ ও স্ট্রোকে। পূর্ণ বয়স্ক লোক যাদের ডায়াবেটিস আছে এদের হূদরোগ হবার সম্ভাবনা বা স্ট্রোকে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি, যাদের ডায়াবেটিস নেই তাদের চেয়ে দুই থেকে চারগুণ বেশি। পূর্ণ বয়স্ক ডায়াবেটিস রোগী যাদের রক্তে গ্লুকোজ উচুমানে ...
ব্যথার ওষুধ খাবেন সাবধানে
০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
ব্যথার অনেক ওষুধ ব্যবস্থাপত্র ছাড়াই কিনতে পাওয়া যায়, শুধু ফার্মেসী কেন, ডিপার্টমেন্টাল স্টোরেও পাওয়া যায় ব্যথার ওষুধ। পেশীতে খুব শূল হচ্ছে বা প্রচন্ড মাথা ব্যথা। ব্যথার ওষুধের বোতলের দিকে হাত বাড়ানোর আগে দেখে নিন কোন ওষুধ খাচ্ছেন এবং এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াই বা কি কি হতে পারে। ওষুধের উপর লেবেন পড়ে নিন এই ওষুধ সেবনের নিয়মগুলোও জেনে নিন। ব্যথার ওষুধ আসে দুই প্রকারে। এসিটোএমিনোফেন (প্যানাডল, টাইলেনল) এবং নন-স্টেরয়ডেল এন্টি ইনফ্লামেটরী (NSAIDS) ড্রাগ। দু'টোই ব্যথা কমায়। জ্বরও কমায়। NSAIDS এর মধ্যে আছে ...
শরীরে যখন বাড়তি চর্বি
৩১ আগষ্ট, ২০১৩
আমরা দেহে চর্বি বাড়তি হলে ঝরাতে চাই। তবে এজন্য দেহে চর্বি থাকবেনা পরিমিতভাবে তাতো নয়। আমাদের শরীরে চর্বি বেশ প্রয়োজনীয়, জানেন তো। চর্বির দুটো কাজ তো আছেই। শরীরের বাড়তি ক্যালোরি, চর্বি রাখে ভান্ডারে নিরাপদে যাতে ক্ষুধার্ত হলে, অনাহারে থাকলে শরীর শক্তি সংগ্রহ করতে পারে সেই ভান্ডার থেকে। চর্বি নি:সৃত করে নানান হরমোন যা নিয়ন্ত্রণ করে দেহের বিপাককে। শরীরে অতিরিক্ত চর্বি থাকা ঠিক নয় সত্যি, তবে এটি পুরুষের মধ্যে স্ত্রী হরমোন বাড়ায় এটা বড় মিথ্যে কথা। সত্যি কথা হলো স্থূল ...
কোলেস্টেরল সম্পর্কে জানুন
২৪ আগষ্ট, ২০১৩
খুব বেশি চর্বিযুক্ত খাবারে সঙ্গে আমরা প্রায়শ: কোলেস্টেরলকেও যুক্ত করি। তবে বেশিরভাগ কোলেস্টেরল; এই মোমসৃদর্শ বস্তুটি তৈরি হয় দেহের ভেতরেই। রক্তে বহমান কোলেস্টেরলের ৭৫% ভাগই তৈরি হয় যকৃতে। বাকি ২৫% আসে খাদ্য থেকে। স্বাভাবিক মান বজায় থাকলে কোলেস্টেরল দেহের জন্য সব উপকারী জিনিষ করতে থাকে। তবে পৃথিবী জুড়ে অসংখ্য লোকের রক্তে কোলেস্টেরল মান বেশি। রক্তে কোলেস্টেরল বেড়ে গেলে কোনও লক্ষণ বা উপসর্গ হয়না। কিন্তু দেহের গভীরে ক্ষতিতো হতেই থাকে। কালক্রমে খুব বেশি কোলেস্টেরল রক্তে ধীরে ধীরে ধমনীর ভেতর চর্বিপুঞ্জ ...
ইউরেটার বা কিডনির নালীতে পাথর
২৪ আগষ্ট, ২০১৩
কিডনি মানুষের শরীরের পিছন দিকে মেরুদন্ডের কাছে সীমের বিচির আকৃতির দু'টি অঙ্গ। কিডনির সাথে মূত্রথলির সংযোগকারী নালী রয়েছে যাকে ইউরেটার বা কিডনিনালী বলে। এই কিডনিনালী ২৫ সেঃমিঃ-এর মত লম্বা। এর তিনটি জায়গায় একটু চাপা রয়েছে। প্রথমটি হল কিডনির পেলভিসের সাথে ইউরেটারের সংযোগ স্থল, দ্বিতীয়টি যখন পেলভিক ব্রীজ ক্রস করে এবং তৃতীয়টি যখন মূত্রনালী প্রস্রাবের থলিতে প্রবেশ করে। কিডনি থেকে যখন পাথর কিডনি নালীতে নেমে আসে তখন এই জায়গাগুলোতে পাথর আটকানোর সম্ভবনা থাকে। এখানে উল্লেক্ষ্য যে, মূত্রনালীর পাথর মূত্রনালীতে উত্পন্ন ...
চোখের চিকিত্সায় কন্টাক্ট লেন্স
১৭ আগষ্ট, ২০১৩
কন্টাক্ট লেন্স এটা একটি চোখের লেন্স, যা চোখের কালো মনির সামনে লাগিয়ে চোখের দৃষ্টি স্বল্পতার চিকিত্সা করা হয়। চোখের অন্যান্য রোগের চিকিসাতেও কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার হয়। কন্টাক্ট লেন্সের ব্যবহার ++যারা চশমা পড়তে চাননা তারা পাওয়ার যুক্ত কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারেন। প্লাস, মাইনাস এ্যাসটিগমেটিক সব ধরনের কন্টাক্ট লেন্স পাওয়া যায়। ++যাদের কালো মনিতে পুরোনো ঘা আছে, চোখ খোলা ও বন্ধ করার সময় ঘা বারবার কাঁচা হয়ে যায়, তাদের ক্ষেত্রে ব্যান্ডেজ কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা প্রয়োজন। ++চোখে চুন পড়লে বিভিন্ন ...
ঈদের আনন্দ ও খাওয়া দাওয়া
০৩ আগষ্ট, ২০১৩
এক মাস রমজানের সিয়াম সাধনার পর আসছে ঈদ, যা বয়ে আনবে সকলের জন্য অনাবিল আনন্দ। ছোট বাচ্চা থেকে বয়স্করা সবাই ঈদের আনন্দকে বরণ করে নেয়ার জন্য উদগ্রীব। আর ঈদের দিনে আনন্দের অন্যতম আয়োজনটাই হলো নানা রকমের খাবার দাবার। সকাল বেলা উত্সবের শুরুটাই হয় মিষ্টি, সেমাই, পোলাও, কোর্মা আরো কত রকমের খাবার দিয়ে। রোজার একমাসে মানুষের খাদ্যাভ্যাস ও জীবন যাপন প্রণালীতে যে পরিবর্তন আসে, সেটাতেই অনেকে অভ্যস্ত হয়ে পড়েন। আর এ কারণে হঠাত্ ঈদের দিনে অতিভোজনের ফলে  পাকস্থলি তথা পেটের ...
হেপাটাইটিস বি ও সি ভাইরাস
২৭ জুলাই, ২০১৩
সারা বিশ্বে প্রতি ১২ জনে ১ জন লোক হেপাটাইটিস বি অথবা সি ভাইরাসে আক্রান্ত। হেপাটাইটিস বি আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৫ কোটি এবং হেপাটাইটিস সি আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৭ কোটি। সে হিসাবে এটা অনুমিত যে, বিশ্বব্যাপী প্রায় ৫২ কোটি লোক এই ভাইরাস দু'টি শরীরে নিয়ে বসবাস করছে। প্রতি বছর প্রায় ১৫ লাখ লোক এই ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট লিভার রোগের জটিলতা যেমন- লিভার সিরোসিস, লিভার ফেইলিউর, অথবা লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে পরবর্তীতে মৃত্যুবরণ করে। এই ভয়াবহতাকে গুরুত্ব দিয়ে ওয়ার্ল্ড হেপাটাইটিস অ্যালায়েন্স ...
রমজানে দাঁতের যত্ন
২০ জুলাই, ২০১৩
রাজ ডেন্টাল সেন্টার, কলাবাগান, ঢাকা রমজান মাস আমাদের জন্য পবিত্র ও রহমতের মাস। সঠিক ইবাদতের মাধ্যমে মুসলমানগণ এ মাসে তাদের গুনাহকে ক্ষমা করিয়ে নিতে পারে। পূর্ণ নিয়ম অনুযায়ী রোজা পালনের জন্য প্রয়োজন সুস্থ শরীর। আর দাঁত শরীরের অতি প্রয়োজনীয় অঙ্গ। অনেক সময় দেখা যায় দাঁতের তীব্র ব্যথা বা মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার কারণে রোজার নিয়মে ব্যাঘাত ঘটে। রমজানের সময় যা করণীয় ১. দাঁত পরিষ্কারে নরম, নমনীয়, ছোট ও গোলাকার মাথার টুথব্রাশ দিয়ে পর্যাপ্ত ফ্লোরাইডযুক্ত টুথপেষ্ট নিয়ে সেহরীর পর অবশ্যই ...
ডায়াবেটিস রোগীরা কি রোজা রাখবেন
১৩ জুলাই, ২০১৩
রোজা ইসলামী পাঁচটি স্তম্ভের অন্যতম। প্রত্যেক মুসলমান রোজা রাখবেন এটাই স্বাভাবিক। এর মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত। তাঁরা একদিকে যেমন রোজা রাখতে চান, অন্যদিকে আবার ডায়াবেটিস নিয়ে রোজা রাখা যাবে কিনা বা কিভাবে রাখতে হবে তা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দে ভোগেন। অনেকে ভয়ে রোজা রাখেন না, অনেকে আবার নিজের মত করে ওষুধ পরিবর্তন করেই রোজা রাখতে চান। মোট কথা ডায়াবেটিস রোগীর রোজা রাখা নিয়ে অনেক রোগী, এমনকি অনেক ডাক্তারও বিভ্রান্তিতে ভোগেন। অথচ আধুনিক চিকিত্সা বিজ্ঞানের অভাবনীয় উন্নতি ডায়াবেটিক রোগীদের ...
রমজানে খাদ্যাভ্যাস ও করণীয়
০৬ জুলাই, ২০১৩
পবিত্র মাহে রমজান আসন্ন। রমজান মাসে অনেকে অসুস্থতা সত্ত্বেও পবিত্র রোজা পালন করে থাকেন। এছাড়া অনেক সুস্থ ধর্মপ্রাণ মুসলমান রোজা পালনকালে অনেক সময় অসুস্থবোধ করেন। অনেকে আবার ইফতার ও সেহেরীতে আহারের সময় অপরিকল্পিতভাবে খাদ্য নির্বাচন করেন। এসব ক্ষেত্রে রোজাদারগণের সমস্যা হয়। তাই সকল রোজাদারগণ যাতে সুস্থভাবে রোজা পালন করতে পারেন তার জন্য দেশের বিশিষ্ট লিভার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মবিন খান ও বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা: এবিএম আব্দুল্লাহ রোজাদারগণের উদ্দেশ্যে নানা পরামর্শ দিয়েছেন। এসব পরামর্শ নিয়ে আজকের স্বাস্থ্যপাতার প্রধান দু'টি ...
প্রোস্টেট ক্যান্সার
২৯ জুন, ২০১৩
প্রোস্টেট ক্যান্সার হচ্ছে পুরুষের প্রোস্টেট গ্রন্থির ক্যান্সার। প্রোস্টেট গ্রন্থিটি যা মূত্রাশয়ের ঠিক নীচেই অবস্থিত এবং মূত্রনালী প্রোস্টেট গ্রন্থির ভিতর দিয়ে নীচের দিকে নেমে আসে। প্রোস্টেট হতে সেমিনাল ফ্লুয়িড তৈরী হয় এবং এই প্রস্টেট নির্যাস শুক্রের চলাচলে সহায়তা করে ও পুষ্টি প্রদান করে। প্রোস্টেট ক্যান্সার পুরুষের খুব সাধারণ ক্যান্সারের একটি যাতে যুক্তরাষ্টে প্রতি ছয়জনে একজন আক্রান্ত হয়। প্রাথমিক অবস্থায় প্রোস্টেট ক্যান্সার সনাক্তকরণ অতীব জরুরী কারণ এটা জীবনের প্রতি হুমকি স্বরূপ। সামপ্রতিক সময়ে প্রাথমিক অবস্থায় প্রোস্টেট ক্যান্সার নির্ণয় ও চিকিত্সায় অনেক ...
হূদ উপসর্গ যা অবহেলা করবেন না
২৯ জুন, ২০১৩
হূদরোগ যেমন আমেরিকায় এক নম্বর ঘাতক রোগ, আমেরিকার মোট মৃত্যুর হার ৪০%। তবে উন্নয়নশীল দেশেও হূদরোগ ক্রমে ক্রমে একটি প্রধান ঘাতক রোগ হিসেবে আসছে। কেন হূদরোগ এত ভয়ানক একটি কারণ হলো উপসর্গ দেখা দেবার পরও অনেক ধীরে সাড়া দেন রোগীরা, সাহায্যও চান দেরীতে। হঠাত্ বুকে প্রচণ্ড ব্যথা হলে অনেকে জানেন কার্ডিয়াক জরুরীতে ফোন করতে হবে, তবে হূদরোগের উপসর্গ বিচিত্র রকমের। সব সময় তীব্র বা স্পষ্ট ব্যথা হয়ে আসে না। ব্যক্তি ভেদে, জেন্ডার ভেদেও এর হয় ভিন্নতা। যেহেতু হার্টের এসব ...
ত্বক সমস্যা এবং পরিচর্যা
২২ জুন, ২০১৩
'দেহপট সনে নট সকলি হারায়' একটি কথা আছে। দেহের আবরণ ত্বক। ত্বকে কুঞ্চন রেখা পড়ন্ত বেলার লক্ষণ। কিন্তু একে আরো কিছুদিন মসৃণ ত্বক রাখার কৌশলও তো আছে। ত্বক সুরক্ষা দেয় শরীরকে, কিন্তু কেবল কি তাই? সুস্থ ত্বক সৌন্দর্যেরও চিহ্ন। প্রতিদিনের পছন্দ, আমরা যা খাই, আমাদের আসা যাওয়া, চলাচল, অনুভব সবই প্রভাব ফেলে ত্বকের উপর। চাই সন্দুর ত্বক খাদ্যের দিকে নজর দিন। প্রচুর ভিটামিন সি, খুব কম চর্বি ও শর্করা খাবার বুড়িয়ে গেলেও সুন্দর রাখে ত্বক। এন্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার যেমন- ...
টিনএজারদের ব্রণ সমস্যা
২২ জুন, ২০১৩
ব্রণ টিনএজারদের সচরাচর সমস্যা। ব্রণ বা একনি ৮০ শতাংশ টিনএজারের সমস্যা। মুখের ত্বকের সৌন্দর্যহানির জন্য ব্রণ দায়ী। ছেলেদের ব্রণ তীব্রতার দিক থেকে বেশি হলেও মেয়েদের ক্ষেত্রে সামাজিক কারণে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটা এক প্রকার বিড়ম্বনা। ত্বকের ভেতর অবস্থিত সেবাসিয়াস গ্রন্থি থেকে সেবাম নামক এক প্রকার তৈলাক্ত পদার্থ বের হয় এবং লোমকূপের গোড়া দিয়ে ত্বকে এসে যায়। সেবাম উত্পাদন বেড়ে গিয়ে এবং এর নির্গমনের পথ বন্ধ হলে ব্রণ সৃষ্টি হয়ে থাকে। প্রোপাইনো ব্যাকটেরিয়াম একনি হচ্ছে ব্রণের জীবাণুর নাম। এন্ড্রোজেন হরমোনের কারণে ...
আইডিয়াবাজরা আওয়াজ দিন
২২ জুন, ২০১৩
আশপাশে ঘটে যাওয়া কিংবা ঘটতে গিয়েও ঘটেনি এমন ঘটনা বা আজগুবি গল্প লিখে পাঠান। কার্টুনিস্ট হলে শুধু কাক-বক নয়, এঁকে ফেলুন গরু-ছাগলের ঠ্যাংসহ আরো অনেক কিছু। সম্ভব হলে এমন কার্টুন আঁকুন, যা দেখে গা দুলিয়ে হেসে উঠতে দরকার হবে না কোনো ক্যাপশনের। ডাকে কিংবা ghorardim@kalerkantho.com এই ঠিকানায় ই-মেইলে লেখা পাঠাতে পারেন। লেখা শেষে আপনার নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর যোগ করতে ভুলবেন না। ...
জন্ডিসঃ কি খাবেন না
১১ মে, ২০১৩
সহযোগী অধ্যাপক, লিভার বিভাগ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় জন্ডিস হয়েছে মনে করলেই মনে নানা অজানা আশঙ্কার উদ্ভব ঘটে। আর চারপাশের সবাই হয়ে উঠেন একেকজন বিশেষজ্ঞ। বিশেষ করে কি খেতে হবে আর কি খাওয়া যাবে না এই নিয়ে পরামর্শের যেন শেষ থাকে না। প্রতিদিন জন্ডিস রোগীদের চিকিত্সা করতে গিয়ে দেখতে পাচ্ছি রোগীরা তাদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে খুবই বিভ্রান্তিতে থাকে। বিশেষ করে লিভার বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলতে যেয়ে তাদের বিভ্রান্তি অনেক ক্ষেত্রেই বেড়ে যায়। কারণ জন্ডিস রোগীর পথ্যের ব্যাপারে আমাদের যে ...
হার্ট ফেইলুরঃ করণীয়
১১ মে, ২০১৩
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের দেশেও প্রতিনিয়ত হার্ট ফেইলুরের রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ধারণা করা হচ্ছে আগামী দশ থেকে বিশ বছর পর হূদরোগীদের সবচেয়ে বেশী সংখ্যক রোগী হার্ট ফেইলুরে আক্রান্ত হবে। কারণ হিসাবে ধরা হচ্ছে আধুনিক চিকিত্সার ফলে হূদরোগীগণ যদিও অকাল মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেন বিশেষ করে হূিপন্ডের রক্তনালীর রোগ থেকে তবে পরবর্তিতে তারাই হার্ট ফেইলুরে আক্রান্ত হতে পারেন। আমাদের দেশে হার্ট ফেইলুর চিকিত্সার জন্যে কোন বিশেষায়ীত হাসপাতাল এমন কি বড় বড় হাসপাতালগুলিতে হার্ট ফেইলুরের জন্যে কোন আলাদা ওয়ার্ড পর্যন্ত নেই। অথচ উন্নত বিশ্বে হার্ট ফেইলুর রোগীদের জন্য বিশেষায়ীত ওয়ার্ড এবং বিশেষজ্ঞ চিকিত্সক তৈরী হচ্ছে। হার্ট মানুষের সর্বশরীরে রক্ত প্রবাহ নিশ্চিত করে থাকে। হার্টের কাজ হচ্ছে রক্ত পাম্প করে রক্ত নালীতে সঞ্চালন করা, যার জন্য হার্টকে একটি বায়োলজিক্যাল পাম্প বলা হয়ে থাকে। কাজকর্মের তারতম্য ভেদে মানুষের শরীরে রক্তের প্রবাহের প্রয়োজনীয়তা কমবেশি হয়ে থাকে। হার্ট প্রতিমুহূর্তে প্রয়োজন অনুযায়ী সারা শরীরে রক্ত সঞ্চালণ করে থাকে। যদি কোন ...
শিশুর চোখের সমস্যায় করণীয়
০৪ মে, ২০১৩
জুনিয়র কনসালটেন্ট চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম। আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যত। ভবিষ্যত এই প্রজন্মের সুস্থতার উপর দেশও দশের এগিয়ে যাওয়া অনেকাংশে নির্ভরশীল। শারীরিক ও মানষিক সুস্থতার পাশা-পাশি চোখের সুস্থতাও সমান গুরুত্ব বহন করে। দৃষ্টিহীন শিশুকে অন্যের উপর নির্ভর করে সারাজীবন কাটাতে হয়। এতে দেশ দু'জন মানুষের পূর্ণাঙ্গ সেবা থেকে বঞ্চিত হয়। এছাড়াও পর নির্ভরশীলতার কারণে শিশু মানষিক ভাবেও বির্পযস্ত হয়ে পড়ে। দৃষ্টিস্বল্পতার কারণ ++জন্মগত ছানি ++পাওয়ার জনিত দৃষ্টিস্বল্পতা ++কর্ণিয়ার ঘা ++চোখে আঘাত ++চোখের ক্যান্সার (রেটিনোব্লাস্টমা) ...
চুলপড়া সমস্যা-৩১
০৪ মে, ২০১৩
আজকাল প্রচুর তরুণ-তরুণী ছেলে মেয়েরা আসছে চুলপড়া সমস্যা নিয়ে। একেবারে অবিশ্বাস্য যে স্কুলে পড়া ছেলে মেয়েরাও আছে চুলপড়া রোগীদের তালিকায়। ১৪/১৫ বছরের ছেলে-মেয়েদের চুলপড়া সমস্যা থাকলে তা অবশ্যই উদ্বেগের কারণ হবে এটা নি:সন্দেহে। আমি সব সময় বলে আসছি চুলপড়া কোন রোগ নয়। সাধারণত: যেসব কারণে চুল পড়ে তম্মধ্যে রয়েছে বংশগত, হরমোনাল সমস্যা, কনট্রাস্পেটিভ জাতীয় ওষুষ সেবন, এন্টিবায়োটিক, ইনফেকশন, মাথার ত্বকে প্রদাহ, খুসকি, প্রবল মানসিক চাপ, লবণাক্ত ও আয়রণযুক্ত পানি এবং আকষ্মিক ডায়েটিং ইত্যাদি চুলপড়ার অন্যতম কারণ। এছাড়া আমি সব সময় বলে থাকি চুলপড়ার কোন স্থায়ী সমাধান নেই। চুলপড়ার কারণ সনাক্ত করে যথাযথ চিকিত্সা দেয়া গেলে অবশ্যই চুলপড়া সমস্যার উন্নতি হয়। তবে আজকাল বেশীরভাগ ক্ষেত্রে রোগীরা চুলপড়া সমস্যার চিকিত্সার ক্ষেত্রে ভুল চিকিত্সার অথবা অপ্রয়োজনীয় চিকিত্সার শিকার হন। এছাড়া তথাকথিত কিছু হারবাল ও অ্যারোমা থেরাপিস্টদের পক্ষেও চুলপড়া সমস্যার চিকিত্সার নামে চলছে এক ধরণের অপচিকিত্সা। প্রতারণার আশ্রয় নেয় অনেকে। তাই চুলপড়ার ক্ষেত্রে বুঝে শুনে চিকিত্সা নেয়া উচিত। শতকরা ৯০/৯৫ ভাগ ক্ষেত্রে চুলের ...
দশটি বিব্রতকর সমস্যা
২৭ এপ্রিল, ২০১৩
বিব্রতকর স্বাস্থ্য সমস্যা অনেকেই এড়িয়ে যান। এ নিয়ে কথা বলতে লজ্জাবোধ করেন। মনে করো ঠিক হবেনা যে আপনি একা; অনেকেই আছেন। মাথায় খুশকি থেকে শুরু করে মুখে দুর্গন্ধ এমনকি শরীরে আঁচিল ও অনেক সমস্যা নিয়েই কথা বলতে চাইনা আমরা। পাছে লোকে কি বলে' সেই ভয়ে। আঁচিল, তিল সাধারণ আঁচিল দেখতে অসুন্দর। তবে সুসংবাদ হলো বেশিরভাগ হলো নিরীহ। তবে যদি ক্রমে ক্রমে এর আয়তন বাড়ে, রং বদলায় তাহলে ডাক্তারকে বলতে হবে। ভাইরাসের কারণে হয়। হতে পারে হাতে, পায়ে, আঙ্গুলে ও ...
এপিফোরা:চোখ দিয়ে পানি পড়া
২৭ মার্চ, ২০১৩
সুন্দর সুস্থ চোখ কার না কাম্য? কিন্তু সেই চোখ হতে কান্না ব্যতিত অনবরত পানি পড়তে থাকলে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। চোখ দিয়ে পানি পড়ার কারণ স্বাভাবিক চোখ সবসময় একটু ভেজা থাকে। অতিরিক্ত পানি চোখের ভেতরের কোনায় অবস্থিত নল (নেত্রনালী) দিয়ে নাকে চলে যায় এবং শোষিত হয়। কোন কারণে চোখে অতিরিক্ত পানি তৈরী হলে, অথবা নেত্রনালী বন্ধ হয়ে গেলে চোখের পানি উপচে পড়ে, একে লেক্রিমেশন বা এপিফোরা বলে। শিশুর জন্মের পর পর যদি নেত্রনালী বন্ধ থাকে, সেক্ষেত্রে চোখ হতে পানি ...
রক্তের অসুখ: হিমোফিলিয়া
২০ এপ্রিল, ২০১৩
হিমোফিলিয়া রক্তের এক বিশেষ রোগ। এই রোগে রক্তের জমাট বাধার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়। রক্ত জমাট বাধার প্রক্রিয়ায় কাজ করে রক্তের অনুচক্রিকা কোষ ছাড়াও আরো প্রায় ১৩টি ফ্যাক্টর। এদের মধ্যে আট ও নয় নম্বর ফ্যাক্টরে ঘাটতি দেখা দিলে রক্তের জমাট বাধায় সমস্যা দেখা দেয়। ঘাটতির মাত্রা অনুযায়ী প্রকাশ পায় রোগের তীব্রতা। এই ফ্যাক্টরগুলো যদি ৩০ শতাংশের নিচে নেমে যায় তাহলে রক্ত জমাট বাধার সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে। এমনকি এক পর্যায়ে শরীরের অভ্যন্তরে নিজে নিজেই রক্ত ক্ষরণ হতে শুরু করে। এ রোগে কেন হয় হিমোফিলিয়া ঘুমন্ত এক ধরণের জেনেটিক রোগ। শরীর এক্স- ক্রোমজমের বিশেষ একটি জিনের মিউটেশন থেকে এই রোগের সূত্রপাত হয়। মূলত: মেয়েরা এর বাহক। আর পুরুষরা এর শিকার। কারণ মেয়েদের শরীর থাকে দু'টি এক্স-ক্রোমজম আর পুরুষের একটি। তবে ক্ষেত্র বিশেষে মেয়েরাও এর শিকার হতে পারে। কেন হতে পারে তার ব্যাখ্যা জটিল, সেটা আপাতত থাক। দু'ধরণের হিমোফিলিয়া আছ। হিমোফিলিয়া-এ ও হিমোফিলিয়া-বি। ফ্যাক্টর আট-এর অভাব হলে তাকে হিমোফিলিয়া এ ...
চুলপড়া সমস্যা-৩০
২০ এপ্রিল, ২০১৩
চুলপড়ার নানা কারণ রয়েছে। এমনকি প্রবল মানসিক চাপ থেকেও চুল পড়তে পারে। আমি এর আগে এন্ড্রোজেনেটিক এলোপেসিয়া নিয়ে খানিকটা আলোকপাত করেছি। আজ আমরা মহিলাদের চুল কেন পড়ে এ নিয়ে আলোচনা করবো। এন্ড্রোজেনেটিক এলোপেসিয়া বা হরমোনাল এলোপেসিয়া পুরুষ ও মহিলা উভয়ের হতে পারে। সাধারণত: বয়স যখন ২০ এর কোঠায় তখন এই বয়সের শতকরা ২০ ভাগ নারী-পুরুষের চুলপড়া শুরু হয় এবং প্রতি ১০ বছরের মধ্যে অতিরিক্ত আরও ১০ ভাগ চুলপড়তে থাকে। তবে সব কিছুই বিজ্ঞানের নিয়মে ঘটেনা। অনেক ক্ষেত্রে কম বয়সেও ...
গর্ভাবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ অবহেলা করবেন না
২০ এপ্রিল, ২০১৩
গর্ভাবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ থেকে পরবর্তীতে হার্ট ও কিডনির সমস্যার ঝুঁকি অত্যন্ত বেশী। কানাডিয়ান মেডিক্যাল এসোসিয়েশন জার্নালে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞগণ উল্লেখ করেছেন গর্ভাবস্থায় শতকরা ৫ থেকে ১০ ভাগ মহিলাগণ উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হন। এ সময় গর্ভবতী মহিলার রক্তচাপ ১৪০/৯০ মিমি: অব মারকারির চেয়ে বেড়ে যায়। এই অবস্থাকে বলা হয় প্রি-একলামশিয়া। আর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে প্রি-একলামশিয়া বা একলামশিয়া পৃথিবীতে মাতৃমৃত্যুর অন্যতম প্রধান কারণ। প্রি-একলামশিয়ার লক্ষণ হচ্ছে ইউরিনে প্রটিন নির্গত হওয়া এবং উচ্চ রক্তচাপ। তাইওয়ানে পরিচালিত গবেষণায় বিশেষজ্ঞগণ দেখেছেন গর্ভাবস্থায় যাদের উচ্চ রক্তচাপ ছিল তাদের শতকরা ১২ দশমিক ৪ ভাগের কিডনির সমস্যা বা কিডনি অকেজো হয়েছে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী। তাই গর্ভাবস্থায় কোন ভাবেই উচ্চ রক্তচাপ অবহলো করা উচিত নয়। এন্টিনেটাল চেকআপ-এর সময় বা সন্তান আগমনের পর থেকে যে সব স্বাভাবিক চেকআপ করা হয় তখন অবশ্যই রুটিন পরীক্ষার পাশাপাশি ইউরিন, উচ্চ রক্তচাপ নিয়মিত পরীক্ষা করা উচিত। গর্ভকালীন প্রাথমিক অবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ সনাক্ত হলে এবং যথাযথ চিকিত্সা নেয়া গেলে ...
লেখা আহ্বান
২০ এপ্রিল, ২০১৩
দৈনিক ইত্তেফাকেরস্বাস্থ্য পাতায় দেশের বিভিন্ন খ্যাতিমান চিকিত্সকগণ লিখে থাকেন। যে কোন রোগ-ব্যাধি, কেস হিস্ট্রি, অপারেশন, খাদ্য-পুষ্টি, ব্যায়াম, মজার মজার হেলথ টিপস ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখতে পারেন। নবীন চিকিত্সকরাও লিখতে পারেন। ই-মেইলেও লেখা পাঠানো যাবে। লেখকের রঙিন ছবি ও পূর্ণ ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিতে হবে। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: বিভাগীয় সম্পাদক, স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ই-মেইল: ittefaq_health@yahoo.com ...
কণ্ঠ সুস্থ রাখবেন কিভাবে
১৩ এপ্রিল, ২০১৩
রতি বত্সর ১৬ এপ্রিল বিশ্ব কণ্ঠ দিবস পালন করা হয়। বিগত ছয় বত্সর ধরে ২০০৮ সাল থেকে বাংলাদেশে বিশ্ব কণ্ঠ দিবস উদযাপন করা হয়। অ্যামেরিকান ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ডেফনেস এন্ড কমিউনিকেশনের সূত্র মতে ৭.৫ মিলিয়ন সব বয়সের জনগণ কোন না কোন কণ্ঠস্বর জনিত সমস্যায় ভুগছে। আমরা কণ্ঠস্বর সম্পর্কে সচেতন নই এবং ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে চিকিত্সকের শরণাপন্ন হই। পারস্পারিক যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম হলো কণ্ঠ বা কথা বলা। বিশ্ব কণ্ঠ দিবসের উদ্দেশ্য হচ্ছে কণ্ঠ ও কণ্ঠনালীর সমস্যা এবং সেই সাথে কিভাবে ...
শিশুর পেটে ব্যথা মানেই ক্রিমি নয়
১০ এপ্রিল, ২০১৩
শিশুদের পুষ্টিহীনতার জন্য কৃমি অনেকাংশে দায়ী। কৃমির সংক্রমণ হলে আপনি সন্তানকে যাই খাওয়ান না কেন তার একটা বড় অংশ কৃমির পেটে চলে যাবে। তবে পেটে ব্যথা মানেই কিন্তু ক্রিমি নয়। দাঁত কটমট করা, লালা পড়া ইত্যাদি হলেই যে ক্রিমি হবে তা নয়। একজন ডাক্তারই ক্রিমি ভালো শনাক্ত করতে পারবেন। তবে লক্ষণগুলো জানা থাকলে আপনিও লাভবান হবেন। কারণ যত আগে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার সন্তানের জন্য ততই মঙ্গল । কিভাবে বুঝবেন ক্রিমির সংক্রমণ বিভিন্ন জাতের কৃমি শিশুদের শরীরে নানা বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে। শিশুদের কৃমির লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে-খাওয়ার অরুচি, আয়রণের ঘাটতি ও রক্তশূন্যতার জন্য দুর্বলতা, বৃদ্ধি ব্যাহত হওয়া, এবং অপুষ্টিতে ভোগা, পেট ফাঁপা, ডায়রিয়া। কৃমির কারণে অ্যালার্জি, চুলকানি, শ্বাসকষ্ট, কফ-কাশি হতে পারে। ...
লেখা আহ্বান
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
দৈনিক ইত্তেফাকেরস্বাস্থ্য পাতায় দেশের বিভিন্ন খ্যাতিমান চিকিত্সকগণ লিখে থাকেন। যে কোন রোগ-ব্যাধি, কেস হিস্ট্রি, অপারেশন, খাদ্য-পুষ্টি, ব্যায়াম, মজার মজার হেলথ টিপস ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখতে পারেন। নবীন চিকিত্সকরাও লিখতে পারেন। ই-মেইলেও লেখা পাঠানো যাবে। লেখকের রঙিন ছবি ও পূর্ণ ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিতে হবে। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: বিভাগীয় সম্পাদক, স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ই-মেইল: ittefaq_health@yahoo.com ...
পারকিনসন্স রোগের সাথে পথচলা
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
অধ্যাপক ডা:মো:আশরাফ আলী নিউরোলজি বিভাগ ল্যাবএইড হাসপাতাল পারকিনসন্স রোগ মস্তিষ্কের একটা ক্ষয়জনিত রোগ। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে এ্যালঝেইমারসের পরেই পারকিনসন্স রোগ মস্তিষ্কের দ্বিতীয় ক্ষয়জনিত রোগ। মস্তিষ্কের ক্ষয়জনিত রোগে স্নায়ুকোষগুলো স্বাভাবিকের চেয়ে আগেই মারা যায় এবং এগুলোর প্রতিস্থাপন হয় না। পারকিনসন্স রোগ সাধারণত: ৬০ বছর বয়সের পরে দেখা দেয়। তবে ৬০ বছর বয়সের নীচেও পারকিনসন্স রোগ দেখা দিতে পারে। সেগুলো সাধারণত: বংশগত কারণে হয়, তবে তার সংখ্যা খুব কম। ...
লেখা আহ্বান
৩০ মার্চ, ২০১৩
দৈনিক ইত্তেফাকেরস্বাস্থ্য পাতায় দেশের বিভিন্ন খ্যাতিমান চিকিত্সকগণ লিখে থাকেন। যে কোন রোগ-ব্যাধি, কেস হিস্ট্রি, অপারেশন, খাদ্য-পুষ্টি, ব্যায়াম, মজার মজার হেলথ টিপস ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখতে পারেন। নবীন চিকিত্সকরাও লিখতে পারেন। ই-মেইলেও লেখা পাঠানো যাবে। লেখকের রঙিন ছবি ও পূর্ণ ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিতে হবে। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: বিভাগীয় সম্পাদক, স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ই-মেইল: ittefaq_health@yahoo.com ...
পাকস্থলী সম্বন্ধে যা জানা প্রয়োজন
৩০ মার্চ, ২০১৩
অনেক সময় প্রিয় খাবার খাওয়ার পরও পেট জ্বলা, পেট গুলিয়ে উঠা, পেট ফেঁপে উঠা, পেটে গ্যাস এসব অস্বস্তি, অনেক সময় অচেনা মানুষের সামনে এলিভেটরে বিব্রত হওয়া পাকস্থলীকে এজন্য দায়ী করা যেতেই পারে। বিশেষজ্ঞরা বলেন অনেকেই পাকস্থলী, পারকনল, পরিপাক এসব সম্বন্ধে জানেন কম, কারণ হয়ত পেটের এসব সমস্যা সমাধানে বেশ দুরূহ। পাকস্থলীর স্বাস্থ্য সম্বন্ধে অনেক জনশ্রুতি, অনেক ভূল ধারণা রয়েছে। এজন্য কিছু সমস্যা মোকাবেলায় এত পারঙ্গম হন না অনেকেই। পাকতন্ত্র বিশেষজ্ঞরা বলেন, অনেক সময় যেসব সমস্যা বেশি ভীতিকর, জটিল ও ...
চোখে যদি ঘুম না আসে
২ মার্চ, ২০১৩
নিদ্রাহীনতা খুবই অস্বস্তিকর এক অবস্থা। দিনের পরে নেমে আসে রাত, সেই রাতে প্রকৃতিও বিশ্রাম নেয়, নিঝুম হয়ে পড়ে। এটাই স্বাভাবিক। সৃষ্টির আদিকাল থেকেই এ রকম চলে আসছে এবং চলবে। মানুষও বিশ্রাম নেবে, শান্তিময় ঘুমে ডুবে যাবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বাস্তব কথা হলো অনেকেই ঘুমোতে পারে না। ঘন্টার পর ঘন্টা বিছানায় সময় কেটে যায়, চোখে ঘুম আসে না। শান্তিময়, সুন্দর ঘুম এক প্রাকৃতিক ব্যবস্থা। ঘুমের মাধ্যমে আপনার শরীর বিশ্রাম পায়, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে এবং শারীরিক বৃদ্ধি ঘটে ও ...
ফিটনেস সেন্টারথেকে জীবানুছড়ায়
২ মার্চ, ২০১৩
সেন্টার বা সুইমিংপুল রোগ-জীবানু সংক্রমণের একটি অন্যতম মাধ্যম। শরীর সুস্থতার জন্য জিমে গিয়ে আপনি আক্রান্ত হতে পারেন নানা ক্ষতিকর ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়াবাহিত রোগে। তাই জিম নির্বাচনের ক্ষেত্রে এবং জিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে হাইজিন বা পরিচ্ছন্নতার বিষয়টি বিবেচনায় আনার সুপারিশ করেছেন কানাডার অটোয়ার জীবানুবিদ জেসন টেট্রো। গবেষণায় বিশেষজ্ঞগণ দেখতে পেয়েছেন, ফিটনেস সেন্টারের ব্যবহূত বিভিন্ন উপকরণ ইয়োগম্যাটস, বোতলস, পানির পাত্র থেকে ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণসহ পেটেরপীড়াসহ বিভিন্ন চর্মরোগ হতে পারে। গবেষণায় দেখা - ...
হৃদরোগ:জেনে নিন ১২ উপসর্গ
২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
হৃদরোগ যেমন আমেরিকায় এক নম্বর ঘাতক রোগ, আমেরিকার মোট মৃত্যুর হার ৪০%। তবে উন্নয়নশীল দেশেও হূদরোগ ক্রমে ক্রমে একটি প্রধান ঘাতক রোগ হিসেবে আসছে। কেন হৃদরোগ এত ভয়ানক একটি কারণ হলো উপসর্গ দেখা দেবার পরও অনেক ধীরে সাড়া দেন রোগীরা, সাহায্যও চান দেরীতে। হঠাত্ বুকে প্রচণ্ড ব্যথা হলে অনেকে জানেন কার্ডিয়াক জরুরীতে ফোন করতে হবে, তবে হূদরোগের উপসর্গ বিচিত্র রকমের। সব সময় তীব্র বা স্পষ্ট ব্যথা হয়ে আসে না। ব্যক্তি ভেদে, জেন্ডার ভেদেও এর হয় ভিন্নতা। যেহেতু হার্টের এসব ...
প্রস্টেট গ্রন্থির সমস্যা
২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
প্রস্টেট পুরুষদের ইন্টারনাল অর্গানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। এটা না থাকলে মানুষের জীবন শুধু ঝুঁকিপূর্ণ হয় তাই নয়, পুরুষের সুখময় দাম্পত্য জীবনে প্রোষ্টেট-এর রয়েছে এক অনবদ্য ভূমিকা। এই প্রস্টেট- এর নানা সমস্যা, নানা রোগ রয়েছে। বিশেষকরে চল্লিশোর্ধ পুরুষের বছরে অন্ততঃ একবার অন্যান্য স্বাস্থ্য পরীক্ষার পাশাপাশি প্রস্টেট-পরীক্ষা করানো উচিত। প্রস্টেট গ্রন্থি বেড়ে গিয়ে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। প্রস্টেটের সমস্যাকে হালকা করে দেখা উচিত্ নয়। প্রস্টেট গ্রন্থির যত্ন নিন, সুস্থ থাকুন। প্রস্টেট গ্রন্থি পুরুষের মূত্রথলির সামান্য নীচে অবস্থিত এক টুকরো মাংশপিন্ড ...
ডায়াবেটিস: যত্ন নিবেন কিভাবে
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ডায়াবেটিস নীরব ঘাতক হিসেবে পরিচিত এখন। শরীরকে আক্রমণ করে ধীরে ধীরে। টাইপ-১ ডায়াবেটিস তরুণদের মধ্যে বেশি, তবে বেশ বিরল। প্রচণ্ড পিপাসা ও বারবার প্রস্রাব উপসর্গ থাকতে পারে। টাইপ-২ ডায়াবেটিস হলে উপসর্গ নাও থাকতে পারে। এজন্যই রোগীরা চেকআপ করতে দেরী করে ফেলতে পারেন। যার ফলে ইতিমধ্যে হয়ত জটিলতার সূচনা হয়ে গেছে। কারো ডায়াবেটিস আছে কিনা তা জানার সবচেয়ে নিশ্চিত উপায় হলো রক্তের গ্লুকোজ মেপে দেখা। রক্তের গ্লুকোজ মেপে দেখা না হলে ডায়াবেটিস রোগীর আহার ও পানীয় পান ও বিপজ্জনক হয়ে ...
শিশুর দাঁত ও মাড়ির যত্ন
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ছেলে বেলা থেকেই দাঁত ও মাড়ির যথাযত যত্ন একান্ত জরুরী। এখানে সে বিষয়ে কিছু দরকারি তথ্য নিয়েই আমার এই লেখা। মা-বাবার দাঁত ও মাড়ির যত্ন মা-বাবা দাঁতের যথাযথ যত্ন না নিলে তাদের মাধ্যমে শিশুর দাঁতে সংক্রমণ হতে পারে। তাদের দাঁত ও মাড়িতে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়ায় শিশুর দাঁতও আক্রান্ত হতে পারে। তাই বাবা-মা দু'জনেরই বিজ্ঞানসম্মত পরামর্শ মেনে চলা উচিত্। ++সিগারেট বা নিকোটিনযুক্ত যে কোন নেশার কাছ থেকে দুরে থাকতে হবে। সিগারেট ছেড়ে দিতে পারলে ভালই হয়। ++বাবা-মা দ'জনেরই বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি ...
স্লিম থাকতে টমেটো
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ছিপছিপে থাকতে রোজ টমেটো খাওয়া ভালো। টমেটো ভিটামিন-সি ভরপুর। হূিপণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। টমেটো বা টমেটোর জুস খেলে কয়েক সপ্তাহের ভেতর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে। টমেটো খেলে বাড়তি ওজন লাঘব হয় বলে বিশেষজ্ঞগণ দাবি করেন। কারণ টমেটোর এমন কিছু যৌগ আছে যেগুলি খিদে বাড়ানোর হরমোনের মাত্রায় পরিবর্তন ঘটায়। খাই খাই ভাবকে দূরে রাখে। ফলে বাড়তি খাওয়ার ইচ্ছা কমে। যদিও এর পেছনে কোন উপাদান সক্রিয় জানা যায় নি। অনুমান লাইকোশেন, যার জন্য টমোটো লাল দেখায় সেই উপাদানের এখানে ভূমিকা আছে। ...
ভালোবাসার বর্ণিল সাজ
১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ভালোবাসা দিবস সবার জন্যই আনন্দের একটি দিন। এই দিনে মনটাও থাকে রঙিন। ফাগুন ও ভালোবাসার রঙে নিজেকে বর্ণিল সাজে সাজানো চাই পোশাক ও অনুষঙ্গে। ভালোবাসা দিবসের বর্ণিল সাজ নিয়ে আমাদের এই আয়োজন। ফ্যাশন ডিজাইনার ও রূপ বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলে লিখেছেন খালেদ আহমেদ ফ্যাশন হলো সময়ের বাহন। তাই সময়কে ধরে রাখতে আপনার পোশাকের স্টাইল হওয়া চাই সময়োপযোগী। তাই ভালোবাসার দিনে পোশাক ও অনুষঙ্গে ফুটিয়ে তুলতে হবে সেই ভাবেই। ফ্যাশন হাউজ বিবিয়ানা কর্ণধার ও ফ্যাশন ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, 'ভালোবাসার ...
বাতরোগে চোখের সমস্যা
৯ ফেব্রয়ারি, ২০১৩
ডাঃ শামস মোহাম্মদ নোমান চক্ষু বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, পাহাড়তলী, চট্টগ্রামডাঃ শামস মোহাম্মদ নোমান চক্ষু বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, পাহাড়তলী, চট্টগ্রামবাতরোগ হল হাঁড় এবং মাংশপেশী সম্পর্কিত রোগ। এর সাথে আবার চোখের সম্পর্ক কোথায়? ভাবতেই অবাক লাগছে তাই না? শরীরের এমন অনেক রোগ আছে যাতে চোখের সমস্যাও একটা প্রধান ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। যে সব বাত রোগে চোখের সমস্যা হয় ++রিউমাটয়েড আরথ্রাইটিস:এতে সাধারণত হাড় এবং পায়ের ছোট জয়েন্টে প্রদাহ হয়, তার সাথে চোখের শুষ্কতা, স্কেরাইটিস ...
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করবেন কিভাবে
২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা ডায়াবেটিস বাড়ছে তবে প্রতিরোধযোগ্য রোগও বটে। আবার ডায়াবেটিস হবার আগের অবস্থাও যে আজকাল বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে তাও ঠিক। প্রি-ডায়াবেটিস আমেরিকাতে ২৫% লোকের রয়েছে প্রি-ডায়াবেটিস। এদেশেও বেশ দেখা যাচ্ছে এ অবস্থা। রক্তের সুগার স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তবে ডায়াবেটিস হবার মত পর্যায়ে পৌঁছায়নি। এরকম থাকলে দশ বছরের মধ্যে পুরোপুরি ডায়াবেটিস হয়ে যায়। তবে মাত্র ৪% লোক এ সম্বন্ধে অবহিত। কষ্টের কথা হলো যারাও অবহিত এদের মধ্যে অর্ধেকেরও কম লোক শরীরের ওজন বেশি থাকলে কমিয়ে, কম খেয়ে, ...
শ্যাম্পু করার সাথে চুলপড়ার সম্পর্ক নেই
২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
আমি চুলপড়া সমস্যার একজন অতি ক্ষুদ্র বিশেজ্ঞ হিসেবে সব সময় অত্যন্ত দৃঢ়ভাবে বলে আসছি চুলপড়া কোন রোগ নয় এবং শরীরের নানা সমস্যা ও পরিবেশগত কারণে চুলপড়তে পারে। এসব কারণের মধ্যে রয়েছে শরীরের ইন্টারনাল নানা সমস্যা, হরমোনের সমস্যা, বংশগত কারণ, ক্র্যাশ ডায়েটিং, ইনফেকশন, হাই এন্টিবায়োটিক, দীর্ঘ মেয়াদী মানসিক চাপ সহ নানা কারণে চুলপড়তে পারে। তবে চুলপড়া সমস্যা নিয়ে আমাদের মধ্যে নানা কুসংস্কার বা ভুল ধারণা রয়েছে। এসব কুসংস্কার বা ভুল ধারণার মধ্যে অনেকে মনে করেন বারবার শ্যাম্পু করলে চুল পড়ে। ...
অস্ত্রোপচারের জন্য নিজ প্রস্তুতি
৫ জানুয়ারি ২০১৩
সার্জারি হবে, এর মানে সব জেনে নেয়া ভালো। কি সার্জারি হবে তা জেনে নিতে হবে। যে রোগী যত বেশি এসব ব্যাপারে অবহিত থাকেন তাদের সন্তুষ্টি হয় তত বেশি। মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে সাক্ষাত্ করতে পারেন রোগী। টিমে থাকেন সার্জন, যিনি সার্জারি করবেন, আর এনেসথেশিওলজিস্ট যিনি সার্জারির সময় রোগীর স্বস্তি ও পরিচর্যা তদারকি করবেন। সবকিছু নিয়ে তাদের প্রশ্ন করুন। এতে ঝুঁকি কতটুকু, জটিলতা কি হতে পারে, সারতে কত সময় লাগতে পারে এসব পদ্ধতি সম্বন্ধে অনেক হাসপাতালে ক্লাসও হয়। ভূলভ্রান্তি যাতে না ...
সাইনুসাইটিস: কারণ ও প্রতিকার
৫ জানুয়ারি ২০১৩
সাইনুসাইটিস অতি পরিচিত একটি সমস্যা। মুখমন্ডল তথা মাখার খুলির চারিদিকে চার জোড়া বায়ুভর্তি কুঠুরি থাকে। এই কুঠুরিগুলোকেই বলা হয় সাইনাস। সাইনাসগুলোর বিভিন্ন নাম আছে। সাইনাসের অভ্যন্তরীন আবরণ হিসাবে থাকে একধরণের ঝিল্লি। এই ঝিল্লির প্রদাহকেই বলা হয় সাইনোসাইটিস। সাইনোসাইটিস সাধারণত ঠাণ্ডা ও ভেজা পরিবেশ, ধোঁয়া, ধূলোবালি ইত্যাদি পরিবেশ সাইনোসাইটস হওয়ার জন্য উপযুক্ত পরিবেশ হিসাবে বিবেচিত। মাথার খুলিতে অবস্থিত এই সাইনাসের বিভিন্ন কাজ রয়েছে। বলা হয়ে থাকে এইসব সাইনাস নাকের মধ্যস্থিত বাতাসকে উষ্ণ ও আর্দ্র রাখে। মাথাকে হালকা রাখে এবং খুলির বিভিন্ন অঙ্গকে রক্ষা করে। সাইনোসাইটিস অনেক কারণে হয়ে থাকে। সাধারণভাবে যে সব কারণে হতে পারে সেগুলো হচ্ছে-নাকের ইনফেকশন, নাকের প্যাক, নাকের বাঁকা হাড়, নাকের মাংস ফুলে বড় হয়ে ...
শ্বাসকষ্ট থেকে হূদরোগ
৮ ডিসেম্বর ২০১২
যক্ষ্মা আমাদের দেহের প্রতিটি অঙ্গে এবং অংশে হতে পারে। আমাদের শরীরের এমন কোন অংশ নেই যা যক্ষ্মার ছোঁবল থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে পারে। আমরা প্রায় সকলেই জানি যে, যক্ষ্মা সাধারণত ফুসফুসেই হয়ে থাকে। তখন রোগীর জ্বর, কাশি, বুকে ব্যথা, ওজন কমে যাওয়া, ক্ষুধামন্দা, রাতে ঘাম হতে দেখা যায়। আবার অনেকে গ্ল্যান্ড টিবির নামও হয়তো শুনেছেন। যেখানে ঘাড়ের পাশে বড় বড় গ্রন্থি ফুলে উঠে। এখানে একটা কথা বলে রাখা ভালো যে, আজকাল প্রচুর সংখ্যক গ্ল্যান্ড টিবির রোগী দেখা যাচ্ছে যা আগে কখনও দেখা যায়নি। আমার অভিজ্ঞতায় আমি দেখেছি যে, ১৫ থেকে ২৫ বছর বয়সের মেয়েদের মধ্যে গ্ল্যান্ড টিবি হতে বেশী দেখা যায়। যদিও যে কোন বয়সে এবং পুরুষের মাঝেও গ্ল্যান্ড টিবি অবশ্যই হতে পারে। নাড়িতে টিবি হয়েছে এমন এক মেয়ের ঘটনা এখানে উল্লেখ করছি। মেয়েটির বয়স ২২ বছর। আড়াই বছর আগে বিয়ে হয়েছে। দেড় বছরের একটি কন্যাসন্তানও রয়েছে তার। স্বামী বিদেশে থাকে। প্রায় ১ বছর ধরে মেয়েটি বমি করে। চিকিত্সকগণ ...
থাইরয়েড সমস্যায় করণীয়
১২ জুলাই, ২০১৪
থাইরয়েড গ্রন্থিটি শরীরের বিপাকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, সন্দেহ নাই। এর সমস্যাও বেশি হয় নারীদের, পুরুষের তুলনায়। থাইরয়েডের লঘুক্রিয়া বা 'হাইপোথাইরয়েডিজম' রোগে পুরুষের চেয়ে ৫০ গুণ বেশি ভোগেন নারীরা। কোনও কোনও বিজ্ঞানীর ধারণা, স্ত্রী হরমোন ইস্ট্রোজেন শরীরের অটোইমুন সমস্যা, এমনকি থাইরয়েডের সমস ্যাকে উসেক দেয়। তবে এটাও ঠিক কেন যে মহিলাদের থাইরয়েড সমস্যা হয় তা অস্পষ্ট। দেহের বিপাককে নিয়ন্ত্রণ করা হলো থাইরয়েডের মূল কাজ। গলদেশে অবস্থিত এই ছোট গ্রন্থিটি তৈরি করে যে হরমোন তা নিয়ন্ত্রণ করে দেহ বিপাক বা Metabolisin আমাদের ...
রোজায় স্বাস্থ্যসম্মত সেহরি ও ইফতার
১২ জুলাই, ২০১৪
রমজান মাস ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত পবিত্র মাস। এ সময় সংযম সাধনার পাশাপাশি সুস্থ ব্যক্তিরা অনেকেই রোজা রাখেন, যারা অসুস্থ তাদের অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেন রোজা রাখার- কিন্তু রোজা রাখা উচিত হবে কি না তা বুঝে উঠতে পারেন না। কেউ কেউ রোজা রাখার বিপক্ষে অজুহাত সৃষ্টি করেন এই বলে যে, রোজা রাখলে অ্যাসিডিটি বেড়ে যাবে- দেখা দেবে পেপটিক আলসার। আবার অনেকে ওষুধ খেতে অসুবিধা হবে এমন কথাও বলে থাকেন। যারা অত্যধিক মোটা তারা স্লিম হওয়ার আশায় রোজা রাখতে উত্সুক হন। কিন্তু যারা রোগা তারা রোজা রাখার ব্যাপারে ততটা উত্সাহী না হয়ে হাজার ব্যাখ্যা দাঁড় করান। প্রকৃতপক্ষে রোজা নিয়ে মানুষের স্বাস্থ্য ভাবনার শেষ নেই। রোজায় সেহরি, ইফতারি ও শারীরিক সুস্থতা নিয়ে মানুষের মনে এ সময়ে থাকে অনেক জিজ্ঞাসা। রোজায় সেহরি অত্যন্ত দুঃখজনক যে, আমাদের দেশে মানুষের মধ্যে রমজানে যে খাদ্যাভ্যাস লক্ষ করা যায়, তা পুরোপুরি স্বাস্থ্যসম্মত নয়। এ সময়ে খাবারের প্রধান পর্যায় দু'টি সেহরি ও ইফতার। লক্ষ করলে দেখা যাবে, ...
রোজাদারগণের জন্য ২০ পরামর্শ
২৮ জুন, ২০১৪
পবিত্র রমজান মাস আসলে ছোট বড় নারী পুরুষ ভেদে প্রায় সকল মুমিন মুসলমান রোজা রাখেন। এক্ষেত্রে দীর্ঘ ১১ মাসের স্বাভাবিক আহার, নিদ্রা, নিয়ম-নীতির কিছুটা ব্যত্যায় ঘটে। এরপরও একজন রোজাদার কিছু পরামর্শ অনুসরণ করলে থাকতে পারেন সুস্থ, সবল এবং রাখতে পারেন সৃষ্টিকর্তার বড় নিয়ামত রোজা। কিভাবে রোজা রেখে সারাটি মাস সুস্থ থাকবেন এই নিয়ে বিভিন্ন তথ্য সূত্রের আলোকে রোজাদারদের প্রতি আমাদের পরামর্শ। ১. রমজানে যাদের চিকিত্সা নিতে হয় তারা এবং যারা সুস্থ থেকে রোজা পালন করতে চান তাদের ক্ষেত্রে প্রয়োজন ...
রোজার শারীরিক লাভ
২৮ জুন, ২০১৪
আমরা জানি, আমরা যে খাবার খাই তার মধ্যে অন্যতম প্রধান তিনটি উপাদান হল শর্করা (কার্বোহাইড্রেট), আমিষ (প্রোটিন) এবং চর্বি (লিপিড)। আমাদের খাদ্যনালীতে এ উপাদানগুলো ভেঙ্গে যথাক্রমে গ্লুকোজ, এমাইনো এসিড এবং ফ্যাটি এসিড ও গ্লিসারল হিসেবে রক্তে প্রবেশ করে। শরীরের বিভিন্ন টিস্যু গ্লুকোজকে শক্তি উত্পাদনে ব্যয় করে, এমাইনো এসিড শরীরের গাঠনিক প্রোটিনের প্রয়োজন মেটায় এবং ফ্যাটি এসিড শক্তির উত্স হিসেবে ফ্যাট সেলগুলোতে সঞ্চিত হয়। লিভার ও ঐচ্ছিক মাংসপেশী রক্তে অতিরিক্ত গ্লুকোজ গ্রহণ করে গ্লাইকোজেন হিসেবে সঞ্চিত রাখে। এছাড়াও লিভার এমাইনো এসিড ও ফ্যাটি এসিড থেকে গ্লুকোজ তৈরী করতে পারে। একজন ব্যক্তি যখন রোজা রাখেন তখন সেহরীর কয়েক ঘন্টা পর শরীরের গ্লুকোজের পরিমাণ নির্দিষ্ট মাত্রার নিচে নেমে আসে। এমতাবস্থায় মস্তিষ্কের কাজের জন্য রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা জরুরী। ফলে শরীরের ইনসুলিন ও গ্লুকাগন নামক হরমোনদ্ব্বয়ের তুলনামূলক ঘনত্বের পরিবর্তন আসে। এ পরিবর্তনের সিগনাল পেয়ে লিভার গ্লাইকোজেন ভাঙ্গতে শুরু করে। এ প্রক্রিয়ায় গ্লুকোজ সরবরাহ চলে প্রায় ৮ থেকে ১০ ঘন্টা। ইতিমধ্যে গ্লুকোনিওজেনেসিস নামক ...
জয়েন্ট পেইনে ফিজিওথেরাপি
২১ জুন, ২০১৪
দুই বা তোতোধিক হাড়ের সাহায্যে জয়েন্ট গঠিত। ইহা আমাদের শরীরের ভার বহন করে ও চলাচলে সহায়তা করে। যদি কোন কারণে জয়েন্টে রোগ বা আঘা প্রাপ্ত হলে প্রচুর ব্যথা অনুভব হয়, এমনকি নড়াচড়ায়তেও সমস্যা হয়। এক জাতীয় জরীপে দেখা গেছে যে, বিগত ৩০ দিনের মধ্যে এক তৃতীয়াংশ প্রাপ্ত বয়স্ক লোক জয়েন্টের ব্যথায় ভোগে থাকেন। এ ব্যথা শরীরের যে কোন জয়েন্টে হতে পারে। যেমন- হাঁটু, গোড়ালী, কাধ, কোমড় ইত্যাদি। বয়সের সাথে সাথে এ ব্যথা আরও তীব্রতর হয়। এ ব্যথা বিভিন্ন কারণে ...
কাঁধের ব্যথায় ফিজিওথেরাপি
০৭ জুন, ২০১৪
কাঁধ আমাদের শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। বর্তমানে কাঁধে ব্যথা একটি সাধারণ সমস্যা হিসেবে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন কারণে কাঁধে ব্যথা হয়ে থাকে। কি কারণে কাঁধে ব্যথা হচ্ছে তার সঠিক কারণ ও রোগ নির্ণয় করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সঠিক কারণ জানা থাকলে রোগীকে সঠিকভাবে চিকিত্সা দেয়া সহজ হয়। কাঁধে ব্যথার কিছু গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলো এখানে উল্লেখ করা হলো। ১. ফোজেন সোল্ডার অথ্যাত্ কাঁধের জয়েন্ট বা সন্ধি শক্ত হয়ে যাওয়া বা মুভমেন্ট কমে যাওয়া। ২. মাংসপেশী শক্ত হয়ে যাওয়া। ৩. সোল্ডার ডিসলোকেশন বা কাঁধের হাড় ...
পানির আশ্চার্য গুণ
৩১ মে, ২০১৪
ক্ষীণতনু থাকতে চান, শরীরের বাড়তি ওজন ঝেড়ে ফেলতে চান তবে বেশি করে পানি পান করুন। পানি দেহ বিপাককে উসেক দেয় এবং পেটে আনে ভরাট ভাব। ক্যালোরি ভরপুর পানির বদলে শুধুই বিশুদ্ধ পানি পান করুন। আর বেলার আহারের আগে আগে পেট ভর্তি পানি খান। বেশি পানি পান করলে বিপাক হয় উজ্জীবিত, আর গ্রামের পানি সাধারণত: ঠান্ডা থাকলে বিপাক আরও উসেক উঠে। সেই পানিকে গরম করে তুলতে শরীরকে আরও তেতে উঠতে হয়, এই প্রক্রিয়ায় শরীরের বাড়তি ক্যালোরি পোড়ে যায়। পানি উজ্জীবিত ...
পুষ্টিকথা
৩১ মে, ২০১৪
নুনেশাক নুনেশাকের প্রধান সক্রিয় উপাদান ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড, অক্সালিক এসিড, ক্যারোটিন, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, সোডিয়াম, কপার, ফসফরাস, আয়রণ, জিংক, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন এ, বি১, বি২ ও সি। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড রক্তে কোলেস্টেরল এর মাত্রা হরাস করে, উচ্চ রক্তচাপ প্রশমণ করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। নুনেশাক ডায়রিয়া প্রতিরোধ করে এবং তৃষ্ণা নিবারণ করে ও উত্তাপজনিত মাথা ব্যথা দূর করে। গাজর গাজরে বিদ্যমান বিটা ক্যারোটিন (ভিটামিন এ এর উত্স) শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং ক্যান্সার প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। ...
গরমে শরবত
২৪ মে, ২০১৪
প্রচন্ড গরমে সবার নাভি:শ্বাস অবস্থা। আর যারা এই গরমে বাইরে কাজে বের হয় তাদের অবস্থা আরো খারাপ। শিশুরাও ভালো নেই এই গরমে। অসুস্থ হয়ে পড়ছে অনেক শিশুই। গরমে যেন কোন কিছুই খেতে ভাল লাগে না। শুধু পান করতে ইচ্ছা করে পানি বা পানি জাতীয় খাবার। যারা বাইরে কাজে বরে হয় তারা প্রচন্ড গরমে একটু স্বস্তির আশায় রাস্তার পাশে ভ্যানে বিক্রি করা লেবুর শরবত, ফলের রস, এলোভেরা ইত্যাদি পান করে থাকে। গরমে এই পানীয়গুলো খুবই স্বাস্থ্যকর হতো যদি এই পানীয়গুলো ...
ফিজিওথেরাপি : হাটুর ব্যথায় করণীয়
২৪ মে, ২০১৪
দৈনন্দিন জীবনে কাজ-কর্মে ব্যহত হওয়ার প্রধান সমস্যা হিসেবে হাটুব্যথা একটি বড় কারণ হিসেবে দাঁড়িয়েছে। ইহা একটি বার্ধক্যজনিত রোগ। তরুণদের চেয়ে বয়স্ক লোকেরা এ রোগে বেশি ভোগে থাকেন। এছাড়া মহিলাদের সাধারণত: ৪০ বছরের পর ঋতুচক্র বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর হরমোনের তারতম্যের কারণে অস্থি কনিকা ক্ষয় প্রাপ্ত হয়ে এ রোগ দেখা দিতে পারে। এমনকি খেলোয়াড়দের খেলাধূলার সময় ভূল অবস্থানের কারণে হাটুতে আঘাত পেলে বা মচকালে অনেক সময় কোমড়ের অসুবিধার জন্যেও হাটু ব্যথা হতে পারে। হাটু ব্যথার কারণসমূহ আর্থ্রাইটিস বা বাতের ব্যথা। ...
এই গরমে চুল ও ত্বকের যত্ন
২৪ মে, ২০১৪
মানুষ মাত্রই সুন্দর, সুস্থ আর চকচকে ত্বক প্রত্যাশা করে। কিন্তু গরমে এই ত্বক হয়ে যায় তেলতেলে, ঘামযুক্ত। এতে ত্বক তার চাকচিক্য হারায়। একটু খানি পরিচর্যা করলে গরমে আমাদের ত্বককে সমস্যামুক্ত রাখতে পারি। ত্বকে আদ্রতা রক্ষা করতে হবে প্রচন্ড গরমে ঘামের মাধ্যমে ত্বকের আদ্রতা কমে যায়। এই সময় প্রচুর পানি খাওয়া দরকার। এছাড়াও প্রয়োজনে ফলের রস, লেবুর রস এবং খাবার স্যালাইনও পান করা যেতে পারে। সুষম খাদ্য গ্রহণ খাদ্যতালিকায় শর্করা বেশী রেখে আমিষ আর চর্বি জাতীয় খাবার কমালে ভাল। প্রচুর সবুজ শাক সবজী, গাজর, লেটুস, সালাদ খাওয়া যেতে পারে। প্রতিদিন এক কাপ খাটি দুধ পান শরীর থেকে তাপ কমাতে সাহায্য করে অতিরিক্ত গরম এবং ঝাল জাতীয় খাদ্য বর্জন শ্রেয়। মৌসুমী ফল গ্রহণ গরমের সময় প্রচুর মৌসুমী ফল খাওয়া যেতে পারে যেমন- তরমুজ, আম, বাংগী, আঙ্গুর। এসব সরাসরি ত্বকের পুষ্টি যোগায় এবং ত্বকের ক্ষয় প্রতিরোধ করে। ...
ডায়াবেটিসে খাবার সম্পর্কে ভ্রান্ত ধারণা
১৭ মে, ২০১৪
ডায়াবেটিসে খাবার সম্পর্কে অনেক ভ্রান্ত ধারণা আছে। এগুলো নিছকই ভ্রান্ত ধারণা। যেমন- বেশি মিষ্টি বা চিনি খেলে ডায়াবেটিস হয়। আসলে বেশি মিষ্টি খেলেই ডায়াবেটিস হয় না। মিষ্টি শর্করা জাতীয় খাবার। ভাত, রুটি, এগুলোও শর্করা জাতীয় খাবার। পেটের ভেতরে অবস্থিত অগ্ন্যাশয় থেকে নিঃসৃত হরমোন 'ইনসুলিন' রক্তের শর্করা বা গ্লুকোজ ভেঙ্গে শরীরে শক্তি উত্পন্ন করে। অগ্ন্যাশয় থেকে ইনসুলিন নিঃসরণ না হলে বা কম হলে রক্তে গ্লুকোজ বা চিনির পরিমাণ বেড়ে যায়। এ অবস্থাই ডায়াবেটিস। কোন কারণে ইনসুলিন কাজ করতে না পারলেও ...
শিশুর জন্য মায়ের দুধের বিকল্প নেই
১৭ মে, ২০১৪
মায়ের দুধের বিকল্প নেই। মায়ের ভালোবাসার মতোই মায়ের দুধ। সুষম খাদ্যের মতো এতে প্রোটিন, ফ্যাট ও কার্বোহাইড্রেড থাকে। ১০০ মিলি মায়ের দুধে ১.১ গ্রাম প্রোটিন, ৪.৮ গ্রাম ফ্যাট ও ৬.৮ গ্রাম ল্যাক্টোজ থাকে। এতে ক্যালরির পরিমাণ ৭৫ কিলোক্যালরি। প্রসবকালীনের পর মায়ের দুধের উপাদান বদলায়। এ ছাড়া দুধ দেয়ার শুরুর সময়ে ও শেষের দিকেও তফাত্ হয়ে যায়। শেষের দিকে ফ্যাট বেড়ে যায়। দুধ দেয়ার নিয়ম নরমাল ডেলিভারির পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শিশুকে বুকের দুধ দিতে হবে। সিজারিয়ানের পর ৪ ঘণ্টার মধ্যে দুধ দিতে হবে। শিশুকে উভয় স্তন পান করাতে হবে। শিশুর মাথার নিচে হাত রেখে স্তনবৃন্ত ও বৃন্তের চারপাশের অ্যারিওলাসহ শিশুর মুখে দিতে হবে। প্রথম দিকে প্রতি স্তনে ২-৩ মিনিট এবং পরবর্তীকালে বাড়িয়ে ৭-১০ মিনিট খাওয়াতে হবে। এভাবে ১৫-২০ মিনিট খাওয়াতে হবে। ...
পুষ্টিকথা : গরমে কিখাবেন কি খাবেন না
১৭ মে, ২০১৪
গরমে শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখার জন্য সঠিক খাদ্যাভ্যাস খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গরমে সবচেয়ে বেশী দেখা দেয় পানি শূন্যতা। তাই পানি শূন্যতা রোধ করতে হলে প্রতিদিন প্রচুর পরিমানেণ পানি খেতে হবে। শরীরের পানির অপর্যাপ্ততা থেকে অনেক সমস্যার কারণ হতে পারে। যেমন- রক্তচাপের সমস্যা, ত্বকের ও চুলের শুষ্কতা, শরীরের দুর্বলতা ইত্যাদি। তাই প্রতি ২.৫ লিটার থেকে ৩.৫ লিটার পানি পান করতে হবে। আর পানি হতে হবে অবশ্যই বিশুদ্ধ পানি। গরমে আর একটি সমস্যা দেখা দেয় তা হলো বদহজম। এর ফলে দেখা দেয় ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব বা বমি হওয়া, এসিডিটি, পেটফাঁপা, চুকা ঢেকুর ওঠা ইত্যাদি। তাই গরমে খাবার নির্বাচনের ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে। প্রচুর পরিমাণে শাক সবজি খেতে হবে। গরু ও খাসির মাংস, পোলাও, বিরিয়ানী, বোরহানী, কাবার ইত্যাদি খাবার না খাওয়াই ভালো। ভাজা-পোড়া খাবার কম খেতে হবে। রান্নায় কম তেল ও মসলা ব্যবহার করতে হবে। শাক, সবজি ও ছোট মাছ খাওয়া ভালো। সবজির মধ্যে কাঁচা পেপে, লাউ, কুমড়া, সবুজ শাক, ডাটা ইত্যাদি ...
ফিজিওথেরাপি : কোমরে ব্যথা হলে
১০ মে, ২০১৪
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে সারা বিশ্বে ৮০ ভাগ প্রাপ্ত বয়স্ক লোক জীবনে কোন না কোন সময় কোমড় ব্যথায় আক্রান্ত হয়। এই ব্যথা মানুষকে ভীষণ কষ্টে ফেলে দেয়। অনেকে শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন বা স্বাভাবিক কাজ কর্ম করতে পারে না। কোমড় ব্যথা অবহেলার বিষয় নয়। প্রাথমিক পর্যায়ে এই ব্যথা নির্মূল করতে না পারলে রোগীকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, এমনকি জীবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায়। কোমড় ব্যথার কারণ  অনেকক্ষণ বসে বসে কাজ করা কিংবা নিচু হয়ে ভারী কোন কিছু তোলা ...
হারবাল চিকিত্সা : কোষ্ঠকাঠিন্য
১০ মে, ২০১৪
প্রতিদিন খাদ্যসমূহ খাবার পর সঠিক মাত্রায় এবং সঠিক সময়ে ভূক্ত খাদ্যাংশের বর্জ্য পদার্থ শরীর হতে বের না হওয়াকে কোষ্ঠকাঠিন্যবলে। খাদ্যের অসার দ্রব্য ৬ হতে ২৪ ঘন্টার মধ্যে শরীর থেকে বের হওয়াই নিয়ম। একজন সুস্থ মানুষ স্বাভাবিক খাদ্য খেয়ে প্রতিদিন বা ২৪ ঘন্টায় ১-২ বার মল ত্যাগ করে। অবশ্য অভ্যাসভেদে বিভিন্ন মানুষের মল ত্যাগের নিয়ম বিভিন্ন। এমনও মানুষ দেখা যায় যখনই ইচ্ছা করে তখনই মলত্যাগ করতে পারে। আবার এমনও হয় কেউ কেউ ৩/৪ দিন পরপর মলত্যাগে অভ্যস্থ। এগুলো আসলেই কোন ...
সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস
০৩ মে, ২০১৪
সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস কী সাধারণ বাংলায় এটাকে বলে ঘাড়ের বাত। এটা হলো মেরুদণ্ডের ঘাড়ের অংশের কশেরুকাগুলোর মধ্যকার ডিস্ক বা চাকতিসদৃশ তরুণাস্থির ক্ষয়প্রাপ্তি। মানুষের মেরুদণ্ড ৩৩টি ছোট ছোট হাড় বা কশেরুকা (ভার্টি ব্রা) দিয়ে তৈরি। ঘাড়ের অংশে থাকে সাতটি কশেরুকা। এই কশেরুকাগুলো একটি অপরটির সাথে ডিস্ক ও লিগামেন্ট দ্ব্বারা সংযুক্ত থাকে। মেরুদণ্ডের ঘাড়ের অংশ সামনের দিকে উত্তলভাবে বাঁকানো। সবচেয়ে বেশি বাঁকানো থাকে পঞ্চ ও ষষ্ঠ কশেরুকার মধ্যকার ডিস্ক বরাবর। এই ডিস্কে স্পনডাইলোসিস বেশি ঘটে কারণ এই পয়েন্টে সবচেয়ে বেশি চাপ পড়ে। ...
জ্বর ও কাঁশিহলে কিকরবেন?
০৩ মে, ২০১৪
রোগ জিজ্ঞাসা: ময়মনসিংহ থেকে লিখেছেন শিরিন সুলতানা। আপনার সন্তানের বয়স ১২ বছর। গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বর ও কাঁশি। প্যারাসিটামল দিয়েছেন জ্বর যাচ্ছেনা। উত্তর: প্রথমত: জ্বর একসপ্তাহ পার হলে আমরা সাধারণত: ভাইরাল ফেভার ভাবিনা। এটা সম্ভবত: শ্বাস-প্রশ্বাসের সংক্রমণ বা অন্য কোন কারণে জ্বর হয়েছে। তাই আপনার মেয়ের ক্ষেত্রে বিলম্ব না করে চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী যে কোন এন্টিবায়োটিক শুরু করা উচিত। এক্ষেত্রে এজিথ্রোমাইসিন ভাল কাজ করে। ৫০০ মিলিগ্রাম এজিথ্রোমাইসিন দিনে ১ বার ৩ দিন দিতে হবে। এর পাশাপাশি জ্বর ১০১ ডিগ্রী ফারেন হাইটের বেশী হলে প্যারাসিটামাল ট্যাবলেট দিনে ৩ বার খাওয়ার পর দেয়া যেতে পারে। এ ছাড়া সর্দি-কাঁশি হলে যে কোন এন্টি-হিস্টামিন জাতীয় ওষুধ সকালে ও রাতে দেয়া যেতে পারে। তবে মনে রাখতে হবে ওষুধ সেবনের ৩ থেকে ৫ দিনের মধ্যে জ্বর নিরাময় না হলে অবশ্যই রক্ত পরীক্ষা করে ওষুধ সেবন করানোর দরকার হতে পারে। এ ক্ষেত্রে ইউরিন রুটিন, রক্তের সিবিসি, রক্তের বিডাল টেস্ট অথবা রক্তের কালচার করা উচিত। এসব ...
গরমে সুস্থ থাকার ১০টি উপায়
১৯ এপ্রিল, ২০১৪
দুঃসহ গরমে যেকোনো মুহূর্তে যে কেউ পড়তে পারেন অসুস্থতায়। আবহাওয়ার তাপমাত্রা বাড়ার সাথে সাথে মানবদেহের তাপমাত্রাও বাড়তে থাকে। তাই এসময়ে কেউ যদি নিজের দেহের তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখার কৌশল আয়ত্ত করতে পারেন তাহলেই সম্ভব অসুস্থতার হাত থেকে রেহাই পাওয়া। ১. কমিয়ে আনুন শারীরিক পরিশ্রম, গরমে বেশি ব্যায়াম করার প্রয়োজন নেই। ব্যায়ামে বাড়বে শরীরের তাপমাত্রা। তবে শারীরিক ফিটনেস বজায় রাখতে যেটুকু ব্যায়াম করবেন তা যেন সীমিত থাকে। ব্যায়ামের মাধ্যমে ঘেমে গিয়ে একাকার হয়ে ওঠার কথা ভুলে যান; বরং এ চিন্তাটা তুলে ...
মাথা ব্যথা
১৯ এপ্রিল, ২০১৪
দীর্ঘমেয়াদী মাথা ব্যথার অন্যতম একটি কারন ক্লাস্টার মাথা ব্যথা। এটির প্রকৃত কারষ আজো জানা সম্ভব হয়নি। এই মাথা ব্যথা এপিসোডিক বা পালাক্রমে হয়। অর্থাত্ একবার হয়ে যাবার পর রোগী বেশ কিছুদিন ভাল থাকে। তারপর আবার মাথা ব্যথা হয়। ক্লাস্টার মাথা ব্যথায় চোখ লাল হয়, চোখ দিয়ে পানি পড়ে, নাক বন্ধ থাকে বা নাক দিয়ে পানি পড়ে, অস্থির লাগে, বমিভাব হয় এবং ক্ষুধামন্দা থাকে। এ ধরনের মাথা ব্যথা সাধারণত মাথার একদিকে হয়ে থাকে। ক্লাস্টার মাথা ব্যথা ছেলেদের বেশী হয়। এর পেছনে কোন কারণ স্পষ্টভাবে জানা যায়নি। পরিবারের কারো একজনের থাকলে অন্যদের হবার সম্ভাবনা থাকে। যাদের বয়স ২০ বা তার বেশী তার ক্ষেত্রে এ ধরণের মাথা ব্যথার সম্ভাবনা বেশী। বিজ্ঞানীরা ক্লাস্টার মাথা ব্যথার যথাযথ কারণ আজো বের করতে পারেনি। তবে সেরোটোনিন এবং হিস্টামিন নামের দুটি উপাদানের সাথে যে অসুখের সম্পর্ক আছে তা আজ প্রমানিত। গবেষকরা হাইপোথ্যালামাসের সাথে অসুখের সম্পর্ক পেয়েছেন। ক্লাস্টার মাথা ব্যথা শুরু হবার কিছু 'ট্রিগার ফ্যাক্টর' আছে। যেমন- মদপান ...
ক্যান্সার প্রতিরোধে প্রয়োজন সচেতনতা
১২ এপ্রিল, ২০১৪
প্রতি বছর ৪ ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ক্যান্সার দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিবস পালনের মূল বিষয় ছিল ক্যান্সার প্রতিরোধ। প্রতি বছর প্রায় ১ কোটি ২০ লক্ষ লোক ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। এইডস, যক্ষ্মা ও ম্যালেরিয়া এই তিনটি মিলে যতলোকের মৃত্যু হয়, ক্যান্সারে মৃত্যু হয় এর চেয়েও বেশি। তবে সুখের কথা এই, পাঁচটির মধ্যে দু'জনের ক্যান্সার প্রতিরোধ যোগ্য। ক্যান্সার প্রতিরোধ তেমন কঠিন ব্যাপার নয়। চাই সদিচ্ছা ও উদ্যোগ। ধূমপান বর্জন করে, মদ্যপান বন্ধ করে, কড়ারোদে বেশিক্ষণ না থেকে, শরীরের জন্য আদর্শ ...
নারীদের মুখ খোলা উচিত ডাক্তারের কাছে
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা গোপন কথা; কেন রহিবে গোপনে? ডাক্তার ও উকিলের কাছে বলতে হয়। তানাহলে চিকিত্সা করে ভালো করা যাবে কিনা। উকিলও সব নাজানলে মামলাতে লড়াই করবেন কিভাবে। সারা পৃথিবীতে লক্ষ লক্ষ নারী লজ্জায় বলতে পারেননা অনেক স্বাস্থ্য সমস্যা, বারবার প্রস্রাব, খুব বেশি ঘাম হওয়া, যোনিদেশে দুর্গন্ধ, গ্যাস আরো অনেক বিব্রতকর সমস্যা। এ নিয়ে মহিলারা কথাই বলতে চাননা ডাক্তারের কাছে। সবচেয়ে বিব্রতকর হলো টয়লেট টক বিষয়গুলো। প্রসাধনঘর প্রসঙ্গ। স্নানঘরে বা প্রসাধন ঘরে যা যা সমস্যা হয়-যেমন বারবার ...
মৃগীরোগনিয়ে কিছুকথা
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
মস্তিষ্কের রয়েছে নিজস্ব তড়িত্ প্রবাহ। এর মাধ্যমে কাজ করে ব্রেইন/ মস্তিস্কের সকল অংশ। তড়িত্ প্রবাহের কোন বিপত্তি হলে হয় খিচুনী। খিচুনী বার বার হলে এটিকে বলে মৃগী বা এপিলেপসি। এপিলেপসি বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। এর কারণও অনেক। খিচুনী হলে রোগী অজ্ঞান হতে পারে, আবার নাও হতে পারে। আবার অনেক সময় খিচুনী হলেও তা সহজে বুঝা যায় না। তবে খিচুনীর ধরন যাই হোক-একবার খিচুনী হলেই চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে হবে। প্রয়োজনীয় পরীক্ষা যেমন: ইইজি, সিটিস্ক্যান, এমআরআই, রক্তের লবণ, শর্করা, ইউরিয়া, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, লিভার ফাংশন সহ অন্যান্য পরীক্ষার মাধ্যমে চিকিত্সক হয়তো বুঝতে পারবেন এটি কোন ধরনের মৃগীরোগ এবং এর কারণ কি। রোগের কারণ ও প্রকৃতি নির্ণয় করা সাপেক্ষে ডাক্তার বুঝতে পারবেন পরবর্তী চিকিত্সা পদ্ধতি কিংবা কোন ওষুধ তার জন্য বেশী সহায়ক। খিচুনী হওয়ার সময় কি করবেন এ সময় রোগীর কাছাকাছি যিনি থাকবেন তার দায়িত্ব সাহস এবং উপস্থিত জ্ঞান দিয়ে রোগীকে সহায়তা করা। যেমন-রোগীকে আগুন, পানি, যন্ত্রপাতি ইত্যাদি থেকে দূরে সরিয়ে নেয়া, খিচুনী ...
ধূমপান ছাড়ার উপকারীতা
২৯ মার্চ, ২০১৪
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, পৃথিবীতে ১৫ বছর বয়সের ওপরের মোট জনসংখ্যার তিন ভাগের এক ভাগ হলো ধূমপায়ী। এদের মধ্যে বেশির ভাগেরই অবস্থান উন্নয়নশীল দেশগুলোতে এবং পুরুষ ধূমপায়ীর সংখ্যা বেশি। কিন্তু এই ধূমপানই অনেক জটিল রোগকে আমন্ত্রণ করে। এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন প্রকার ক্যান্সার (যা হতে পারে ফুসফুস, অন্ননালি, কিডনি, পাকস্থলী, অগ্নাশয়, মূত্রথলি ও মুখে), শ্বাসনালির রোগ, হূিপণ্ডের রোগ, মস্তিষ্কের স্ট্রোক, রক্তবাহী নালির রোগ, পেপটিক আলসার ইত্যাদি। গর্ভকালীন যারা ধূমপান চালিয়ে যায় তাদের ক্ষেত্রে গর্ভপাত, অপরিপক্ক সন্তান প্রসব, কম ...
বাতরোগে চোখের সমস্যা
২৯ মার্চ, ২০১৪
বাতরোগ হল হাঁড় এবং মাংশপেশী সম্পর্কিত রোগ। এর সাথে আবার চোখের সম্পর্ক কোথায়? ভাবতেই অবাক লাগছে তাই না? শরীরের এমন অনেক রোগ আছে যাতে চোখের সমস্যাও একটা প্রধান ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। যে সব বাত রোগে চোখের সমস্যা হয়- রিউমাটয়েড আরথ্রাইটিস এতে সাধারণত হাড় এবং পায়ের ছোট জয়েন্টে প্রদাহ হয়, তার সাথে চোখের শুষ্কতা, স্কেরাইটিস (চোখের সাদা অংশের প্রদাহ) কেরাটাইটিস (চোখের কর্ণিয়ার প্রদাহ) ইত্যাদি হতে পারে। জুভেনাইল আরথ্রাইটিস হাঁটুু এবং পায়ের গোড়ালী সহ ছোট বড় বিভিন্ন জয়েন্টে প্রদাহ সৃষ্টিকারী এই রোগ সাধারণত ১৬ বছরের কম ছেলে মেয়েদের বেশী হয়। এতে বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে চোখে ব্যথাযুক্ত প্রদাহ বা ইউভাইটিস হতে পারে। ...
কিডনি রোগের ঝুঁকি: করণীয়
২২ মার্চ, ২০১৪
বিগত ২০০৬ সাল হতে প্রতিবছরই মার্চ মাসের ২য় বৃহস্পতিবার 'বিশ্ব কিডনী দিবস' পৃথিবীর সবদেশে পালিত হয়। এই দিবস উদযাপনের মূল উদ্দেশ্য নীরব ঘাতক কিডনি রোগের ভয়াবহতা সম্পর্কে সারা দুুনিয়ার মানুষকে অবহিত করা এবং কিডনি বিকল প্রতিরোধের জন্য সবাইকে সচেতন করা। বিভিন্ন উপাত্ত থেকে জানা যায় কিডনি রোগের হার দিন দিন মহামারী আকারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যদি সময় মত চিকিত্সা না করা হয় তবে কিডনি রোগের শেষ পরিনতি দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ। দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ মাসের পর মাস, বছরের পর বছর ধরে ...
ডায়েটিং থেকে চুল পড়া
২২ মার্চ, ২০১৪
আজকাল প্রচুর তরুণ-তরুণী ছেলে মেয়েরা আসছে চুলপড়া সমস্যা নিয়ে। একেবারে অবিশ্বাস্য যে স্কুলে পড়া ছেলে মেয়েরাও আছে চুলপড়া রোগীদের তালিকায়। ১৪/১৫ বছরের ছেলে-মেয়েদের চুলপড়া সমস্যা থাকলে তা অবশ্যই উদ্বেগের কারণ হবে এটা নি:সন্দেহে। আমি সব সময় বলে আসছি চুলপড়া কোন রোগ নয়। সাধারণত: যেসব কারণে চুল পড়ে তম্মধ্যে রয়েছে বংশগত, হরমোনাল সমস্যা, কনট্রাস্পেটিভ জাতীয় ওষুষ সেবন, এন্টিবায়োটিক, ইনফেকশন, মাথার ত্বকে প্রদাহ, খুসকি, প্রবল মানসিক চাপ, লবণাক্ত ও আয়রণযুক্ত পানি এবং আকষ্মিক ডায়েটিং ইত্যাদি চুলপড়ার অন্যতম কারণ। এছাড়া আমি সব ...
হার্টের জন্য স্বাস্থ্যকর খাদ্য
১৫ মার্চ, ২০১৪
খাদ্যে চর্বি সম্বন্ধে প্রচলিত জ্ঞান ও ধারণার পরিবর্তন ঘটেছে। এক সময় তেল ও চর্বি মানেই অস্বাস্থ্যকর এমন একটি ধারণা ছিলো। মনে করা হতো তেল-চর্বি খেলে হূদরোগ ও ডায়াবেটিসের মত জটিল রোগ হয়। কিন্তু গবেষকরা দেখেছেন সব চর্বি ও তেলই মন্দ নয়। আছে চর্বির ভালো-মন্দ, আছে ভালো-মন্দ চর্বি। খাদ্যের চর্বিকে দু'ভাগে দেখা যায়। স্যাচুরেটেড চর্বি ও আনস্যাচুরেটেড চর্বি। আনস্যাচুরেটেড চর্বি হলো শ্রেষ্ঠ। স্যাচুরেটেড চর্বি বেশি খেলে যেসব রোগ হয়, সেই চর্বির বদলে আনস্যাচুরেটেড চর্বি খেলে সেসব রোগ অনেক কমে যায়। ...
হাড়ের ভঙ্গুরতা রোধে করণীয়
০১ মার্চ, ২০১৪
আবাসিক সার্জন, সার্জারি বিভাগ ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। চেম্বার: ল্যাব সাইন্স ডায়াগনস্টিক লিঃ, ১৫৩/১ গ্রিন রোড, ঢাকা। মহিলারা কেবল কারো মা কিংবা স্ত্রী নন, বর্তমানে এ পরিচয়ের বাইরেও তারা অনেক কাজের সাথে জড়িত। অনেক ক্ষেত্রে পুরুষদের চেয়েও বেশি কাজ করতে হয় তাদের। সময়মতো অফিসে যাওয়া, আবার বাড়িতে ফিরে গৃহস্থালি কাজকর্মে নিয়োজিত থাকা- বিরাট শারীরিক ও মানসিক ধকল। এর সবই করতে হয় তাদের, আর এ জন্য প্রয়োজন প্রচুর শারীরিক ও মানসিক শক্তি। মহিলাদের একটা বিশেষ ঝুঁকি থাকে অস্টিওপরোসিস বা হাড়ের ...
বয়স্কদের ক্লান্তি সমস্যা
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
বৃদ্ধ বয়সী রোগীদের একটি সাধারণ সমস্যা হল ক্লান্তি। অর্ন্তনিহিত অসুখ কিংবা মানসিক অশান্তির কারণে ক্লান্তি আসতে পারে। ক্যান্সার, হূদরোগ, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের অসুখ, থাইরয়েড গ্রন্থির অকার্যকারিতা মালটিপল স্ক্লেরোসিস এবং রিউমাটয়েড আথ্রাইটিস ক্লান্তির কারণ হতে পারে। ক্লান্তি মন ও শরীরের উপর প্রভাব বিস্তার করে থাকে। ক্লান্তির পিছনে যদি স্পষ্ট কোন কারণ খুঁজে পাওয়া না যায় তবে মনে করতে হবে অনেক ফ্যাক্টর একসাথে মিলে এই ক্লান্তির সৃষ্টি করেছে। বিপাক, মাংশপেশী প্রদাহ, স্নায়ুবিক এবং মানবিক কারণে ব্যাখ্যায়িত ক্লান্তি হতে পারে। ক্লান্তির পিছনের কারণগুলি ...
পরিপাকনল ও স্বাস্থ্য
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা পরিপাকতন্ত্র সম্বন্ধে জানা চাই। পরিপাক, হজম, বদ-হজম এসব সম্বন্ধে তখন ভালো ধারণা জানা যাবে। পুরো পরিপাকনল দিয়ে খাদ্য যেতে কত সময় লাগে। গড়ে ৫০ ঘন্টা। নারীদের চেয়ে দ্রুত খাবার হজম হয় পুরুষদের আর শিশুরা বড়দের চেয়ে দ্রুত হজম করে খাদ্য। পাচকনলের কোন অংশে খাবার বেশি পরিপাক হয়? ক্ষুদ্র অন্ত্র। পাকস্থলীতে খাবারের বড় খন্ডগুলো ছোট ছোট খন্ডে ভেঙ্গে যায়, যাতে এগুলো ক্ষুদ্রান্ত্র দিয়ে প্রবেশ করে রক্তস্রোতে। অগ্ন্যাশয় থেকে যে এনযাইমগুলো আসে, সেগুলো যায় ক্ষুদ্রান্ত্রে। এগুলো ...
শিশুর কানব্যথা যখন ঝুঁকিপূর্ণ
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
হঠাত্ কানব্যথা। তবে একটু সর্দি-কাশি ২/৩ দিন ধরেই ছিল। হঠাত্ কানব্যথার এই সমস্যা প্রথম থেকেই তীব্র হতে পারে কিংবা প্রথমে অল্প হয়ে ক্রমশ বাড়তে পারে। অনেক শিশু-কিশোরদেরই এ রকম অবস্থা দেখা দেয়। কানব্যথার এই সমস্যা আক্রান্তের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে বলে এটিকে মেডিকেল ইমারজেন্সি বা জরুরি চিকিত্সাযোগ্য রোগ হিসাবে বিবেচনা করা হয়। কানের এই জরুরি সমস্যার- মধ্যকর্ণের তীব্র চিকিত্সা বিজ্ঞানের পরিভাষায় এর নাম- একিউট সাপোরেটিভ ওটাইটিস মিডিয়া। সাধারণভাবে শিশুরা এই সমস্যায় বেশি আক্রান্ত হয়ে থাকে। বারবার উর্ধ্বশ্বাসনালীর প্রদাহ হচ্ছে ...
ডায়াবেটিস ও আপনার চোখ
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
ডায়াবেটিস গ্রস্ত লোকদের অন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অন্যান্যদের তুলনায় ২৫ গুণ বেশি। দীর্ঘকাল ধরে রক্তে উঁচুমাত্রার সুগার থাকলে রেটিনা সমৃদ্ধকারী ক্ষুদ্র রক্তনালীগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং এক সময় দৃষ্টিহানি ঘটে। একে বলা হয় ডায়াবেটিক রেটিনোপথ্যাথী। আপনার ডায়াবেটিস যত পুরনো হবে এর সম্ভাবনাও তত বেশি। সমস্যাটির প্রাথমিক পর্যায়ে আপনার রেটিনাস্থ রক্তনালীর গাত্র দূর্বল হয়ে পড়ে। তিলক-এ তরল এসে না পড়া পর্যন্ত অনেকেই এ সমস্যা অনুধাবন করতে পারে না। এ রোগ বাড়ার এক পর্যায়ে রোগীর রেটিনায় কিছু দুর্বল, ভঙ্গুর, রক্তনালী গজিয়ে উঠতে পারে। এসব রক্তনালীর কোনটা ফেটে গিয়ে রক্তক্ষরণ হলে আপনি তাত্ক্ষণিকভাবে দৃষ্টি হারাতে পারেন। রক্তনালীর চারপাশে এক ধরনের টিস্যু গজিয়ে উঠে আপনার রেটিনাকে অক্ষিগোলক থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলতে পারে। নয়া এই রক্তনালী যদি চোখের তরল প্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে তাহলে চাপ সৃষ্টি হয়ে গ্লুকোমা ঘটে। তাই আপনি ডায়াবেটিসগ্রস্ত হলে নিয়মিত চোখ পরীক্ষা করান। ডায়াবেটিক রেটিননোপ্যাথী হলে তা আগেভাগে শনাক্ত করাটা জরুরি। দৃষ্টিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া প্রতিরোধে ডায়াবেটিসের সযত্ন ব্যবস্থাপনা অত্যাবশ্যক। আপনার ডায়াবেটিক ...
ডায়াবেটিস এবং খাওয়া-দাওয়া
০১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
ডায়াবেটিস রোগীদের সঙ্গে আলাপ করলে মনে হয়, তারা অনেকে মনে করেন ডায়াবেটিস হলে কেবল যে চিনি-মিষ্টি বাদ দেওয়া তাই নয়, খাওয়া-দাওয়া থেকে 'মজা করে খাওয়া' শব্দটি উঠে গেলো। কিন্তু সত্যি কি তাই? বস্তুত: আমেরিকান ডায়াবেটিক এসোসিয়েশনের পরামর্শ:খাদ্যে শ্বেতসারের পরিমাণের চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো কি ধরণের শর্করা গ্রহণ করা হচ্ছে এর তদারকি করা। সুসংবাদটি হলো, অনেক প্রিয় খাদ্য এমনি খাওয়া যায় বা সামান্য বদল করে খাওয়া যায়, করা যায় একে ডায়াবেটিস বান্ধব এবং উপভোগ্যও বটে। স্বাদও হয় সে সব খাদ্যে। ...
বিশ্ব ইজতেমা: স্বাস্থ্য পরামর্শ
২৫ জানুয়ারি, ২০১৪
সহযোগী অধ্যাপক নাক কান গলা বিভাগ হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বিশ্ব ইজতেমা মুসলমানদের একটা বড় জমায়েত। প্রতি বছর দেশ ও বিদেশের লাখ লাখ মুসলমান এই ইজতেমায় আসেন ধর্মীয় দিকনির্দেশনা গ্রহণের জন্য। ইজতেমায় স্বাস্থ্যরক্ষার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এত বিপুলসংখ্যক মানুষের ভিড়, অংশগ্রহণের সময় শারীরিক পরিশ্রম এবং শীতে খোলা আকাশের নিচে সৃষ্ট পরিবেশগত ভিন্নতা ইত্যাদি সবকিছু মিলিয়ে ইজতেমায় আসা মুসল্লিরা স্বাস্থ্য সমস্যার মুখোমুখি হয়ে থাকেন। ইজতেমার সময় মুসল্লিদের শরীরের প্রতি বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত। শীতকাল ও খোলা ...
ক্লান্তি:অনেক রোগের উপসর্গ
১৮ জানুয়ারী, ২০১৪
ক্লান্তির একটি বড় কারণ হলো অনিদ্রা। ঘুম খুব কম হলে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে মনোযোগ ও স্বাস্থ্যের উপর। পূর্ণবয়ষ্কদের প্রতিরাতে ঘুম হওয়া উচিত ৭-৮ ঘন্টা। ঘুম হওয়া উচিত বড় রকমের অগ্রাধিকার। ঘুমের একটি নিয়মিত সূচী থাকাও চাই। ঘুম ঘরে যেন না থাকে ল্যপটপ, সেলফোন ও টিভি। এরপরও সমস্যা থাকলে চিকিত্সকের পরামর্শ। ঘুমের বৈকল্য থাকতেও পারে। নিম্নে ক্লান্তির কারণগুলো হলো: স্লিপএপনিয়া হতে পারে বড় কারণ অনেকে মনে করেন বেশ ঘুম হচ্ছে, নাক ডাকিয়ে ঘুম। কিন্তু ঘুমে সাময়িক স্বাসবোধ বা এপনিয়া ...
ফুসফুস সুস্থ রাখার উপায়
১১ জানুয়ারী, ২০১৪
প্রভাষক, কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ পাবনা মেডিকেল কলেজ, পাবনা বিজ্ঞানের নানা সুফল আমরা ভোগ করছি। কিন্তু নগরায়নের দাপটে আজ আমাদের ফুসফুসের বারোটা বাজতে বসেছে। ফুসফুসের নানা সমস্যা বর্তমানে অনেক বেড়ে গেছে। ফুসফুস প্রধানত দুটি কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রথমত, নানা ধরণের অসুখ বিসুখের কারণে এবং দ্বিতীয়ত, জন্মগত অসুখ। জন্মগত অসুখ প্রতিরোধ করা না গেলেও ফসুফুসের আরো অর্জিত বিভিন্ন অসুখ প্রতিরোধ করা যায় সহজেই। ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হবার বিভিন্ন কারণ নিম্নে আলোচিত হল- ১. যক্ষ্মার জন্য ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ২. মশার কয়েল থেকেও ফুসফুসের ভীষণ ক্ষতি হতে পারে। ৩. দুর্ঘটনা জনিত কারণে এবং ফুসফুসে আঘাতের কারণে এর ক্ষতি হয়। ৪. কয়লা খনিতে যারা কাজ করে তাদের যক্ষ্মাসহ বিভিন্ন ফুসফুসের অসুখ দেখা যায়। ফলে ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ৫. ধোঁয়া, গাড়ির ধোঁয়া যাতে প্রচুর কার্বন ডাই অক্সাইড থাকে এগুলো ফুসফুসের জন্য ভীষণ বিপজ্জনক। ৬. দূষিত পরিবেশ ফুসফুসকে ভীষণ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। ৭. বিভিন্ন খনি অঞ্চলে ফুসফুসের অসুখ বেশী হয়। ...
দাঁতের সমস্যা থেকে মাথা চোখ ও কানের ব্যথা
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
কথায় বলে যার মাথা আছে তার ব্যথাও আছে। অর্থাত্ মাথা থাকলে ব্যথাও থাকবে। বিজ্ঞানীদের মতে মাথার ব্যথা অন্যান্য কারণে হতে পারে। তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে বেশীর ভাগ মাথা ব্যথার কারণ শুধুমাত্র মাথার অসুস্থতার কারণেই হয় তা সঠিক নয়। শরীরের অন্যান্য অঙ্গ প্রতঙ্গের অসুস্থতার কারণেও মাথা ব্যথা হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ নাক, কান, গলা অথবা মুখের ভিতরের বিশেষ কোনো রোগের কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে। মুখের ভিতরের যে সব কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে সেগুলোর মধ্যে মাড়ির প্রদাহ বা পেরিওডন্টাল ডিজিজ। ...
মেদভূড়ি যখন সমস্যা
২১ ডিসেম্বর, ২০১৩
সুস্বাস্থ্য সবারই কাম। সেই সঙ্গেসুন্দর চেহারাটাও। মোটা হলে গোল গাল, নাদুস নুদুস দেখা যায়। অনেকের কাছেই বেশ ভালো লাগে। আবার বেশি মোটা সুশ্রীও দেখায় না, বিশেষ করে অনেক মেয়েরাতো একদম পছন্দই করে না। ভালো কি মন্দ দেখায়, তার চেয়েও জরুরী মোটা হলে স্বাস্থ্যের কোন সমস্যা হয় কিনা। আসল সত্য হলো, মোটা বা অতিরিক্ত ওজন স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। দিন দিন মুটিয়ে যাওয়া করোরই কাম্য নয়। বাড়তি ওজন মানেই বাড়তি বোঝা। স্বাস্থ্যটা যদি শরীরের উচ্চতার মাত্রা ছাড়িয়ে যায়, তখন নিজের সৌন্দয্য ...
ইয়াবা আসক্তিঃ এক ভয়ানক ব্যাধি
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৩
ঐশী বাংলাদেশ তথা পৃথিবীতে এখন একটি আলোচিত নাম। যা নাড়া দিয়েছে কোটি কোটি মানুষের হূদয় ও বিবেককে। কারণ একটাই, সে তার জন্ম দাতা দাত্রী পিতা মাতাকে খুন করেছে। কোন সন্তান কি পারে তার মা বাবাকে খুন করতে? তাও আবার মেয়ের হাতে মা বাবা খুন! শিশুর কোমল মনটি কেন বিগড়ে গেল? কোমল মনটি কোথায় যেন হোঁচট খেয়ে মা বাবা খুনের দায় ঘাড়ে নিয়ে আজ জেলে। বাহ্যিক দৃষ্টিতে খুনের দায় ঐশীর ঘাড়ে। কিন্তু একটু গভীর দৃষ্টিতে তাকালে দেখা যায়, কোনো কোমল ...
রক্তচাপ কমাবেন সহজে
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। রক্তচাপ উঠে গেলো বিপদ সীমায়। মোকাবেলা করবেনই তো। খাদ্যাভ্যাস বদলানো হলো, নুন খাওয়া কমালেন, কাজ হলোনা- তখন ওষুধ গ্রহণ। কাজ হলোনা, ওষুধ আরও যোগ হলো সকালের রুটিন। খাদ্যবিধি, ওষুধ সামলানো অত সহজ নয়। তবে আছে কিছু ঘরোয়া দাওয়াই পরামর্শ। সেগুলো চালানো যায়, তবে স্বাস্থ্যবিধি বা ওষুধের তা বিকল্প নয় মোটেও। জীবনকে উপভোগ করা রক্তচাপও কমানো। এই সত্সঙ্গ। সূর্যের কাছে যাওয়া রৌদ্রকরোজ্বল দিনে হূদয় উষ্ণ হয়। কেবল কি তাই? সুস্থও থাকে দেহ মন। এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ইদানীং দেখেছেন, সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মিতে অবগাহন করলে রক্তচাপ বেশ কমে। ভিটামিন ডি উত্পাদন ও যেমন হয়। কারণ সূর্যালোক ত্বকে সঞ্চিত নাইট্রেটকে নাইড্রিক অক্সাইডে রূপান্তরিত করে, এটি রক্তনালীকে প্রসারিত করে, বলেন ডা: রিচার্ড ওয়েলার, যিনি এ নিয়ে গবেষণা করেছেন। রৌদ্রালোকের সঙ্গে হূদরোগের ঝুঁকি হরাসের সম্পর্ক এভাবে অনুসন্ধান করা যায়। ...
শীতে নাক কান গলার সমস্যা
০৭ ডিসেম্বর, ২০১৩
নাক, কান, গলা বিশেষজ্ঞ ও সার্জন অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান ইএনটি বিভাগ আনোয়ার খান মডার্ণ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল,বাড়ী ১৭, রোড ৮, ধানমন্ডি, ঢাকা ১২০৫। বাংলাদেশ ছয় ঋতুর দেশ। প্রতি বছর ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের শরীরে নানা প্রকার সমস্যা দেখা দেয়। সামনে শীতকাল আসছে। এসময় বিভিন্ন রকমের শীতকালীন টাটকা শাক-সবজি, ফল-মূল পাওয়া যায়। শীতে খেজুরের রস ও বিভিন্ন রকম পিঠা-পূরি খাওয়ার সময়। টাটকা শাক-সবজি, ফল-মূল খাওয়ার জন্য শীতকালে সাধারণতঃ রোগ ব্যধি কম হয়। কিন্তু তারপরও আবহাওয়ার বিপর্যয়, পরিবেশ দূষণের ...
মধ্যচল্লিশে নারীর সমস্যা
০৭ ডিসেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। নারী যখন মধ্যচল্লিশে তখন জীবনে একটি নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয় তাদের। জীবনের এ এক সন্ধিক্ষণ। জীবন যাপনকে নতুন করে গোছানো, ঢেলে সাজানোর সময় তখন। ঋতুবন্ধের কাছাকাছি এ সময়কে চিকিত্সা বিজ্ঞানে বলে 'পেরিমেনোপোজ'। গড় পড়তা ৪৫ বছর বয়সে এ পরিবর্তনের শুরু এবং তা চলে ৫৫ পর্যন্ত। এ সময় ডিম্বাশয় থেকে ইস্ট্রোজেন ক্ষরণ কমে আসে, নারী শরীরে ক্রমে ক্রমে ঘটে পরিবর্তন। ঋতুস্রাব কম হতে হতে এক সময় বন্ধ হয়ে যায়। এভাবে আসে ঋতুবন্ধ। নারীর ঋতুচক্রের ইতি ঘটে এবঙ সন্তান ধারণের ক্ষমতা আর থাকে না। শরীরেও আসে পরিবর্তন। ...
হূদছন্দের পতন ও স্বাস্থ্য
৩০ নভেম্বর, ২০১৩
প্রতিটি সুস্থ সবল দেহের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে শক্তিশালী, সুস্থিত,হূদস্পন্দন। একটি ভয়ানক স্বাস্থ্যবিপদ হলো এট্রিয়াল ফিব্রিলেশন। হূদপিন্ডের ছন্দ তখন বিচ্যুত হয়। হূদযন্ত্রের বৈদ্যুতিক ব্যবস্থায় গোলমাল হলে হূদযন্ত্রের উপরের প্রকোষ্ট অলিন্দ দুটো কম্পিত হতে থাকে। তখন নিচের দুটো প্রকোষ্ঠ নিলয় দুটোর স্পন্দনে ঘটে অনিয়ম। অলিন্দের এই ছন্দপতন বড় বিপজ্জনক কারণ। এতে স্ট্রোক ও হূদনিষ্ক্রিয়ার ঝুঁকি থাকে। সতর্ক সংকেত:অসম নাড়ি স্পন্দন অনেক লোকের মধ্যে অলিন্দে ছন্দচ্যুতি হলে অনেক সময় স্পষ্ট লক্ষণ থাকেনা। যদি থাকে কখনও তাহলে এধরণের উপসর্গ হয়। যেমন- অসম নাড়ি স্পন্দন, ...
হার্ট এ্যাটাক: ঝুঁকিগুলো বিবেচনা
২৩ নভেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা কিছু কিছু উপাদান আছে যে গুলোর কারণে ধমনীর দেয়ালে জমে উঠে মেদপুঞ্জ, পরিস্তরের মত। সরু হয়ে যায় ধমনী পথ। হূদযন্ত্রকে সরবরাহ করে যে করোনারি ধমনী সেগুলোও এভাবে সরু হয়ে যায়। বিজ্ঞানীরা একে বলেন এথারোস্ক্লোবোসিস। এসব ঝুঁকি অনেকগুলো সহজে এড়ানো যায়, বর্জনও করা যায় এভাবে। প্রথম হার্ট এ্যাটাক বা পরবর্তী আক্রমণও ঠেকানো যায়। হার্ট এ্যাটাকের ঝুঁকিগুলো হলো-বয়স ৪৫ উদ্ধ পুরুষ এবং ৫৫ উর্দ্ধ মহিলাদের এর চেয়ে কম বয়সের নারী পুরুষের চেয়ে হার্ট এ্যাটাকের সম্ভাবনা বেশি। ...
পেট ব্যথা:অবহেলা করবেন না
০৯ নভেম্বর, ২০১৩
কোন কোন সময় পেটব্যথার সঠিক কারণ সনাক্ত করা যায় না। তারপরও যদি একে গুরুত্ব দেওয়া না হয় তবে একপর্যায়ে সমস্যাটি মারাত্মক হয়ে দাঁড়ায় এবং দ্রুত চিকিত্সা নেয়া জরুরি হয়ে পড়ে। পেটের ব্যথার বিভিন্ন সম্ভাব্য কারণ এবং কখন দ্রুত ইমার্জেন্সি চিকিত্সা প্রয়োজন, নিচে সে ব্যাপারে আলোকপাত করা হলো। একিউট এপেনডিসাইটিস সাধারণত নাভীর চারপাশে চাপা ব্যথা এবং বমি বমি ভাব হয়। ছয় থেকে আট ঘন্টার মধ্যে ব্যথা পেটের নিচের দিকে ডান পাশে চলে আসে, এর সাথে হালকা জ্বরসহ শরীরে দূর্বলতা দেখা ...
দাঁত শির শির করা:করণীয়
০২ নভেম্বর, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান, ডেন্টেষ্ট্রি বিভাগ বারডেম, ইব্রাহীম মেডিকেল কলেজ চেম্বার:১৫/এ গ্রীন স্কয়ার গ্রীন রোড, ঢাকা যখনই কোনো কারণে এই এনামেল ক্ষয় প্রাপ্ত হয় তখন দাঁতের পরবর্তী অংশ ডেন্টিন বেরিয়ে আসে, যেহেতু ডেন্টিনের নিচের অংশেই নার্ভ, আর্টারি, ব্রাড ভেসালস ইত্যাদি থাকে সেহেতু দাঁতটি খুবই সংবেদনশীল বা স্পর্শকাতর হয়ে পড়ে এবং তখনই ঠান্ডা বা গরম কিছু তরল পদার্থ লাগার সাথে সাথেই দাঁত শিরশির করে। এ অবস্থায় একটি দু'টি দাঁত বা অনেকগুলো দাঁত হঠাত্ কখনো শির শির করতে পারে। এরকম দাঁত শির শির ...
হার্টের রোগ: মায়োকার্ডাইটিস
০২ নভেম্বর, ২০১৩
প্রভাষক, কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ পাবনা মেডিকেল কলেজ, পাবনা হূদপিন্ডের মাংস-পেশীর প্রদাহকে মায়োকার্ডাইটিস বলে। বিভিন্ন কারণেই এই প্রদাহ হতে পারে। ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস এবং ফাংগাস দিয়ে যেমন মায়োকার্ডাইটিস হয়। আবার সারকয়ডোসিস, অ্যামাইলয়ডোসিস ইত্যাদি বিরল কিছু অসুখেও এ রোগ হয়। বিভিন্ন ভাইরাস মায়োকার্ডাইটিস করে। এর মধ্যে রয়েছে-ককসাকি ভাইরাস, সাইটোমেগালো ভাইরাস, হেপাটাইটিস সি, হার্পিস, এইচআইভি, পারভো ভাইরাস। ভাইরাসের মত ব্যাকটেরিয়াও এ রোগ ঘটায়। এসব ব্যাকটেরিয়া হলো ক্ল্যামাইডিয়া, মাইকোপ্লাজমা, স্ট্রেপটোকক্কাস, ট্রিপোনেমা। বিভিন্ন ফাংগাসের মধ্যে ক্যানডিডা, হিস্টোপ্লাজমা, এসপারজিলাস, ক্রিপ্টোকক্কাস। কিন্তু মায়োকার্ডাইটিস ঘটাতে পারে। ...
চোখের ঘা:কারণ ও প্রতিকার
২৬ অক্টোবর, ২০১৩
আমাদের চোখের সামনের অংশে যে গোলাকার কাল অংশ দেখা যায়, তাকে কাল রাজা বা কর্ণিয়া বলা হয়। কোন কারণে কর্ণিয়ার প্রদাহ এবং পরবর্তীতে ঘা তৈরী হওয়াকে কর্ণিয়াল আলসার বা কাল রাজার প্রদাহ বলা হয়। চোখের ঘা কেন হয় চোখের আঘাতজনিত কারণে এই রোগ সবচেয়ে বেশী হয়। আমাদের দেশে ধান কাটার মৌসুমে ধানের পাতার আঘাতের কারণে এই রোগের আক্রমণ বেশী দেখা যায়। অপুষ্টিজনিত কারণে বিশেষ করে ভিটামিন 'এ' এর অভাবে শিশুদেও মধ্যে এ রোগ বেশী দেখা যায়। যাদের চোখের পাপড়ির ...
কোমর ব্যথারকারণ ওপ্রতিকার
২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
++কোমর ব্যথা যখন পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত চলে যায় তখন তাকে আমরা সায়াটিকা বলি। আসলে সায়াটিকা কোমর ব্যথারই সমপ্রসারিত রূপ। অস্টিওআথ্রাইটিস বা পিএলআইডি এর ফলে সায়াটিক স্নায়ু উত্পন্নকারি জালিকার গোড়ায় চাপ পড়লে এই স্নায়ুটিতে এক ধরনের প্রদাহ শুরু হয়। এই প্রদাহের ফলে ব্যথা তীব্র থেকে তীব্রতর হতে পারে। ব্যথা কোমর থেকে পায়ের পেছনের অংশ দিয়ে হাটু ও গোড়ালি পর্যন্ত চলে যেতে পারে। অনেকে পা চিবানো বা ঝিঁ ঝিঁ অনুভব করে থাকেন। অনেকে আবার কোমরের চেয়ে পায়েই বেশী ব্যথা অনুভব করেন। ...
প্রস্টেট গ্রন্থির বৃদ্ধিজনিত রোগের আধুনিক চিকিত্সা
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
সহযোগী অধ্যাপক, ইউরোলজি বিভাগ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। চেম্বার:ঢাকা রেনাল এন্ড জেনারেল হাসপাতাল, ১৬১/এ, লেক সার্কাস, কলাবাগান, ঢাকা প্রষ্টেট ওয়াল নাট আকৃতির ছোট ফাইব্রো মাসকুলার গ্লান্ড যেটা প্রস্রাবের থলির নীচের দিকে তলপেটে অবস্থিত। ইউরেথ্রা বা প্রস্রাবের নালী প্রস্রাবের থলি থেকে যে স্থানে বাহির হয় এটা সেখানে প্রস্রাবের নালী ঘিরে রাখে। প্রষ্টেট গ্রন্থি সারাজীবন বৃদ্ধি পেতে পারে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এই বৃদ্ধির পরিমাণ বেশী হলে মূত্র নিঃসরণে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে। প্রস্টেট পুরুষদের ইন্টারনাল অর্গানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ...
রক্তস্বল্পতা ও প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
বাংলাদেশে ৫ বছরের কমবয়সী শিশুদের শতকরা প্রায় ৫৫ ভাগ রক্তস্বল্পতায় আক্রান্ত। রক্তস্বল্পতা অতি সহজে নিরাময়যোগ্য অপুষ্টিজনিত রোগের একটি। শিশুরা, বিশেষত; বৃদ্ধিরত সময়ে অপুষ্টি বা রক্তস্বল্পতা সমস্যা অতি ঝুঁকিপূর্ণ। শৈশবজীবনে রক্তস্বল্পতা স্বাভাবিক দৈহিক ও মানসিক বৃদ্ধিতে মারাত্মক বিরুপ প্রতিক্রিয়া ফেলে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউনিসেফ প্রদত্ত এক সাম্প্রতিক তথ্যে দেখা যায় বিশ্বে প্রায় ৭৫০ মিলিয়ন শিশু রক্তস্বল্পতায় আক্রান্ত। আফ্রিকা ও দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলোর শিশু কিশোরদের রক্তস্বল্পতার সমস্যা সবচেয়ে বেশী এবং তা মোট সংখ্যার শতকরা ৮০ ভাগকেও ছাড়িয়ে যাবে। ন্যাশনাল ...
প্রস্টেট ক্যান্সার ও চিকিত্সা
০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
প্রস্টেট ওয়াল নাট আকৃতির ছোট ফাইব্রো মাসকুলার গ্লান্ড যেটা প্রস্রাবের থলির নীচের দিকে তলপেটে অবস্থিত। ইউরেথ্রা বা প্রস্রাবের নালী প্রস্রাবের থলি থেকে যে স্থানে বাহির হয় এটা সেখানে প্রস্রাবের নালী ঘিরে রাখে। প্রস্টেট গ্রন্থি সারা জীবন বৃদ্ধি পেতে পারে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এই বৃদ্ধির পরিমাণ বেশী হলে মূত্র নিঃসরণে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে। এই প্রস্টেট গ্রন্থীতে ক্যান্সার রোগ দেখা দিতে পারে। প্রস্টেট ক্যান্সার ৫০-এর বেশি বয়সের পুরুষের অন্যতম ঘাতক ব্যাধি। প্রস্টেট গ্রন্থিতে ক্যান্সার দেখা দিলে মূত্র নিঃসরণে প্রতিবন্ধকতাসহ ...
ইউরেথ্রাল ষ্ট্রিকচার:মূত্রনালীর রোগ
৩১ আগষ্ট, ২০১৩
মূত্রনালী সরু বা সংকীর্ণ হয়ে যাওয়াকে ষ্ট্রিকচার ইউরেথ্রা বলে। এটি অত্যন্ত প্রাচীন একটি রোগ। এই রোগের বর্ণনা প্রাচীন গ্রীক চিকিত্সা বিজ্ঞানে উল্লেখ দেখা যায়। ইউরেথ্রা বা প্রস্রাবের নালী পুরুষের ক্ষেত্রে ২৫ সেঃমিঃ এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে ৪ সেঃমিঃ লম্বা হয়। এটি প্রস্রাবের থলি থেকে প্রস্রাব দেহের বাহিরে নিঃসরণ করে। এটি মোটামুটিভাবে ক্লিনিক্যালি দু'ভাগে বিভক্ত করা হয়। এন্টেরিয়র ইউরেথ্রা ও পোষ্টেরিয়ির ইউরেথ্রা। এন্টেরিয়র ইউরেথ্রা প্রস্রাবের নালীর মুখ, পেনাইল ইউরেথ্রা ও বালবার ইউরেথ্রা নিয়ে গঠিত। পোষ্টেরিয়র ইউরেথ্রা মেম্রেনাস ইউরেথ্রা ও প্রোষ্টেটিক ইউরেথ্রা ...
চুলপড়া সমস্যা নিয়ে বিভ্রান্তি
২৪ আগষ্ট, ২০১৩
বেশ কিছুদিন ধরে চুলপড়া সমস্যা নিয়ে তেমন একটা লেখালেখি করছিনা। কিন্তু গতকালের একটা ঘটনা না লিখে পারছিনা। একজন নিজেকে একটি দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের কর্মকতা পরিচয় দিয়ে আমাকে টেলিফোনে খানিকটা ধমকালেন। ঐ কর্মকর্তার বক্তব্য হচ্ছে তার এক বন্ধুকে চুল পড়ার সমস্যার চিকিত্সা দিয়েছি কিন্তু তার মাথায় চুল গজায়নি বা চুলপড়া কমেনি। বছর কয়েক আগে এক পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীর মাথায় চুল পড়ার সমস্যার কারণে ইনজেকশন দেয়ায় বিপদে পড়ি। অবশ্য ঐ পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী এখন আমার স্থায়ী রোগী। ...
ডায়াবেটিস ও কিডনি রোগ
১৭ আগষ্ট, ২০১৩
ডায়াবেটিস থাকলে রক্তের সুগার মনিটর করা, তদারকি করা গুরুত্বপূর্ণ, তবে তা যথেষ্ট নয়। জন হপকিনস্ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের সহ অধ্যাপক ডা: রিতা কল্যাণী বলেন, যাদের ডায়াবেটিস আছে তারা সবাই এমনকি তাদের চিকিত্সকও কিডনি সমস্যার লক্ষণ আছে কিনা তাও নজর করবেন। ডায়াবেটিসের একটি গুরুত্বর জটিলতা হলো কিডনি নিষ্ক্রিয়া এবং কিডনি ফেইলুর বা নিষ্ক্রিয়ার প্রধান কারণ হলো ডায়াবেটিস। জসিলন ডায়াবেটিক সেন্টারে নেফ্রোলজি বিভাগের প্রধান এবং হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলে সহযোগী অধ্যাপক মেডিসিন ডা: রবার্ট স্ট্যানটন বলেন, 'দুর্ভাগ্যবশত:যাদের ডায়াবেটিস তারা অনেক সময় বুঝতে ...
গর্ভবতী মা ও শিশুর মুখের স্বাস্থ্য
০৩ আগষ্ট, ২০১৩
গর্ভবস্থা একটি চরম উত্তেজনা ও উত্কণ্ঠার সময়কাল। বিভিন্ন আত্নীয়স্বজন ও বন্ধ-বান্ধবের কথা শোনা এবং ডাক্তারের উপদেশ মেনে চলাও আর একটি কাজ। অনেক গর্ভবতী এই সময়ে দাঁত ও মাড়ি নিয়ে বেশ চিন্তিত থাকেন। দাঁতের যত্নে কয়েকটি বিষয় এখানে আলোকপাত করা হলো যা গর্ভাবস্থায় গর্ভবতীর দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখতে সাহায্য করতে পারে। মাড়ির যত্ন অনেক গর্ভবতী হয়ত লক্ষ্য করেছেন দাঁত ব্রাশের সময় মাড়ি থেকে রক্ত বের হয়। এটা অস্বাভাবিক কোনো কিছু নয়। গর্ভাবস্থায় দেহ হরমোনের পরিবর্তন হয় এবং তার প্রতিক্রিয়া ...
সুস্থ ও অসুস্থ অবস্থায় রোজা
২৭ জুলাই, ২০১৩
ইসলামের অন্যতম স্তম্ভ রমজানের রোজা। শুধু আত্মশুদ্ধিই নয়, এ মাস আত্ম- নিয়ন্ত্রণেরও। রোজার অন্যতম লক্ষ্য মানুষের স্বাস্থ্যগত উন্নতি সাধন। রোজা রাখলে অনেকে স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় করেন, কিন্তু প্রকৃত পক্ষে রোজায় কারও স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে গেছে বা রোজা রেখে ক্ষুধা তৃষ্ণায় কাতর হয়ে কারও মৃত্যু হয়েছে, এমন কোন ঘটনার কথা শুনা যায়নি। রোজা কষ্টকর ইবাদত এবং রোজার দ্বারা শরীরে চাপ পড়ে বলে অনেকেই রোজা ছেড়ে দেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে, শরীয়তের বিধান অনুযায়ী সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়া রোজা পরিত্যাগ করা সম্পূর্ণ অনুচিত। সুস্থ ব্যক্তি তো বটেই, অনেক অসুস্থ ব্যক্তিকেও রোজা ছেড়ে দেয়া উচিত হবে না। রমজান মাসে রোজা রাখা সম্পর্কে আল্লাহর নির্দেশ "যে ব্যক্তি রোজার মাসটি পাবে, তারই কর্তব্য হচ্ছে রোজা রাখা। " [সুরা বাক্বারা:১৮৫] অন্য আয়াতে আল্লাহ তাআলা বলেন,"সিয়াম নির্দিষ্ট কয়েকটি দিনের। তোমাদের মধ্যে কেউ ব্যাধিগ্রস্থ হলে বা সফরে থাকলে, অন্য সময় এ সংখ্যা পূরণ করে নিতে হবে। এটা যাদেরকে অতিশয় কষ্ট দেয়, তাদের কর্তব্য এর পরিবর্তে ফিদিয়া ...
রোজা রাখলে রোগ ও স্বাস্থ্যের উপকার
২০ জুলাই, ২০১৩
আল্লাহ তায়ালা বলেন, "রোজা আমার জন্য, আমি নিজে রোজার প্রতিদান দেব।" সব ইবাদতই তো আল্লাহর জন্যই। তাহলে রোজাকে আল্লাহ কেন বললেন 'আমার জন্য।' আসলে সব ইবাদত করার পাশাপাশি তা প্রদর্শনের সুযোগ ও মনোভাব থাকে, যেমন নামাজ, হজ্জ, যাকাত ইত্যাদি। কিন্তু রোজা আল্লাহ এবং বান্দা ছাড়া প্রদর্শনের বা জাহির করার কোন সুযোগই থাকে না। আল্লাহর প্রতি বান্দার আনুগত্যই আমাদের জাগতিক ও পারলৌকিক কল্যাণের মূল নিয়ামক। এই আনুগত্য প্রকাশের অন্যতম উপায় হলো রোজা রাখা। দিনে রকমারি খাবারের প্রাচুয্য থাকার পরও বান্দা ...
ডা:এ বি এম আব্দুল্লাহর স্বাস্থ্য বিষয়ক নির্বাচিত কলাম
২৯ জুন, ২০১৩
ডা.এ বি এম আব্দুল্লাহ একজন স্বনামধন্য চিকিত্সক। তার চিকিত্সা সেবার গুণে দেশের মানুষের কাছে তিনি খুবই জনপ্রিয় চিকিত্সক। অধ্যাপক ডা: এ বি এম আব্দুল্লাহ বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন হিসেবে কর্মরত আছেন। এ পর্যন্ত চারটি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে ভারতের দিল্লি থেকে। বিভিন্ন দেশে চিকিত্সা বিজ্ঞানের ছাত্রদের কাছে তার লেখা চিকিত্সা বিষয়ক গ্রন্থগুলো খুব সমাদৃত। বেশ কয়েকটি দেশে তার লেখা বই পাঠ্য। রোগীকে চিকিত্সা পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি তিনি কিছুদিন ধরে প্রবন্ধ লেখাও শুরু করেছেন। দেখা গেল, তার চিকিত্সার সেবার মতই তার কলামগুলোও পাঠকের কাছে সমাদর পেল। একজন ভালো চিকিত্সক তার রোগীর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করেন। রোগী চিকিত্সককে বিশ্বাস করে তার কথা শুনে মানসিক শক্তি লাভ করে এবং ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওষুধ গ্রহণ করে সুস্থ হয়ে ওঠে। ...
দাঁত ব্যথায় করণীয়
২৯ জুন, ২০১৩
দাঁতে ব্যথা যে কত বেশী অসহনীয় হতে পারে তা কেবল ভূক্তভুগীরাই জানেন। আর দাঁতে ব্যথা কখন হবে এটারও কোন সুনির্দিষ্ট সময় নেই। এমনকি মধ্যরাতেও শুরু হতে পারে তীব্র দাঁতের ব্যথা। এসময় হয়ত কোন দন্ত চিকিত্সকের পরামর্শ পর্যন্ত নেয়ার সুযোগ থাকেনা। তবে যদি কোন চিকিত্সকের পরামর্শ নেয়া যায় তাহলে ভালো। আর যদি চিকিত্সকের পরামর্শ পর্যন্ত অপেক্ষা না করার সময় থাকে তবে তীব্র দাঁতে ব্যথার উপশমে আপনি নিজেই কিছু মামুলি ব্যবস্থা নিতে পারেন। প্রথমত: যে কোন ধরণের ব্যথা নাশক যেমন প্যারাসিটামাল, ডাইক্লোফেনাক সোডিয়াম বা আইব্রুফেন জাতীয় ওষুধ সেবন করতে পারেন। এতে তাত্ক্ষনিক খানিকটা ব্যথা কমতে পারে। সামান্য গরম পানি দিয়ে কুলি করতে পারেন, তবে গরম পানি ব্যবহার করা যাবেনা। 'ওরাজেল' নামের ব্যথানাশক জেল দাঁতের মাড়িতে ব্যবহার করতে পারেন। এতেও ব্যথা কমে যেতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে মাড়ি ফুলে গেলে কোল্ড কম্প্রেসর ভালো কাজ করে। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর্যন্ত এটা করতে পারেন। কাপড়ের মধ্যে একটুকরো বরফ নিয়েও এটা করা যায়। দাঁতের ফাকে ...
চোখের চিকিত্সায় কন্টাক্ট লেন্স
২৯ জুন, ২০১৩
কন্টাক্ট লেন্স এটা একটি চোখের লেন্স, যা চোখের কালো মনির সামনে লাগিয়ে চোখের দৃষ্টি স্বল্পতার চিকিত্সা করা হয়। চোখের অন্যান্য রোগের চিকিসাতেও কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার হয়। কন্টাক্ট লেন্সের ব্যবহার •যারা চশমা পড়তে চাননা তারা পাওয়ার যুক্ত কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারেন। প্লাস, মাইনাস এ্যাসটিগমেটিক সব ধরনের কন্টাক্ট লেন্স পাওয়া যায়। •যাদের কালো মনিতে পুরোনো ঘা আছে, চোখ খোলা ও বন্ধ করার সময় ঘা বারবার কাঁচা হয়ে যায়, তাদের ক্ষেত্রে ব্যান্ডেজ কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা প্রয়োজন। •চোখে চুন পড়লে বিভিন্ন ...
ফলে বিষ:খাবেন সাবধানে
২২ জুন, ২০১৩
চেম্বার:কমফোর্ট ডক্টরস চেম্বার, গ্রীন রোড ঢাকা ফলকে বলা হয় বেহেশতের খাবার। বিজ্ঞানের চোখেও ফল খুবই উন্নত ধরণের খাবার হিসাবে পরিগণিত। আর তাই অসুখ-বিসুখে রোগীর বিছানার পাশে দেখা যায় ফলের সমাহার। সুস্থ থাকার জন্য নিয়মিত কিছু না কিছু ফল গ্রহণের কথা বলা হয়ে থাকে। শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেলসহ বিভিন্ন উপাদানের যোগান দেয় এই ফল। জন্মের কয়েক মাস পর থেকেই তাই শিশুকে ফলের রস খাওয়ানোর উপদেশ দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তু সামপ্রতিককালে আমাদের দেশে ফলে বিষাক্ত রাসায়নিক প্রয়োগের ফলে বেহেশতের খাবার ফলকে ...
চোখের যত্নে পুষ্টিকর খাবার
২২ জুন, ২০১৩
রাহেলার বয়স ৫ বছর। সুন্দর, ফুটফুটে মেয়ে। কিন্তু ২ চোখে দেখেনা। ২ বছর আগে তার জ্বর এবং পাতলা পায়খানা হয়েছিল, তারপর চোখে ঘা হয়ে চোখ নষ্ট হয়ে যায়। রাহেলার মত এরকম অনেক শিশুই এমন অন্ধত্বের শিকার। এমন অন্ধত্বের কারণ জ্বরের কারণে শিশুর খাবার রুচি কমে যায়, আবার পাতলা পায়খানার কারণে শরীরের পুষ্টিকর উপাদান শরীর থেকে বের হয়ে যায়, ফলে শরীরে ভিটামিন এর ঘাটতি দেখা যায় বলে চোখের পানি শুকিয়ে যায় এবং পরবর্তীতে চোখে ঘা এর সৃষ্টি হয়। একে জেরফথালমিয়া বলা হয়। কোন ধরনের খাদ্য উপাদান কেন প্রয়োজন? •ভটামিন এ হল চোখের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য উপাদান। এটা চোখের বিভিন্ন অংশের আবরনকে রক্ষা করে। এর অভাবে চোখ শুষ্ক হয়ে যায়। চোখের কালো রাজাতে ঘা হয় এবং পরবর্তীতে চোখ নষ্ট হয়ে যায়। •ভিটামিন এ-এর সাথে ভিটামিন সি এবং ই এর প্রয়োজনীয়তা আজ প্রমাণিত। এদের এক সাথে এন্টিঅক্সিডেন্ট বলা হয়। এসব ভিটামিন বয়সজনিত চোখের দৃষ্টিক্ষয় অনেকাংশে রোধ করে। •প্রোটিন বা আমিষ জাতীয় ...
গরমের মরমে
২২ জুন, ২০১৩
'আপনি চোখ বন্ধ করলেন। মনে মনে এয়ারপোর্টের দিকে এগিয়ে গেলেন। রাশিয়ার টিকিট কাটলেন। বিমান উড়ছে। সিটিং সার্ভিস। সোজা মস্কো গিয়ে থামল। বাইরের তাপমাত্রা মাইনাস চার-পাঁচ ডিগ্রি। বিমান থেকে নামতেই ভুলটা ধরতে পারলেন। গরম কাপড় আনতে ভুলে গেছেন। লিলেন কাপড়ের ফিনফিনে একটা হাফ হাতার শার্ট পরে আছেন শুধু। ধীরে ধীরে বিমান থেকে নামলেন। হু হু করে ঠাণ্ডা হাওয়ার ঝাপটা এসে লাগল নাকে-মুখে। রাস্তায় নেমে ট্যাক্সি ক্যাবে উঠে বসলেন। ড্রাইভার জানে, কোথায় যেতে হবে। ট্যাক্সি ক্যাবের জানালার কাচ ভাঙা। সেখান দিয়ে ...
হিট স্ট্রোক এড়াতে হলে
০৮ জুন, ২০১৩
দেশটি গ্রীষ্মমণ্ডলে তো বটে, এছাড়া এদেশে গ্রীষ্মকাল ছাড়া অন্য ঋতুর স্থায়িত্ব এতকম যে, সে যে এলো বোজা গেলো তো বোঝা গেলো না। আবার খর রোদে কেউ দিব্যি ভালো থাকেন অন্যরা হন তাপাহত। এর কারণও অজানা। একসময় মনে করা হত সূর্যের কড়া আলো পড়ে শরীরে, প্রচণ্ডতাপ ঢোকে শরীরের বাহির থেকে ভেতরে ফলে পানিশূন্যতা। আর সেজন্যই যত সমস্যা। এই তত্ত্বও ধোপে টিকেনা। অনেক ক্রীড়াবিদ মেঘে ঢাকা দিনে কেন, সূর্যালোক যখন  সরাসরি ছোয়না শরীরকে, তবু কেন অসুস্থ হন। একটু শীতল দিনে, ৮০ ...
গরমে ত্বকের যত্ন
০৮ জুন, ২০১৩
মানুষ মাত্রই সুন্দর, সুস্থ আর চকচকে ত্বক প্রত্যাশা করে। কিন্তু গরমে এই ত্বক হয়ে যায় তেলতেলে, ঘামযুক্ত। এতে ত্বক তার চাকচিক্য হারায়। একটু খানি পরিচর্যা গরমে আমাদের ত্বককে সমস্যামুক্ত রাখতে পারে। ত্বকে আদ্রতা রক্ষা করতে হবে প্রচন্ড গরমে ঘামের মাধ্যমে ত্বকের আদ্রতা কমে যায়। এই সময় প্রচুর পানি খাওয়া দরকার। এছাড়াও প্রয়োজনে ফলের রস, লেবুর রস এবং খাবার স্যালাইনও পান করা যেতে পারে। সুষম খাদ্য গ্রহণ খাদ্যতালিকায় শর্করা বেশী রেখে আমিষ আর চর্বি জাতীয় খাবার কমালে ভাল। প্রচুর সবুজ ...
গরমের খাদ্য তালিকায় যা থাকা প্রয়োজন
০৮ জুন, ২০১৩
বাংলাদেশ ষড় ঋতুর দেশ। এখন গ্রীষ্মকাল। জৈষ্ট্যের প্রচন্ড গরমে ও আদ্রতায় জনজীবন অতিষ্ট। প্রচন্ড সূর্যরশ্মির কারণে স্বাস্থ্য সমস্যা বেড়ে যায়। ডায়রিয়া, হজমের ব্যাঘাত, বমি, জ্বর ও পানি স্বল্পতা, অনেক ক্ষেত্রে হিটস্ট্রোক দেখা দেয়। গরমে সুস্থ থাকার জন্য সঠিক খাদ্য নির্বাচন বা অত্যবশ্যকীয় খাবারের উপস্থিতি শরীরকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে পারে। গরমে প্রচুর ঘামের কারণে শরীর থেকে প্রচুর পানি ও লবণ বের হয়ে যায়। ফলে পানি স্বল্পতা দেখা দেয়। শরীরের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা নিয়ন্ত্রণে পানির প্রয়োজন। তাই শরীরের পানির স্বল্পতা রোধ ...
মূত্রনালি পথে নিঃসরণ
০৮ জুন, ২০১৩
যদি আপনার মূত্রনালি পথে রস নিঃসরণ হয় তাহলে সম্ভবত আপনার যৌনবাহিত সংক্রমণ রয়েছে, যা আপনি অন্যের মধ্যে ছড়াতে পারেন। এ ক্ষেত্রে অবশ ্যই আপনি ডাক্তার দেখাবেন, এমনকি আপনার উপসর্গ চলে গেলেও। মূত্রনালির প্রদাহের কারণ মূত্রনালির প্রদাহকে চিকিত্সা পরিভাষায় বলে ইউরেথ্রাইটিস। মূত্রনালি হচ্ছে একটি নল, যা মূত্রথলি থেকে লিঙ্গের মাথা পর্যন্ত বিস্তৃত। মূত্রনালির প্রদাহ সাধারণত যৌনবাহিত সংক্রমণ দ্ব্বারা ঘটে। তবে সব সময় নয়। এটা সীমাবদ্ধ যৌন সম্পর্কের মধ্যেও ঘটতে পারে। গনোরিয়া:এটা এক ধরনের যৌনবাহিত সংক্রমণ যা মূত্রনালির প্রদাহ ঘটাতেপারে। নন-গনোকক্কাল ইউরেথ্রাইটিস: গনোরিয়া ছাড়া অন্য যেকোনো কারণে মূত্রনালির প্রদাহ হলে তাকে নন-গনোকক্কাল ইউরেথ্রাইটিস বলে। এটার সবচেয়ে সাধারণ কারণ হলো ক্লামাইডিয়া নামক ব্যাকটেরিয়া। এ ধরনের মূত্রনালির প্রদাহ অন্য ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস দ্ব্বারাও ঘটতে পারে। কখনো কখনো কোনো সংক্রমণ ছাড়াও ঘটতে পারে। যেমন-মূত্রনালিতে আঘাত পেলে বা কোনো অপারেশন হলে প্রদাহ হতে পারে। কোনো কোনো পুরুষের একই সময়ে গনোরিয়ার জীবাণু এবং অন্য জীবাণু দ্বারাও মূত্রনালির প্রদাহ হতে পারে। মূত্রনালির প্রদাহের উপসর্গগুলো: সাধারণত লিঙ্গের মুখ ...
মহিলাদের হার্ট এ্যাটাক
০১ জুন, ২০১৩
হার্ট এ্যাটাক যখন হয়, তখন নারীদের ক্ষেত্রে পুরুষদের মত উপসর্গ নাও হতে পারে। হতে পারে অন্য রকম উপসর্গ। বুক ভেঙ্গে ব্যথা, একটি বাহু বেয়ে ব্যথা নিচে চলে আসা, এমন বৈশিষ্ট্যপূর্ব উপসর্গ নাও হতে পারে। অনেক সময় অস্পষ্ট, নীরব উপসর্গ-যা নজরে পড়েনা অনেক সময়ই। দেখা যায়, ছয় রকমে উপসর্গ হতে পারে নারীদের হার্ট এ্যাটাকের সময়। তাই সেই সব জেনে রাখা ভালো। ১. বুকে ব্যথা বা অস্বস্থি বুকে ব্যথা হলো সচরাচর উপসর্গ। তবে অনেক নারীর তেমন ব্যথা হতে পারে পুরুষদের তুলনায় ...
হাতে কাটাদাগে কসমেটিক সার্জারি
০১ জুন, ২০১৩
আজকাল প্রচুর ছেলে-মেয়ে পাচ্ছি যাদের হাতে ব্লেড দিয়ে কাটা দাগ বা হাত কেটে খোদাই করে প্রিয়জনের নাম লেখা। এসব ক্ষেত্রে মূলত: ছেলে-মেয়েরা অথবা ক্ষেত্র বিশেষ বাবা-মা অভিভাবকগণ ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে নিয়ে আসেন। জীবনের কোন বিশেষ মূহুর্তে অথবা জীবনের প্রতি বীতশ্রদ্ধ হয়ে কিছু দিয়ে কেটে প্রতিশোধ নিতে চায়। আবার অনেকে হাতের ওপর কেটে প্রিয়জনের নাম লিখে নেয়। জীবনে যখন বাস্তবতা আসে তখন আবেগ ফিকে হতে শুরু ...
শিশুর চোখের অসুখ গ্লুকোমা
০১ জুন, ২০১৩
গ্লুকোমা হলো চোখের ভেতর তরল পদার্থের চাপ স্বাভাবিক অবস্থা থেকে বৃদ্ধি পেলে সাধারণ পরিভাষায় তাকে গ্লুকোমা বলে। চোখের ভিতর সারাক্ষণ পানি উত্পাদনের ফলে চোখকে যেমন গোলাকৃত রাখতে সাহায্য করে, তেমনি চোখের নানা অংশের পুষ্টি বহন করে এই পানি। চোখের ভিতর সঞ্চালিত হওয়ার পর পানি চোখের কোণার সরু পথ দিয়ে বাহিরে এসে রক্তে মিশে যায়। এই পানি সঞ্চালনের পথে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে জমা হতে থাকলেই চোখের ভিতরের চাপ বাড়তে থাকে। স্বাভাবিক চোখের চাপ ১০-২১ মিমি: পারদ। ধীরে ধীরে বেড়ে যাওয়া উচ্চ চাপ চোখের দৃষ্টিশক্তির জন্য নির্ভরশীল উপাদানগুলোর স্থায়ী ক্ষতি সাধন করে এবং দৃষ্টি হারিয়ে যায় চিরতরে। শিশুদের জন্মের সময় চোখের পানির বাহির হওয়ার সরু পথ যদি বন্ধ থাকে তবে চাপ ক্রমশ বাড়তে থাকে। উচ্চ চাপের ফলে চোখের ভিতর স্নায়ুর রক্ত প্রবাহ কমে স্নায়ু শুকিয়ে যায়। এর ফলে দৃষ্টি সীমা বা দৃষ্টি পরিধি কমতে থাকে। শিশুদের ক্ষেত্রে উচ্চ চাপে চোখের পরিধি বেড়ে যায়, চোখ বড় গোলাকৃতি ধারণ করে, কর্নিয়ায় পানি জমে এবং ...
ত্বকের আধুনিক চিকিত্সা শহর থেকে গ্রামে
২৫ মে, ২০১৩
অনেক দিন ধরে একটা বিষয় লিখবো লিখবো ভাবছি। কিন্তু আর লেখা হলোনা। তবে আমার চেম্বারে যেসব নান া ক্ষেত্রে তারকারা রোগী হয়ে আসেন তাদের এ গল্পটা বলি। সর্বশেষ আমার চেম্বারে এলেন দেশের একজন শীর্ষস্থানীয় প্রিন্টিং উদ্যোক্তা। যাকে নিয়ে আমার বন্ধু রেজানুর রহমান (বর্তমানে আনন্দ আলো সম্পাদক) ইত্তেফাকে কাজ করার সময় লিখেছিলেন 'জিরো থেকে হিরো' নামের একটি চমত্কার গল্প। সেই মহতি উদ্যোক্তাকে আমার চেম্বারে বেশ খানিকটা সময় অপেক্ষার কারণে রোগী দেখার ফাঁকে ফাঁকে নানা কথা বলি। সাধারণত: সামরিক-বেসামরিক, প্রশাসন, রাজনৈতিক ...
প্রস্টেট গ্রন্থির প্রদাহ
১৮ মে, ২০১৩
প্রস্টাইটিস এ রোগীর শরীরে ব্যথা বা ম্যাজ ম্যাজ ভাব, খুব জ্বর আসা, ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া, প্রস্রাবে জ্বালা যন্ত্রণা, শরীরে মূত্রথলি বরাবর জায়গায় ব্যথা, পায়ু পথ ও মেরুদন্ডের সর্বনিম্ন অংশ বরাবর ব্যথা, প্রস্রাবের শেষে দুই এক ফোটা রক্ত পড়া প্রভৃতি। বয়ষ্ক পুরুষ প্রষ্টেট গ্লান্ড বড় হওয়াজনিত সমস্যা আছে তাদের ক্ষেতে এই উপসর্গ ছাড়াও হঠাত্ প্রস্রাব আটকে যেতে পারে। পুরুষদের প্রেষ্টেট গ্লান্ডের প্রদাহ রোগকে প্রস্টাটাইটিস বলা হয়। পুরুষদের যৌবনে পদার্পণ থেকে যে কোন সময় এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ...
স্লিম ফিগারঃ কেমন চাই খাদ্য
১১ মে, ২০১৩
তলপেটে মেদ নিয়ে দুর্ভাবনা আছে। আর এর কারণও আছে। শরীরে অন্যত্র মেদ জমার চেয়ে তলপেটের মেদ অনেক গুরুগম্ভীর, অনেক বেশি ভাবনার। নিতন্ত ও উরুতে মেদ জমার চেয়ে বিপজ্জনক তো বটেই। আর তলপেটের এই মেদের সঙ্গে সম্পর্কিত নানা রকমের বড় বড় অসুখ যেমন- হূদরোগ, স্ট্রোক ও টাইপ-২ ডায়াবেটিস। শরীর ভারি হওয়ার সঙ্গে জীনগত প্রবণতাও আছে বটে। কোথায় বেশি মেদ হবে তাও হয়ত কিছুটা নির্ধারিত তবে জীবন যাপন পছন্দ যে এই ইস্যুকে বেশ শোচনীয় করে তুলতে পারে তা বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন। অনেকের ...
ভিটামিন বি-১ কেন প্রয়োজন
০৪ মে, ২০১৩
খাদ্য ও পুষ্টিবিদ ১৮০/১, পূর্ব রামপুরা, ঢাকা। আমরা সবাই কমবেশি ভিটামিন বি-১ বা থায়ামিনের নাম শুনেছি। এবং আমরা এও জানি যে ভিটামিন আমাদের দেহের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আমি আজকে আপনাদের জানাতে চাই ভিটামিন বি-১ বা থায়ামিন ভিটামিনের কথা। এই ভিটামিন আমাদের দেহের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং আমাদের দেহে কিভাবে কাজ করে। আমরা সবাই জানি যে, আমাদের দেহে শক্তি তৈরি করে কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা জাতীয় খাদ্য। অর্থাত্ শক্তি উত্পাদনই হচ্ছে শর্করার প্রধান কাজ। আর এই কাজটি আমাদরে দেহে দুটি ...
মস্তিষ্কসচল রাখতেকি খাবেন
০৪ মে, ২০১৩
বুঝে শুনে খাবার খেলে যদি ক্যান্সার প্রতিতিরোধ করা যায়, হূদযন্ত্র সচল রাখা যায় তাহলে মগজকে কেন শাণিত করা যায় না? অবশ্যই যায়। এ ব্যাপারে প্রথম পরামর্শ হলো এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার। এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কোষের ক্ষতিকর জৈব-রাসায়ণিক প্রক্রিয়ায় উত্পন্ন ক্ষতিকর যৌগগুলোকে ভেঙ্গে ফেলে। ফলে কোষগুলো থাকে কর্মক্ষম আর তারুন্যদীপ্ত। তাছাড়া এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শিরা-ধমনীর স্থিতিস্থাপকতা বাড়ায়, হূদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। ফলে হূিপন্ড সচল, মগজটাও টনটনে। প্রাণীজ আমিষ খেয়ে শরীরে হিমোসিস্টিন নামক এক ধরনের এ্যামাইনো এসিড উত্পন্ন হয়। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এই হিমোসিস্টিন উত্পাদনের প্রক্রিয়াও বেড়ে যায়। এই হিমোসিস্টিন ধমনীর প্রাচীরে জমে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। তাই মাছ-মাংস পরিমিত খাওয়াই সঙ্গত। তাহলে কি খাবেন? আগেই বলা হয়েছে এ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমৃদ্ধ খাবার। মূলত ভিটামিন ই এবং সি হলো এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ভিটামিন। দুধ, কলিজা, সয়াবিন, সবুজ শাক সবজি, ফলমূলে প্রচুর এ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। সমপ্রতি পশ্চিমা গবেষকরা নিদৃষ্ট কিছু খাবারের ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করছেন। এগুলো হলো পালং শাক, ব্লু-বেরী এবং ষ্ট্র বেরী। সয়াবিন আর রসুনের প্রতিও তারা আলাদা গুরুত্ব দিচ্ছেন। তাদের যুক্তিটা ...
ছক্কা মারা এত সোজা!
২৮ এপ্রিল, ২০১৩
মাত্র ৬৬ বলে অপরাজিত ১৭৫ রান করে সারাবিশ্বকে আরেকবার দেখালেন তাঁর অতিমানবীয় ক্ষমতা। ২১ এপ্রিল আইপিএলে তিনি মাত্র ৩০ বলে সেঞ্চুরি করেন, যা কোনো ধরনের ক্রিকেটে দ্রুতগতির শতক। এ ইনিংসে ছিল ১৭টি ছক্কা। শুধু টি-টোয়েন্টি কিংবা ওয়ানডে নয়, তিনি টেস্ট ক্রিকেটেরও অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। টেস্টে তাঁর রয়েছে দুটি ট্রিপল সেঞ্চুরি। গেইলের জন্ম ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৭৯, জ্যামাইকায়। আমার ছোটবেলা কেটেছে রোলিংটন শহরে। সাবিনা পার্কের ছায়ায় বড় হতে হতে সব সময় দুটো স্বপ্ন দেখতাম। প্রথম স্বপ্ন ছিল, আমি জ্যামাইকার হয়ে খেলব। ...
রোজ দাঁত ব্রাশ না করলে ক্যাভিটি ও দাঁতে ব্যথা
২০ এপ্রিল, ২০১৩
দাঁতের সঠিক যত্ন নেওয়া সুস্থ, নীরোগ শরীরের জন্য একান্তই গুরুত্বপূর্ণ। দাঁতের সঠিক যত্ন না নিলে দেখা দিতে পারে নানা সমস্যা এবং অসুখ। দাঁতে ক্যাভিটি, দাঁতে ব্যথা, মুখে গন্ধ হওয়ার সাথে সাথে অনেক সময় দাঁত না মাজার কারণে পেট খারাপ হতে পারে। এমন অনেকেই আছেন যারা কখনও ভুলবশত বা আলস্যতার কারণে প্রতিদিন দাঁত মাজেন না। ভাবেন হয়ত মাউথ ওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে নিলে অথবা মুখে পিপারমেন্ট কিংবা মুখে চুইংগাম নিলেই হবে। বলা বাহুল্য, এমন অভ্যেস অথবা চিন্তা ভাবনা একেবারেই ভুল। ...
প্রতিদিন কতটুকু চিনি খাওয়া উচিত
২০ এপ্রিল, ২০১৩
অনেকেই চিনি খেতে ভালবাসে। এর মিষ্টি স্বাদ প্রায় সবার প্রিয়। কিন্তু অতিরিক্ত চিনি খাওয়া মোটেই ভাল নয়। মাত্রাতিরিক্ত চিনি শরীরের জন্য নানা বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশন মহিলাদের প্রতিদিন অনধিক ১০০ ক্যালরি (২৫ গ্রাম) এবং পুরুষদের অনধিক ১৫০ ক্যালরি (৩৫.৭ গ্রাম) চিনি খাবার পরামর্শ দিয়েছেন। এক চা-চামচ চিনিতে থাকে ১৬ ক্যালরি। মার্কিনরা গড়ে প্রতিদিন ২২ চা চামচ চিনি খান। এই বাড়তি চিনি তাদের পেটে যায় রান্নায় ব্যবহূত উচ্চ ফ্রাকটোজ যুক্ত কর্ণ সিরাপ, প্রক্রিয়াজাত খাবার, চা বা কফি ...
চুলপড়া সমস্যা-২৯
১৩ এপ্রিল, ২০১৩
আমি সব সময় বলে আসছি। চুলপড়া কোন সমস্যা নয়। শরীরের ইন্টারনাল নানা সমস্যা, হরমোনের সমস্যা, বংশগত কারণ, ক্র্যাশ ডায়েটিং, ইনফেকশন, হাই এন্টিবায়োটিক, দীর্ঘ মেয়াদী মানসিক চাপ সহ নানা কারণে চুলপড়তে পারে। আর সবচেয়ে উদ্বেগজনক তথ্য হচ্ছে চুলপড়ার কোন চিকিত্সা নেই। কি কারণে চুলপড়ছে সেই কারণ যদি সনাক্ত করা যায় তাহলে চুলপড়া কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়। কিন্তু বেশীরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় রোগীরা একের পর এক ডাক্তার চেঞ্জ করে। পরিবর্তন করে ওষুধ। এতেও কোন সমস্যা ছিলোনা। ইদানিং চিকিত্সা, ডাক্তার, ...
লেখা আহ্বান
১০ এপ্রিল, ২০১৩
দৈনিক ইত্তেফাকেরস্বাস্থ্য পাতায় দেশের বিভিন্ন খ্যাতিমান চিকিত্সকগণ লিখে থাকেন। যে কোন রোগ-ব্যাধি, কেস হিস্ট্রি, অপারেশন, খাদ্য-পুষ্টি, ব্যায়াম, মজার মজার হেলথ টিপস ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখতে পারেন। নবীন চিকিত্সকরাও লিখতে পারেন। ই-মেইলেও লেখা পাঠানো যাবে। লেখকের রঙিন ছবি ও পূর্ণ ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিতে হবে। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: বিভাগীয় সম্পাদক, স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ই-মেইল: ittefaq_health@yahoo.com ...
দাঁতের সমস্যা থেকে মাথা চোখ ও কানের ব্যথা
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
অধ্যাপক ড. অরূপ রতন চৌধুরী  বিভাগীয় প্রধান, ডেন্টেষ্ট্রি বিভাগ, বারডেম ইব্রাহীম মেডিকেল কলেজ চেম্বার:১৫/এ গ্রীণ রোড, ঢাকা কথায় বলে যার মাথা আছে তার ব্যথাও আছে। অর্থাত্ মাথা থাকলে ব্যথাও থাকবে। বিজ্ঞানীদের মতে মাথার ব্যথা অন্যান্য কারণে হতে পারে। তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে বেশীর ভাগ মাথা ব্যথার কারণ শুধুমাত্র মাথার অসুস্থতার কারণেই হয় তা সঠিক নয়। শরীরের অন্যান্য অঙ্গ প্রতঙ্গের অসুস্থতার কারণেও মাথা ব্যথা হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ নাক, কান, গলা অথবা মুখের ভিতরের বিশেষ কোনো রোগের কারণে মাথা ব্যথা ...
পাইলোনিডাল সাইনাস
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
কো-অর্ডিনেটর এন্ড সিনিয়র কনসালটেন্ট জেনারেল এন্ড ল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি এ্যাপোলো হসপিটালস ঢাকা পাইলোনিডাল শব্দের অর্থ হচ্ছে গুচ্ছচুল, সাইনাস বলতে বোঝায় শরীরের যে কোন জায়গায় একটি ছোট অস্বাভাবিক সরু সুড়ঙ্গের মত পথ। পাইলোনিডাল সাইনাস হচ্ছে তেমনই একটি সরু পথ যাতে চুল বা লোম থাকে। সময়ে সময়ে এই পথটি থেকে ত্বকে পুঁজ নিঃসৃত হয়। এটি মলদ্ব্বার থেকে কিছু দূরে সামান্যা উপরে দুই নিতম্বের মাঝে ত্বকের নীচে লম্বালম্বি ভাবে তৈরী হয়। এই স্থান ছাড়া শরীরের অন্য কোন স্থানে পাইলোনিডাল সাইনাসের উপস্থিতি খুবই বিরল। চিকিত্সা হিসাবে এই রোগের অপারেশনের প্রয়োজন হয়। অপারেশনের পরে, নিয়মিত শেভ করার মাধ্যমে বা অন্য উপায়ে লোম দূর করার মাধ্যমে, ঐ স্থানটি লোম মুক্ত রাখতে হবে। ...
গর্ভপাতে হূদরোগের ঝুঁকি
৩০ মার্চ, ২০১৩
যে সকল মহিলাদের ক্ষেত্রে একাধিকাবার অকালে গর্ভপাত এম মৃতশিশু জন্মের ঘটনা ঘটছে, পরবর্তী জীবনে তাদের হূদআক্রমণের ঝুঁকি বহুলাংশে বেড়ে যায়। সম্প্রতি ১১,০০০ ইউরোপীয় মহিলার উপর গবেষণা চালিয়ে বিজ্ঞানীরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন। ক্যান্সার ও পুষ্টি বিষয়ক অনুসন্ধানের আওতায় গবেষকরা এই মহিলাদের উপর পরীক্ষা পরিচালনা করেন। এদের মধ্যে শতকরা ২৫ জন কমপক্ষে একবার অকালে গর্ভ হারিয়েছেন এবং শতকরা ২ জন মৃত শিশু প্রসব করেছেন। এদের মধ্যে ৮২ জনের হূদআক্রমণ এবং ১১২ জনের সন্ন্যাস এর ঘটনা ঘটে। গবেষকরা দেখেছেন যে, যারা অন্তত একবার মৃত শিশু প্রসব করেছেন, শেষ জীবনে তাদের হূদআক্রমণের ঝুঁকি প্রায় ৩.৫ গুণ বেড়ে যায়। একাধিক মৃত শিশুর জন্ম দিয়েছেন যারা, প্রতি ঘটনায় তাদের ক্ষেত্রে হূদআক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে ২.৬৫ গুণ। আরো বেশিবার অকালে গর্ভপাত ঘটেছে যে সকল মহিলাদের তাদের হূদ আক্রমণের ঝুঁকি আরো বেশি। যাদের অকালে গর্ভপাত ঘটেনি তাদের তুলনায় যাদের তিনবার অকালে গর্ভপাত ঘটেছে, তাদের হূদ আক্রমণের ঝুঁকি পাঁচগুণ বেশি। এদের ক্ষেত্রে প্রতিটি অকাল গর্ভপাত হূদ আক্রমণের ঝুঁকি ...
চুলপড়া সমস্যা-২৮
৩০ মার্চ, ২০১৩
আমি সব সময় বলে আসছি চুলপড়া কোন রোগ নয়। নানা কারণে চুল পড়তে পারে। আমি সাধারণত: চুল পড়ার কারণ বের করার জন্য রোগীর চুল পরীক্ষা ট্রাইকোগ্রাম ছাড়াও রোগীর সঙ্গে দীর্ঘ সময় কথা বলি। জানতে চেষ্টা করি শরীরিক কারণ ছাড়াও অন্য কোন কারণে চুল পড়ছে কিনা। গত সপ্তাহের কথা চুলপড়া সমস্যা নিয়ে এসেছেন ২৫/৩০ বছর বয়সের এক ভদ্রমহিলা। সঙ্গে গৃহকর্তা। জানতে চাইলাম হঠাত্ রেগে যান কিনা। স্বামীর সামনে এমন প্রশ্নে সত্যিই সত্যিই ভদ্র মহিলা রেগে গিয়ে বললেন ডাক্তার সাহেব চুলের ...
মধ্যচল্লিশে নারীর সমস্যা
২ মার্চ, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। নারী যখন মধ্যচল্লিশে তখন জীবনে একটি নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয় তাদের। জীবনের এ এক সন্ধিক্ষণ। জীবন যাপনকে নতুন করে গোছানো, ঢেলে সাজানোর সময় তখন। ঋতুবন্ধের কাছাকাছি এ সময়কে চিকিত্সা বিজ্ঞানে বলে 'পেরিমেনোপোজ'। গড় পড়তা ৪৫ বছর বয়সে এ পরিবর্তনের শুরু এবং তা চলে ৫৫ পর্যন্ত। এ সময় ডিম্বাশয় থেকে ইস্ট্রোজেন ক্ষরণ কমে আসে, নারী শরীরে ক্রমে ক্রমে ঘটে পরিবর্তন। ঋতুস্রাব কম হতে হতে এক সময় বন্ধ হয়ে যায়। এভাবে আসে ঋতুবন্ধ। নারীর ঋতুচক্রের  ...
ডায়াবেটিস রোগীর মুখের স্বাস্থ্য
২ মার্চ, ২০১৩
ডায়াবেটিস রোগের জন্য দাঁতের মাড়ি এবং হাড়ে (যা দাঁতকে যথাস্থানে রাখতে সাহায্য করে) ইনফেকশন হতে পারে। অন্যান্য ইনফেকশনের মত রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে গেলে দাঁতের মাড়িও আক্রান্ত হতে পারে। এই সমস্যাকে প্রতিরোধ করার জন্য বছরে অন্তত দু'বার ডেন্টিস্ট এর শরণাপন্ন হওয়া উচিত এবং অবশ্যই ডাক্তারকে আপনার ডায়াবেটিস সর্ম্পকে  অবহিত করা প্রয়োজন। ডায়াবেটিস রোগীদের দাঁতের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার এটাই প্রধান উপায়। পরামর্শ সমূহ ১. ডায়াবেটিস অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে  রাখা প্রয়োজন এবং যখনই ডেন্টিস্ট এর কাছে যাবার প্রয়োজন হবে তখনই আপনার ডায়াবেটিসের  - ...
পুষ্টিকর সবজি বাঁধাকপি
২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
বাঁধাকপি বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় পুষ্টিকর শীতকালীন সবজি। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন 'এ' (ক্যারোটিন), 'বি' ও 'সি' এবং ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও অন্যান্য পুষ্টি উপাদান রয়েছে। পশ্চিম ইউরোপ ও ভূমধ্যসাগরের উত্তর উপকূলবর্তী দেশসমূহ বাঁধাকপির উত্পত্তি স্থান বলে ধারণা করা হয়। পরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এর বিস্তার লাভ করেছে। বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্র বাঁধাকপির চাষ হয়। বাঁধাকপি Cruciferae পরিবারের একটি গুরুত্বপূর্ণ সবজি। এর বৈজ্ঞানিক নাম Brassica Oleracea Var. Capitata L. বাঁধাকপির অগ্রভাগের স্ফীত কচিপাতাসমূহই খাওয়ার জন্যই এর চাষ করা হয়। পুষ্টি বিজ্ঞানীদের মতে, ...
ডায়াবেটিক রোগীর জরুরী পরীক্ষা
২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ডায়াবেটিস রোগী ছাড়াও যাদের নিকট আত্মীয়ের ডায়াবেটিস আছে, যাদের ওজন বেশী, ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রমের কাজ তেমন করেন না, তারা নিম্নে উল্লেখিত রক্তের পরীক্ষাগুলোর মাধ্যমে ডায়াবেটিস সম্পর্কে জানতে পারেন। খালি পেটে বা খাবারের আগে (Fasting Blood Glucose): এ পরীক্ষাটি সকালে নাস্তার আগে খালি পেটে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৬.১ মিলি মোল/লিটার বা তার কম। খাবারের দুই ঘন্টা পরে (2 Hour After Breakfast): এ পরীক্ষাটি নাস্তা খাওয়ার দুই ঘন্টা পরে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ১০ মিলি মোল/লিটার বা তার কম যে কোন সময় (Random): এ পরীক্ষাটি দিনের যে কোন সময় করা যেতে পারে। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৫.৫ থেকে ১১.১ মিলি মোল/লিটার Oral Glucose Tolerance Test (OGTT): যাদের খালি পেটে FBG ৬.১ এর বেশী কিন্তু ৭.০ মিলি মোল/ লিটারের কম কিংবা দিনে যে কোন সময় ৫.৫ এর বেশী কিন্তু ১১.১ মিলি মোল/ লিটারের কম, তাদের এ পরীক্ষাটি করা খুবই জরুরি। ...
ডায়রিয়া চিকিত্সা : রাইস স্যালাইন বনাম গ্লুকোজ স্যালাইন
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
শিশু মৃত্যুর অন্যতম কারণ ডায়রিয়া। বাংলাদেশে বিশ্বের সবচেয়ে বৃহত্ আধুনিক ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচী পরিচালিত হলেও এ দেশেই ডায়রিয়া জনিত মৃত্যু হার বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় এখনো বেশি। ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণের যুগান্তকারী আবিষ্কার খাবার স্যালাইনও আবিষ্কার হয় এদেশের কলেরা রিসার্স প্রতিষ্ঠান মহাখালীস্থ আইসিডিডিআরবিতে। আর এই আইসিডিডিআরবি পরবর্তীতে উদ্ভাবন করে রাইস বেসড খাবার স্যালাইন বা ডায়রিয়া চিকিত্সা ও প্রতিরোধের মুখে খাওয়ার স্যালাইন। আইসিডিডিআরবির হাসপাতালে হাজার হাজার শিশুদের এই রাইস স্যালাইনের মাধ্যমে সুস্থ করা হলেও সারা দেশে এখনও ডায়রিয়া চিকিত্সায় এই রাইস স্যালাইন ...
মূত্রনালী সঙ্কীর্ণ হয়ে যাওয়া
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
ইউরেথ্রাল স্ট্রিকচার হলো মূত্রনালী সঙ্কীর্ণ হয়ে যাওয়া। এই সঙ্কীর্ণতা ঘটে আঘাত বা রোগ যেমন মূত্রপথের সংক্রমণ বা মূত্রনালীর প্রদাহের কারণে। ইউরেথ্রাল স্ট্রিকচারের প্রাথমিক স্তরে রোগীর প্রস্রাবের সময় ব্যথা করে এবং প্রস্রাব করার পর মূত্রথলি সম্পূর্ণ খালি হয় না। ইউরেথ্রাল স্ট্রিকচার প্রস্রাবের ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা ঘটাতে পারে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রস্রাব আটকে যায়, তখন জরুরি চিকিত্সার প্রয়োজন হয়। কারণ স্ট্রিকচার মূত্রথলি থেকে পুরুষাঙ্গের মাথা পর্যন্ত যেকোনো স্থানে হতে পারে। স্ট্রিকচারের সাধারণ কারণের মধ্যে রয়েছে মূত্রনালীতে আঘাত এবং মূত্রপথের ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া জনিত সংক্রমণ। সাধারণ কথায় ইউরেথ্রাল স্ট্রিকচারের কারণগুলো হলো: ++মূত্রনালী বা পুরুষাঙ্গে আঘাত। ++আঘাতজনিত পেলভিক ফ্রাকচারের সাথে সম্পৃক্ত মূত্রনালীতে আঘাত যেমন-মোটরগাড়ি দুর্ঘটনা, পড়ে যাওয়া, কলকারখানায় আঘাত ইত্যাদি। ...
চুলপড়া সমস্যা-২৪ চুল সম্পর্কে যা জানা দরকার
৯ ফেব্রয়ারি, ২০১৩
চুলপড়া সমস্যা বা হেয়ার লস নিয়ে যত জানতে চেষ্টা করছি ততই মনে হচ্ছে আসলে কিছুই জানা হলোনা। আমাদের এই না জানার পিছনে, না শেখার পিছনে বড় কারণ হচ্ছে আমাদের ব্যবসা। ডাক্তারী ব্যবসা বললে অনেকে ক্ষিপ্ত হন। তাই ডাক্তারী প্রাকটিস বলাই ভালো। আমরা যদি ডার্মাটোলজির বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাবস্পেশালিটি গড়ে তুলতে পারি এবং চুলপড়া সমস্যার ক্ষেত্রে আমাদের মনযোগ বাড়ে তবে আমি বিশ্বাস করি একদিন বহু ডার্মাটোলজিষ্ট শুধু হেয়ার লস ট্রিটমেন্টে উত্সাহী হবেন। আজকের বিশ্বে চুল শুধু মামুলি একটি বিষয় নয়। চুল ...
উচ্চ রক্তচাপকমানোর উপায়
২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৩
খাবার হতে পারে উচ্চ রক্তচাপ কমানোর একটা ভালো কৌশল। 'ড্যাশ' (DASH) মানে Dietary Approaches to Stop Hypertension. উপযুক্ত খাবার গ্রহণের মাধ্যমে উচ্চ রক্তচাপ কমানোর প্রচেষ্টা। উচ্চ রক্তচাপ কমানোর জন্য এমন সব খাবারের পরিকল্পনা করতে হবে যাতে থাকবে পর্যাপ্ত ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম। কারণ খাদ্যের এসব উপাদান উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সহায়ক। উচ্চ রক্তচাপ কমানোর জন্য জীবন যাপনের ধরণ পরিবর্তনের পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন আনতে হবে। ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে বেশি বেশি। লবণ খেতে হবে কম। ...
নিপাহ ভাইরাস: প্রয়োজন সচেতনতা
৫ জানুয়ারি ২০১৩
নিপাহ ভাইরাস প্রথম নজরে আসে মালয়েশিয়ায় ১৯৯৯ সালে। এ সময় মালয়েশিয়ার আচেহ প্রদেশের নিপাহ গ্রামে শুকর পালকদের মধ্যে এ ভাইরাসজনিত রোগ মহামারি আকারে দেখা দেয়। তারপর থেকে এ পর্যন্ত দক্ষিণ এশিয়ায় নিপাহ ভাইরাসজনিত রোগের বার চৌদ্দটি মহামারি দেখা দিয়েছে। মালয়েশিয়ায় শুকর থেকে মানুষের শরীরে নিপাহ ভাইরাসজনিত রোগ সংক্রমিত হয়েছিল। শুধু শুকরের শরীরে নয়, বাদুরের শরীরেও নিপাহ ভাইরাস থাকে। এবং বাদুরের লালা ও প্রস্রাবের মাধ্যমে এসব ভাইরাস মানুষের শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। বাংলাদেশ ও ভারতে বাদুর থেকে মানুয়ের শরীরে এসব ...
চোখের ঘা থেকে সাবধান
৫ জানুয়ারি ২০১৩
আমাদের চোখের সামনের অংশে যে গোলাকার কাল অংশ দেখা যায়, তাকে কাল রাজা বা কর্ণিয়া বলা হয়। কোন কারণে কর্ণিয়ার প্রদাহ এবং পরবর্তীতে ঘা তৈরী হওয়াকে কর্ণিয়াল আলসার বা কাল রাজার প্রদাহ বলা হয়। কেন এই রোগ হয় চোখের আঘাতজনিত কারণে এই রোগ সবচেয়ে বেশী হয়। আমাদের দেশে ধান কাটার মৌসুমে ধানের পাতার আঘাতের কারণে এই রোগের আক্রমণ বেশী দেখা যায়। অপুষ্টিজনিত কারণে বিশেষ করে ভিটামিন 'এ' এর অভাবে শিশুদের মধ্যে এ রোগ বেশী দেখা যায়। যাদের চোখের পাপড়ির গোড়ায় সব সময় অপরিস্কার রাখার জন্য প্রদাহ বা ব্লেফারাইটিস হয়, তাদের চোখে কর্ণিয়ার প্রদাহ হতে পারে। নেত্রনালী বন্ধ জনিত চোখের পানি পড়া রোগের কারণেও কাল রাজার প্রদাহ হতে পারে। এ রোগের লক্ষণ আলোতে চোখ খুলতে না পারা। ...
ক্যান্সার প্রতিরোধী খাবার
২৯ ডিসেম্বর ২০১২
খাবার দাবারের ধরন, ব্যায়াম না করার অভ্যাস আর শরীরের বাড়তি ওজন শতকরা প্রায় ৪০ ভাগ ক্ষেত্রে এসবই ক্যান্সারের কারণ। আবার সব ধরনের ক্যন্সারের প্রায় ৩০ শতাংশই খাবারের সাথে সম্পর্কযুক্ত। খাবারের ধরন ক্যন্সারের একটা রিষ্ক ফ্যাক্টর। খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করে ক্যান্সার প্রতিরোধ করা সম্ভব। অতএব, খাবার হচ্ছে ক্যান্সারের পরিবর্তনযোগ্য রিষ্ক ফ্যাক্টর। খাবারে বেশি বেশি ফলমূল, শাক সবজি থাকলে কোন কোন ক্যান্সার ও ক্রনিক অসুখ কম হয়। এসব খাবারে আছে ক্যান্সার প্রতিরোধী কিছু উপাদান। ক্যান্সার প্রতিরোধী কয়েকটি খাবারের উদাহরণ হচ্ছে: টমেটো টমেটোতে ...
স্লিম থাকতে টমেটো
২৯ ডিসেম্বর ২০১২
ছিপছিপে থাকতে রোজ টমেটো খাওয়া ভালো। টমেটো ভিটামিন-সি ভরপুর। হূিপণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। টমেটো বা টমেটোর জুস খেলে কয়েক সপ্তাহের ভেতর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে। টমেটো খেলে বাড়তি ওজন লাঘব হয় বলে বিশেষজ্ঞগণ দাবি করেন। কারণ টমেটোর এমন কিছু যৌগ আছে যেগুলি খিদে বাড়ানোর হরমোনের মাত্রায় পরিবর্তন ঘটায়। খাই খাই ভাবকে দূরে রাখে। ফলে বাড়তি খাওয়ার ইচ্ছা কমে। যদিও এর পেছনে কোন উপাদান সক্রিয় জানা যায় নি। অনুমান লাইকোশেন, যার জন্য টমোটো লাল দেখায় সেই উপাদানের এখানে ভূমিকা আছে। ...
অতিরিক্ত ভিটামিন ক্ষতিকর
৮ ডিসেম্বর ২০১২
প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে অনেকে যখন তখন ভিটামিন খেয়ে থাকেন। ভিটামিন হলো শরীরে জন্য এক অত্যাবশ্যক জৈব যৌগ। ভিটামিন শরীরের মেটাবলিজম বা বিপাক কাজে সহায়তা করে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। শুধু তাই নয়, ভিটামিন দাঁত এবং হাঁড়ের গঠনে সাহায্য করে,অন্ধত্ব প্রতিরোধ করে এবং শরীরের ক্ষয়পুরণে সাহায্য করে। কিন্তু অতিরিক্ত ভিটামিন গ্রহণ করলে তা আর্শীবাদের চেয়ে অভিশাপ ডেকে আনে। অতিরিক্ত ভিটামিন স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। অতিরিক্ত ভিটামিন শরীরের স্বাভাবিক পুষ্টি রক্ষার প্রক্রিয়াকে অবদমিত করে। অতিরিক্ত ভিটামিন-এ গ্রহণ করলে ডায়রিয়া, মাথাব্যথা, ক্ষুধামন্দা, ...
প্রস্রাব ধারণে অক্ষমতা
৮ ডিসেম্বর ২০১২
কোন কারণে হঠাত্ বা অনবরত, অনিচ্ছাকৃত প্রস্রাব বেড়িয়ে আসলে ডাক্তারী ভাষায় ইউরিনারী ইনকনটিন্যান্স বা প্রস্রাব ধারণে অক্ষমতা বলে। কোন সামাজিক অনুষ্ঠানে, দূরের যাত্রায়, বাসে, ট্রেনে, লঞ্চে বেড়াতে গেলে হঠাত্ প্রস্রাব ধারণ করতে না পারায় কাপড় নষ্ট হয়ে গেলে কিংবা অনবরত প্রস্রাব ঝরতে থাকলে বিব্রতকর অবস্থার সৃষ্টি হয়। বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয় স্বজনের সান্নিধ্যে থেকে নিজেকে গুটিয়ে রাখতে বাধ্য হয়। বেশী একাকী মনে হয় তখন। বয়স বৃদ্ধি হলে এমনটি হওয়ার কথা, কিংবা সারাটা জীবন এ সমস্যা নিয়েই থাকতে হবে তাও নয়। প্রস্রাব ...
আঁচিল:চিকিত্সা ও প্রতিকার
৮ ডিসেম্বর ২০১২
চুলপড়া, চর্মরোগ ও এলার্জি এবং যৌন সমস্যা বিশেষজ্ঞ লেজার এন্ড কসমেটিক সার্জন বাংলাদেশ লেজার স্কিন সেন্টার বাড়ী-৩৯ (আম্বালা কমপ্লেক্স) রোড-২ ধানমন্ডি, ঢাকা। ডা: মোড়ল নজরুল ইসলাম আমি এর আগে পুরুষ ও মহিলাদের জেনিটাল ওয়ার্টস নিয়ে লিখেছি। এ সংখ্যায় ভাইরাল ওয়ার্টস বা আঁচিল নিয়ে লিখতে চাই। আঁচিল এক ধরনের গ্রোথ। ত্বকের অংশ বিশেষ শক্ত, মোটা, খসখসে দানার মত বৃদ্ধি পায়। ভাইরাল ওয়ার্টস এইচপিভি বা হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস দ্বারা শরীরে সংক্রমিত হয়। আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শেও এই ভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট আঁচিল অন্যের শরীরে সংক্রমিত হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে আঁচিল বা ভাইরাল ওয়ার্টস-এ চুলকায়। তখন আক্রান্ত স্থান চুলকালে বা ঘসলে এই ভাইরাস ত্বকের স্বাভাবিক স্থানেও ছড়াতে পারে। শুরুতে আঁচিলগুলো ছোট, দানারমত থাকে এবং প্রাথমিক অবস্থায় তুলে ফেলা হলে আঁচিলের সম্পূর্ণ নিরাময় সম্ভব। আঁচিল গুলো সাধারনত: শক্ত ও খসখসে (ওয়ার্টি) থাকে। শরীরে নানা ধরণের ভাইরাল ওয়ার্ট হতে পারে। সাধারনত: আঙ্গুলের পিছনের দিক, বুড়ো আঙ্গুলের সামনেরর দিক, হাঁটু, পায়ের পাতায় আঁচিল দেখা দেয়। মুখে সাধারণত ...
দেহের ৮টি রোগ প্রতিরোধে মুখের স্বাস্থ্য
১২ জুলাই, ২০১৪
বাংলাদেশে ডেন্টিষ্ট এর সংখ্যা জনসংখ্যার তুলনায় অতি নগণ্য। বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রত্যেকের পক্ষেই একজন ডেন্টিষ্ট দেখিয়ে দাঁত ও মুখের স্বাস্থ্যের জন্য সেবা নিতে পারেন না। অথচ মুখের স্বাস্থ্য ও দেহের স্বাস্থ্য খুবই সর্ম্পকযুক্ত। তাই প্রতিটি মানুষকে অন্ততঃ মুখ ও দাঁতের সাধারণ কয়েকটি নিয়ম কানুন মেনে চলতে হবে যেমন নিয়মিত দু'বেলা দাঁত ব্রাশ করা, বছরে অন্তত:একজন ডেন্টিষ্টকে দিয়ে মুখ ও দাঁত পরীক্ষা করানো। প্রতিদিন কিছু শাক সবজি ও ফলমূল গ্রহণ ইত্যাদি। বিভিন্ন গবেষণা ও তথ্য থেকে পাওয়া বাস্তবতা হলো ...
ইফতার কেমন হওয়া উচিত
২৮ জুন, ২০১৪
রমজান মাসের রোজা যেহেতু ফরজ ইবাদত, মুসলিম দেশগুলোতে রমজান মাস এলে সবাই রোজা রাখার প্রস্তুতি নেয় এবং নিজেদের দৈনন্দিন কার্যাবলীর সময়সূচির মধ্যেও পরিবর্তন নিয়ে আসে। রমজান এলে বিকেল বেলা থেকেই ইফতারের জন্য বিভিন্ন প্রকার খাবার আয়োজনের ব্যস্ততা শুরু হয়। বিশেষ করে বাসাবাড়ীতে নানা রকম সুস্বাদু ও মুখরোচক খাবারের আইটেম তৈরী করার প্রবণতা দেখা যায়। মানুষের এই প্রবণতাকে কেন্দ্র করে, হরেক রকম ইফতারীর পশড়া সাজিয়ে দোকানীরা রাস্তার ধারে, ফুটপাতে, অলিতে-গলিতে বসে যায়। এ ইফতার সামগ্রীর মধ্যে যেগুলো থাকবেই তার মধ্যে ...
জেনে নিন সেহরীর স্বাস্থ্যসম্মত খাবার
২৮ জুন, ২০১৪
রমজানে রোজা রাখার অন্যতম একটি শর্ত হল সেহরী। সুবহে সাদিকের আগে ঘুম থেকে উঠে কিছু খাবার খেয়ে নেয়া রাসুলুল্লাহ (সা)-এর সুন্নত। সারাদিনের উপোসে শরীরের শক্তি সরবরাহ করার জন্যও সেহরী খাওয়া জরুরী। যদিও অন্যান্য মাসের তুলনায় এ মাসটিতে হঠাত্ খাদ্যাভাসের এই পরিবর্তন আনতে হয় তবু মানুষের শরীর খুব দ্রুতই এ পরিবর্তনের সাথে মানিয়ে নেয়। সেহরী শেষে যেহেতু প্রায় ১২ থেকে ১৬ ঘন্টা না খেয়ে থাকতে হয় সেহেতু সেহরীর খাবারে এমন উপাদান থাকা উচিত্ যা ধীরে ধীরে হজম হয়ে দিনের অনেকটা সময় খাদ্যনালী থেকেই শক্তির যোগান দিতে পারবে। সে হিসেবে ভাত বা রুটি খাওয়া বাঞ্ছনীয়। এর সাথে প্রয়োজনমাফিক অন্যান্য তরকারী থাকবে। কিন্তু এ সময়ে শুধু ফলের রস, চিনির শরবত, চা খেয়ে রোজা রাখার প্রবণতা ভালো নয়। কারণ এগুলো দ্রুত হজম হয়ে যায়। ফলে দিনের শুরুতেই রক্তে গ্লুকোজ কমে আসে। এছাড়াও অধিক তৈল, মসলা, চর্বি জাতীয় খাবার সেহরীর সময় পরিহার করা উচিত্। এগুলো বদহজম এবং এসিডিটির কারণ হতে পারে। চর্বিযুক্ত খাবার খেলে ...
বিশ্বকাপ জ্বরে আক্রান্ত দেহমন
২১ জুন, ২০১৪
আনন্দ উত্তেজনার ফুটবল বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে শুরু হয়ে যাবে রাতজাগার প্রহর। একদিকে রাতজেগে টিভিতে খেলা দেখা অন্যদিকে দিনের বেলায় দৈনন্দিন কাজকর্ম। একসঙ্গে দুটি কাজ ২/৪ দিন চালানো গেলেও টানা একমাস চালানো সম্ভব নয়। তাই রাত জেগে খেলা দেখার প্রভাব পড়ে দিনের কাজে। আর পছন্দের টীম যদি হেরে যায় তখন নেতিবাচক প্রভাবে আক্রান্ত হয় মনও। রাতজাগার প্রভাব কাটাতে রাতজাগা শরীরের এই ক্লান্তি কাটাতে ফলের রস সবচেয়ে ভালো কাজে দেয়। এছাড়া ১ গ্লাস পানিতে ৭৫ গ্রাম গ্লুকোজও খেয়ে নিতে পারেন। আর শরীরটাকে একটু মেলে ধরে, নিতে পারেন গোটাদশেক গভীর শ্বাস। রাত জাগার পরের দিন লাঞ্চটাও সারতে হবে সাদামাটাভাবে। কয়েকটুকরো সালাদ, সামান্যভাত কিংবা রুটি সাথে কিছুটা সবজি অথবা মাংস থাকতে পারে। তবে কোনভাবেই যেন দুপুরের খাবারটি ভরপেট না হয়। এতে ঘুম কম পাবে এবং স্বস্তিতে সেরে নেয়া যাবে দিনের প্রয়োজনীয় কাজকর্ম। ঘুম আসলে সুযোগ মত ঘুমিয়ে নিতে হবে। ...
বিশ্বকাপ ফুটবল:দর্শকদের জন্য প্রেসক্রিপশন
০৭ জুন, ২০১৪
পুরো বিশ্ব একই সাথে মেতে ওঠে একমাত্র ফুটবলেই। ফুটবলই হলো পৃথিবীর সবচেয়ে আলোচিত ক্রীড়া আসর। বিশ্বকাপ ফুটবল বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে বরাবরের মতোই আগ্রহের বিষয়। বাংলাদেশের দর্শকেরা সাধারণত খেলাগুলো উপভোগ করে থাকেন টেলিভিশনের মাধ্যমে। খেলা দেখার প্রচণ্ড উত্তেজনা, উদ্ব্বেগ, দুশ্চিন্তা প্রভৃতি বিষয়ের সাথে যোগ হবে গরমের দুঃসহ যন্ত্রণা। কীভাবে এসব পরিস্থিতি মোকাবেলা করে একজন দর্শক উপভোগ করতে পারেন খেলাগুলো? আদৌ কি তা সম্ভব? হ্যাঁ, অবশ্যই তা সম্ভব। আপনি সুস্থভাবে টেলিভিশনে খেলাগুলো উপভোগ করতে পারেন, যদি নিচের বিষয়গুলো মেনে চলেন- ১. ...
ঘাড়ে ব্যথায় ফিজিওথেরাপি
৩১ মে, ২০১৪
একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে প্রতি ১০ জন লোকের মধ্যে ৭ জনই জীবনের কোন না কোন সময় ঘাড়ের ব্যথা সমস্যায় ভোগে থাকেন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এ ব্যথা সামান্য হলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে এ ব্যথা মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এধরণের ব্যথা বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে পারে। ঘাড় ব্যথার কারণসমূহ মেরুদন্ডের সম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যার কারণে। সার্ভিক্যাল স্পনডাইলসিস বা ঘাড়ের হাড় ক্ষয় জনিত রোগ। বারেত ব্যথা ও ওস্টিওফাইটস। ডিস্ক পলাপস্ বা দুটি হাড়ের মধ্যবর্তী স্থানের ডিস্ক সরে গেলে ঘাড়ে ব্যথা হতে পারে। ...
ডায়াবেটিক রোগীর জরুরী পরীক্ষা
৩১ মে, ২০১৪
ডায়াবেটিস রোগী ছাড়াও যাদের নিকট আত্মীয়ের ডায়াবেটিস আছে, যাদের ওজন বেশী, ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রমের কাজ তেমন করেন না, তারা নিম্নে উল্লেখিত রক্তের পরীক্ষাগুলোর মাধ্যমে ডায়াবেটিস সম্পর্কে জানতে পারেন। খালি পেটে বা খাবারের আগে (Fasting Blood Glucose): এ পরীক্ষাটি সকালে নাস্তার আগে খালি পেটে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৬.১ মিলি মোল/লিটার বা তার কম। খাবারের দুই ঘন্টা পরে (2 Hour After Breakfast): এ পরীক্ষাটি নাস্তা খাওয়ার দুই ঘন্টা পরে করতে হয়। এর স্বাভাবিক মাত্রা ১০ মিলি মোল/লিটার বা তার কম যে কোন সময় (Random): এ পরীক্ষাটি দিনের যে কোন সময় করা যেতে পারে। এর স্বাভাবিক মাত্রা ৫.৫ থেকে ১১.১ মিলি মোল/লিটার Oral Glucose Tolerance Test (OGTT): যাদের খালি পেটে FBG ৬.১ এর বেশী কিন্তু ৭.০ মিলি মোল/ লিটারের কম কিংবা দিনে যে কোন সময় ৫.৫ এর বেশী কিন্তু ১১.১ মিলি মোল/ লিটারের কম, তাদের এ পরীক্ষাটি করা খুবই জরুরি। কারণ এ পরীক্ষাটির মাধ্যমে কারো ডায়াবেটিস আছে কি নেই-সে ...
মহিলাদের রোগ:লিউকোরিয়া
২৪ মে, ২০১৪
লিউকোরিয়া বা সাদাস্রাব স্ত্রী জননতন্ত্রের বিভিন্ন রোগের উপসর্গ হিসাবে প্রকাশ পেতে পারে। সাদা কিংবা ক্রিম অথবা হলদে বা সবুজ জাতীয় রস যোনীপথ দিয়ে বাইরে নির্গত হলে সেটাকে লিউকোরিয়া বলে। সাদাস্রাবের সাথে পুঁজ বা মিউকাস অথবা উভয়ই একসাথে নির্গত হতে পারে। যোনীপথ, সারভিক্স এবং জরায়ুঝিল্লীতে দীর্ঘদিন প্রদাহ থাকলে স্রাব নির্গত হয়। সংক্রমিত যোনীস্রাবের ক্ষেত্রে একটি সমস্যা হলো এ যে, গণোরিয়া লকুনো থাকতে পারে, যার সনাক্তকরণ না হলে ভবিষ্যতে নানা জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে। ...
হোমিওপ্যাথিতে মূত্র পাথরীর চিকিত্সা
২৪ মে, ২০১৪
মূত্রপিন্ডে বা মূত্রাধারে নানা কারণে ছোট বড় পাথর জমে থাকে। বালু-কণাকৃতির, ডালের আকৃতি অথবা তা হতেও বড় আকৃতির হতে পারে। মূত্রপিন্ডে পাথর জমে নালীর মুখে আসলে ভীষণ ব্যথা হতে থাকে। এতে করে রোগী অনেক কষ্ট পায় এমনকি আত্মহত্যার মত প্রবণতাও রোগীর মনে চলে আসে। হোমিও প্যাথিতে মূত্র পথের পাথর সুচিকিত্সা আছে। হোমিও বিধান মতে রোগ নয় রোগীকে চিকিত্সা করতে হয়। আর তাই সঠিক রোগীলিপি সংগ্রহ করে উপসর্গ অনুসারে চিকিত্সা প্রদান করলে সুফল পাওয়া যায়। এ রোগের উপসর্গ গুলো হলো প্রস্রাবে ভীষণ জ্বালা যন্ত্রনা, ঘন ঘন প্রস্রাবে বেগ, ফোঁটা ফোঁটা প্রস্রাব, কোঁথানী জ্বালা, কোমর বেদনা উপর থেকে পায়ের দিকে আসে, কখনো কখনো প্রস্রাবের সাথে রক্ত বা পুঁজ বের হয়। হঠাত্ প্রস্রাব বন্ধ হয়ে যাওয়া, কখনো বেদনার সাথে অত্যাধিক ঘাম হওয়া, অত্যধিক এসিডিটি ইত্যাদি। ...
ডায়রিয়া হলে কি করবেন
১৭ মে, ২০১৪
ডায়ারিয়া বা পাতালা পায়খানা হলে রোগীকে স্যালাইন খেতে দিতে হবে। অল্প অল্প করে বারে বারে খাওয়াতে হবে। প্রতিবার দাস্তের পর দেড়-দুই আউন্স পরিমাণ অর্থাত্ যে পরিমাণ পানি পায়খানার সঙ্গে বেরিয়ে যাবে সে পরিমাণ খাবার স্যালাইন রোগীকে খাইয়ে দিতে হবে। এক সঙ্গে বেশী পরিমাণে স্যালাইন খাওয়ালে রোগী বমি করতে পারে; সে জন্য নিয়ম হলো: রোগীকে খাওয়াতে হবে অল্প অল্প করে, বারে বারে। স্যালাইন খাওয়ানোর পাশাপাশি স্বাভাবিক খাবার সবকিছুই খেতে দিতে হবে; খাবার বন্ধ করা যাবে না। তরল খাবার বেশী করে দিতে হবে। স্যালাইনের প্যাকেট বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। এই প্যাকেটের স্যালাইন ১ সের বা (যে পরিমাণ পানি প্যাকেটের গায়ে লিখা থাকে) সিদ্ধ করা ঠাণ্ডা পানিতে মিশিয়ে খাবার স্যালাইন তৈরী করা হয়। একবার তৈরী করা খাবার স্যালাইন ১২ ঘন্টা পর্যন্ত রেখে খাওয়ানো যেতে পারে, এর পর আরও স্যালাইনের প্রয়োজন হলে উপরোক্ত নিয়মে আবার নতুন করে বানাতে হবে। স্যালাইনের প্যাকেট বাজারে কিনতে পাওয়া না গেলে কিংবা কিনার সামথ্য না থাকলে দুশ্চিন্তার কিছই ...
সুস্বাস্থ্যের জন্য কি খাবেন
১০ মে, ২০১৪
মায়ের পুষ্টি শিশুর তুষ্টি। অর্থাত্ সুস্থ ও স্বাস্থ্যবতী মা-ই কেবলমাত্র স্বাস্থ্যবান সন্তানের জম্ম দিতে পারে। পুষ্টিহীন মায়ের সন্তানের জম্মকালীন ওজন কম হয়, অসুস্থ হাবা, গোবা, রুগ্ন হয়ে জম্মায়। পরবর্তীতে নানা রোগে ভোগে। প্রসূতি মায়েদেরও নানা রকম জটিলতা দেখা দেয়। গর্ভবতী ও স্তন্যদাত্রী অবস্থায় মায়েদের খাবারের প্রয়োজন সাধারণ অবস্থার চেয়ে বেশী। আমাদের দেশে গর্ভাবস্থায় রক্তশূন্যতা বেশী দেখা যায়। এই সময় সব খাবার বেশী খাওয়ার দরকার নেই। প্রয়োজন অনুযায়ী ফলিক এসিড, আয়োডিন, ক্যালসিয়াম ও আয়রণ, জিংকস সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। অনেক ...
পুষ্টিকথা : কলা
১০ মে, ২০১৪
কলার পুষ্টিগুণ বিবেচনা করে এর নাম দেয়া হয়েছে 'ফ্রুট অব দ্যা ওয়াইজ' অর্থাত্ 'জ্ঞানের ফল'। কলাতে রয়েছে ভিটামিন এ, বি৬, সি, ডি, ও ই, ম্যাগনেশিয়াম এবং পটাশিয়ামের মত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। পটাশিয়াম মাংসপেশী তৈরীতে ও প্রোটিন সংশ্লেষণে সহায়তা করে। ইহা স্নায়ু শক্তি বৃদ্ধি করে। কলাতে বিদ্যমান পটাশিয়াম উচ্চ রক্তচাপ ও স্ট্রোকের আশঙ্কা কমায়। কলা শুধু একটি পুষ্টিকর ফলই নয়, খাদ্যের পরিপূরক হিসেবেও কাজ করে। কলাতে রয়েছে সুক্রোজ, ফ্রুকটোজ ও গ্লুকোজের মতো তিনটি প্রাকৃতিক শর্করা যা আমাদের তাত্ক্ষণিক শক্তি যোগাতে সাহায্য করে। ...
সুস্বাস্থ্যের জন্য কি খাবেন
০৩ মে, ২০১৪
পুষ্টিবিদ, পুষ্টি সেবা ও তথ্য কেন্দ্র, নর্থ সার্কুলার রোড, ধানমন্ডি, ঢাকা-১২০৫ খাদ্য স্বাস্থ্য ও পুষ্টি এই তিনটি শব্দ একটি আরেকটির সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। সুস্বাস্থ্য ও সুস্থ মনের জন্য প্রতিদিন পুষ্টিকর ও সুষম খাদ্যের প্রয়োজন। দেহের জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে হলে একজন ব্যক্তির জন্য সুষম খাদ্য নির্বাচন, খাদ্যের সহজ প্রাপ্যতা ও পুষ্টিমূল্য বজায় রেখে খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া অর্থনৈতিক অবস্থা, খাদ্য উত্পাদন, খাদ্য বিতরণ ব্যবস্থা, খাদ্যাভ্যাস ইত্যাদির উপর পুষ্টির অবস্থা নির্ভর করে। খাদ্যের কয়েকটি উপাদান যেমন শর্করা, ...
তরমুজ
০৩ মে, ২০১৪
ট্রেক্সাস ইউনিভার্সিটির গবেষকদের মতে, তরমুজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে সাইট্রুলিন (অ্যামাইনো অ্যাসিড)। সাইট্রুলিন মানবদেহে আরজিনিন নামক আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অ্যামাইনো অ্যাসিড উত্পাদনে বলিষ্ট ভূমিকা রাখে। আরজিনিন নাইট্রিক অক্সাইড উত্পাদন বৃদ্ধি করে রক্ত পরিবহনতন্ত্রকে উজ্জীবিত করে দেহের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কোষ কলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে রক্ত সরবরাহ নিশ্চিত করে। এর ফলে মানবদেহের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ দৈনন্দিন কার্যক্রম সুচারুরূপে পালন করতে পারে, মানুষের বিপাকক্রিয়া সুসম্পন্ন হয় এবং কর্মশক্তি বৃদ্ধি পায়। নাইট্রিক অক্সাইড মানবদেহের রক্তনালীসমূহকে সম্প্রসারিত করে উচ্চ রক্তচাপ প্রশমনে সহায়তা করে। আরজিনিন মূত্রের মাধ্যমে দেহের বর্জ্য পদার্থ অপসারণের গতি বৃদ্ধি করে। আরজিনিন টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীর রক্তে নিষ্ক্রিয় ইনসুলিনকে সক্রিয় করে গ্লুকোজ বিপাকের হার বৃদ্ধি করে। তরমুজ শীতলকারক, তৃষ্ণা নিবারক, প্রশান্তিদায়ক, উচ্চ রক্তচাপ প্রশমক ও রক্তের অতিরিক্ত জমাটবদ্ধতা প্রতিরোধক। ...
খাদ্যে আঁশ ও স্বাস্থ্য
১৯ এপ্রিল, ২০১৪
আঁশ হলো একটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপকরণ। তবে আঁশ নিয়ে অনেক কথা এখনও জানার বাকি। আঁশ আসলে কি? আঁশের শ্রেষ্ঠ উত্স কি কি? এর স্বাস্থ্য হিতকর গুণাগুণই বা কি। মূলত: আঁশ হলো এমন শর্করা যা পরিপাক হয়না। এমন ধরণের শর্করা হলো আঁশ যা হজম হতে পারেনা। উদ্ভিজ সব খাবারে আছে আঁশ। ফল, সবজি, শুটি, শস্যকনা সব। তবে সব আঁশ এক রকমের নয় এবং এর শ্রেণী বিভাগ হয় নানাভাবে। উত্স অনুযায়ী একে ভাগ করা যায়। যেমন শস্যকনার আঁশকে বলা হয় খাদ্যশস্যের ...
কণ্ঠনালীর সমস্যার কারণ
১২ এপ্রিল, ২০১৪
আমাদের পারস্পারিক যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম হলো কণ্ঠ বা কথা বলা। আমরা কণ্ঠস্বর নিয়ে খুব বেশী সচেতন নই। এবং মারাত্মক কণ্ঠনালীর রোগ বা ক্যান্সারে আক্রান্ত না হওয়া পর্যন্ত চিকিত্সকের শরণাপন্ন হয়না। বিশ্ব কণ্ঠ দিবসের উদ্দেশ্য হচ্ছে কণ্ঠ ও কণ্ঠনালীর সমস্যা এবং সেই সাথে কিভাবে কণ্ঠকে সুস্থ রাখা যায় ও তার প্রতিকার সম্পর্কে জনগণকে জানানো। বিশ্ব কণ্ঠ দিবস এবছরের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে "Educate Your Voice"। প্রতি বত্সর ১৬ ই এপ্রিল বিশ্ব কণ্ঠ দিবস পালন করা হয়। ২০০৮ সাল থেকে বিগত সাত ...
আঁচিলঃ মারাত্বক ছোঁয়াচে রোগ
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
আমি এর আগে পুরুষ ও মহিলাদের জেনিটাল ওয়ার্টস নিয়ে লিখেছি। এ সংখ্যায় ভাইরাল ওয়ার্টস বা আঁচিল নিয়ে লিখতে চাই। আঁচিল এক ধরনের টিউমারের মত গ্রোথ। ত্বকের অংশ বিশেষ শক্ত, মোটা, খসখসে দানার মত বৃদ্ধি পায়। ভাইরাল ওয়ার্টস এইচপিভি বা হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস দ্বারা শরীরে সংক্রমিত হয়। আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শেও এই ভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট আঁচিল অন্যের শরীরে সংক্রমিত হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে আঁচিল বা ভাইরাল ওয়ার্টস-এ চুলকায়। তখন আক্রান্ত স্থান চুলকালে বা ঘসলে এই ভাইরাস ত্বকের স্বাভাবিক স্থানেও ছড়াতে পারে। শুরুতে আঁচিলগুলো ছোট, দানারমত থাকে এবং প্রাথমিক অবস্থায় তুলে ফেলা হলে আঁচিলের সম্পূর্ণ নিরাময় সম্ভব। আঁচিল গুলো সাধারনত: শক্ত ও খসখসে (ওয়ার্টি) থাকে। শরীরে নানা ধরণের ভাইরাল ওয়ার্ট হতে পারে। সাধারনত: আঙ্গুলের পিছনের দিক, বুড়ো আঙ্গুলের সামনেরর দিক, হাঁটু, পায়ের পাতায় আঁচিল দেখা দেয়। মুখে সাধারণত প্লেন ওয়ার্টস বেশী থাকে। যা শেভ করার সময় কেটে গিয়ে রক্ত ক্ষরণ হতে পারে। এছাড়া নখের পাশে পেরিঅঙ্গুরাল, আঁচিল, ঠোটের ওপরে ও মুখেও আঁচিল ...
শিশুরোগ নিয়ে সেলিম শাকুরের নতুন বই প্রকাশ
০৫ এপ্রিল, ২০১৪
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হসপিটাল-এর মিল্টন হল অডিটো-রিয়ামে হয়ে গেল বিশিষ্ট শিশু বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা: মো: সেলিম শাকুরের নতুন বইয়ের (শাকুর'স ইলাসট্রেটেড টেক্সট বুক অব পেডিয়েট্রিক্স) মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক প্রফেসর এম.আর.খান। বইটির বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি ১০৪২টি রঙ্গিন চিত্রায়িত ছবি, স্কেচস, ড্রইং এ সমৃদ্ধ যা কিনা সবার কাছে বোধগম্য। বইটির মূল দিকটি হচ্ছে পেডিয়েট্রিক্স সম্পর্কিত বিস্তারিত বিষয়াদি। তবে এতে বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে বাংলাদেশের শিশুদের জনস্বাস্থ্য বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ রোগব্যধি যেমন-অপুষ্টি, ডায়রিয়াজনিত রোগ, নিউমোনিয়া, সংক্রামক ব্যাধি যেমন- ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, যক্ষ্মা, টাইফয়েড, নবজাতক সংক্রান্ত সমস্যা যেমন-স্বল্প জন্ম ওজন জনিত রোগ, নবজাতকের সংক্রামক ব্যাধি (নিউ বর্ন সেপসিস), স্বল্প অক্সিজেন জনিত মস্তিষ্কের আঘাত (বার্থ এ্যাসফিকসিয়া), শ্বাসযন্ত্রের এলার্জি জনিত সমস্যা, হাপানী, হূদযন্ত্রের জন্মগত ত্রুটি, বাতজ্বর, স্নায়ুরোগ যেমন-মৃগিরোগ, শিশু বিকাশ জনিত সমস্যা যেমন-সেরিব্রাল পালসি (সিপি), আচরণগত শিশু বিকাশ সমস্যা, অটিজম, শিশুদের জ্ঞান অনুশীলন সমস্যা, কমিউনিটি শিশু স্বাস্থ্য, ইত্যাদি। এছাড়াও এই বইটিতে রয়েছে রঙ্গিন চিত্রায়িত শিশু চর্মরোগ বিষয়ক ...
টাইপ ২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ
২৯ মার্চ, ২০১৪
ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘমেয়াদী রোগ। এ রোগ হলে শরীরে ইনসুলিন নামক হরমোনের অভাবে অথবা ইনসুলিনের দুর্বল কার্যকারীতার কারণে রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে যায়। রক্তের সুগার অব্যবহূত অবস্থায় থাকতে থাকে। এর ফলে শরীরে নানান অসুবিধা দেখা দেয়। ডায়াবেটিস মূলত দুই ধরনের: টাইপ ১ ও টাইপ ২ ডায়াবেটিস। অগ্নাশয় থেকে ইনসুলিন একেবারেই নিঃসরণ না হলে হয় টাইপ ১ ডায়াবেটিস। আর একটু কম ইনসুলিন নিঃসরণ বা ইনসুলিনের দুর্বল কার্যকারীতার কারণে হয় টাইপ ২ ডায়াবেটিস। একটু সচেতন হলে টাইপ ২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা যায়। যাদের টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি বেশি তাদের একটু বেশিই সচেতন হতে হবে। কাদের টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি বেশি ...
রোগের নাম হাইড্রোসিল
২২ মার্চ, ২০১৪
হাইড্রোসিল বা একশিরা রোগ পুরুষের অন্ডকোষের বাহিরের দিকে একধরণের পর্দা থাকে যাকে বলা হয় টিউনিকা ভেজাইনালিস। যখন এই টিউনিকা ভেজাইনালিসের মাঝে পরিসড়ার তরল জমতে থাকে তাকে হাইড্রোসিল বলে। প্রাইমারী হাইড্রোসিলের ক্ষেত্রে ব্যথাহীন ভাবে ক্রমশ অন্ডথলি বড় হতে থাকে। সব সময় টিউনিকা ভেজাইনালিসের দুইটি স্তরের মধ্যে কিছু তরল পদার্থ নিসৃত হতে থাকে। আবার যেই মাত্রায় এই তরল পদার্থ নিসৃত হয় একই মাত্রায় তা পরিশোষিত হয়। যদি পরিশোষণ থেকে এই নিঃসরণের মাত্রা বেশী হয় তখন টিউনিকা ভেজাইনালিসের দু'টি স্তরের মাঝে তরল ...
মানসিক চাপ থেকে ব্রণ
১৫ মার্চ, ২০১৪
স্ট্রেস বা মানসিক চাপ শুধু শারীরিক সমস্যাই করে না স্ট্রেসের কারণে ত্বকে ব্রণ বা একনি হতে পারে। প্রবল মানসিক চাপের কারণে শরীরে হরমোন নি:স্বরণের গতি বেড়ে যায়। আর এই হরমোন একনি সৃষ্টিতে সহায়ক। এছাড়া স্ট্রেস একনির অবস্থার অবনতি ঘটাতে অন্যতম একটি ফ্যাক্টর। স্ট্রেস দু'ভাবে একনি ক্ষতিগ্রস্ত করে। এক: স্ট্রেস বা মানসিক চাপের কারণে এড্রিনাল গ্লান্ডকে স্টিমুলেট করে। ফলে অধিক হরমোন নি:সরিত হয়। দুই: মানসিক চাপের কারণে বিদ্যমান একনি নিরাময়ের গতি মন্থর হয়। এড্রিনাল গ্লান্ড থেকে নি:সৃত কর্টিসোল হরমোন ত্বকের ...
খাদ্যে বিষ:সচেতন হতে হবে
০১ মার্চ, ২০১৪
সহযোগী অধ্যাপক মেডিসিন বিভাগ ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কলা বাংলাদেশীদের একটি অতি প্রিয় ফল। কলা বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ট্রাকে এনে ঢাকাতে গুদামজাত করা হয়। এগুলি কাঁচা অবস্থায় দেখতে সবুজ। কলা সাধারণত: শেষ রাত্রে বা খুব ভোরে ঢাকাতে এসে পৌঁছায়। কিন্তু সেদিনই বিকালে দেখা যায় আশ্চার্যজনকভাবে কলাগুলি পাকা ও হলুদ বর্নের এবং মিষ্টি। কলাগুলি গুদামজাত করার পরপরই কিছু শ্রমিক তাদের কাঁধে করে মেশিন নিয়ে কলাগুলিতে স্প্রে করে। আর্সেনিক ফসফরাস এবং কার্বাইড মিলে এসিটাইলিন গ্যাস তৈরী করে এবং ক্যালসিয়াম ...
বাংলাদেশ সিনড্রোম চিকিত্সার নামে প্রতারিত হচ্ছে তরুণরা
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
বেশ কিছুদিন ধরে ইত্তেফাকের স্বাস্থ্য পাতায় কোন লেখা লিখছিনা। ভেবেছিলাম একটি নতুন বিষয়ের ওপর ধারাবাহিক একটা লেখা শুরু করবো। আর বিষয়টি হবে তরুণদের একটি বিশেষ স্বাস্থ্য ধারণা নিয়ে। আমি আগে একবার পুরুষের সমস্যা নামে একটি কলামে লিখেছিলাম। লেখাটি পাঠক প্রিয়তা আমাকে মুগ্ধ করেছিলো। আমার চেষ্টা ছিলো আমাদের দেশের তরুণ ও পুরুষদের মধ্যে এক ধরণের বিজ্ঞান সম্মত ধারণা দেয়া যাতে তাদের অনেক ভ্রান্ত ধারণা ভেঙ্গে যায়। অন্তত: তাদের ব্যক্তিগত ও ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে। ইদানিং আবার তরুণদের মধ্যে ব্যাপকভাবে অপচিন্তা ঢুকে ...
শিশুদের শ্বাসকষ্টের রোগ ব্রংকিউলাইটিস
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
অধ্যাপক শিশু বিভাগ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতা ল অধ্যাপক মোঃ আবিদ হোসেনমোল্লা অধ্যাপক শিশু বিভাগ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শিশুরা শ্বাসকষ্ট ভূগছে, এর প্রধান কারণ কি কিন্তু নিউমোনিয়া নয়, অন্য একটি রোগ যার নাম যেমন-ব্রংকিউলাইটিস। আমরা দীর্ঘ প্রায় এক যুগ যাবত্- বাংলাদেশের ৪৩টি সব ধরণের হাসপাতালে ৫ হাজারের অধিক ৫ বছরের কম বয়সের শিশুর মধ্যে গবেষণা করে দেখতে পেয়েছি যে, শতকরা ২১ ভাগ শিশু ব্রংকিউলাইটিসে আক্রান্ত হয় এবং মাত্র ১১ ভাগ শিশু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়। এ ...
ক্যান্সার বিজয়ীদের একটি অন্যরকম দিন
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
"আমি সকালে জগিং করি। নিয়মিত অফিস করি। সন্ধ্যায় পরিবারকে সময় দেই। আবার কখনও বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেই। আমি নিজেই ড্রাইভ করি" কথাগুলো হাসতে হাসতে বলছিলেন একজন তরুণ ক্যান্সার রোগী। তিনি একজন কলোরেকটাল ক্যান্সারের রোগী ছিলেন। কিন্তু এখন সম্পূর্ণ ভাল আছেন। মজার ব্যাপার হল উনি যখন জগিং করার স্টাইলে মঞ্চে আসেন তখন সকলে করতালি দিয়ে তাকে অভিনন্দন জানান। গত ৪ঠা ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ক্যান্সার দিবসে ইউনাইটেড হসপিটালে ক্যান্সার বিজয়ীরা একটি অন্যরকম দিন উপভোগ করেছেন। এটা সত্যিই ছিল একটি সুন্দর আয়োজন যেখানে ...
চোখ দিয়ে পানি পড়া সমস্যা
০১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪
সুন্দর সুস্থ চোখ কার না কাম্য? কিন্তু সেই চোখ হতে কান্না ব্যতিত অনবরত পানি পড়তে থাকলে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়। চোখ দিয়ে পানি পড়ার কারণ স্বাভাবিক চোখ সবসময় একটু ভেজা থাকে। অতিরিক্ত পানি চোখের ভেতরের কোনায় অবস্থিত নল (নেত্রনালী) দিয়ে নাকে চলে যায় এবং শোষিত হয়। কোন কারণে চোখে অতিরিক্ত পানি তৈরী হলে, অথবা নেত্রনালী বন্ধ হয়ে গেলে চোখের পানি উপচে পড়ে, একে লেক্রিমেশন বা এপিফোরা বলে। শিশুর জন্মের পর পর যদি নেত্রনালী বন্ধ থাকে, সেক্ষেত্রে চোখ হতে পানি ...
ব্রেস্ট ক্যান্সারের রোগীদের জন্য সুখবর
২৫ জানুয়ারি, ২০১৪
ব্রেস্ট ক্যান্সার বা স্তন ক্যান্সারের চিকিত্সায় ব্যবহূত উচ্চ মূল্যের ওষুধ এখন পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে উত্পাদিত হচ্ছে। ফলে দেশটির নারীরা এখন অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ওষুধ পাবেন। ভারতীয় ওষুধ কোম্পানী বাইকন হারসেপটিন নামের ব্রেস্ট ক্যান্সারের ওষুধের জেনেরিক ভার্সন তৈরী করছে। সুইস বহুজাতিক ওষুধ কোম্পানী হফম্যানলা রোশ ওষুধটি আবিষ্কার করে। শুধু ২০১২ সালে হারসেপটিন নামের ওষুধটি রোশ বিক্রয় করেছে ৬ দশমিক ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং ভারতে বিক্রয় হয় ওষুধটি ২১ মিলিয়ন ডলারের। প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে ভারতে ক্যান্সারে আক্রান্তদের ক্ষেত্রে ব্রেস্ট ক্যান্সারের অবস্থান দ্বিতীয়। ইন্ডিয়ান সায়েন্স পাবলিকেশন বায়ো স্পেকট্রামের মতে ভারতে হারসেপটিন তৈরী হওয়ায় অন্তত:২৫ শতাংশ কম মূল্যে পাওয়া যাবে ব্রেস্ট ক্যান্সারের জীবন রক্ষাকারী এই ওষুধটি। বাংলাদেশে হফম্যান লা রোশের অফিস রয়েছে এবং র্যাডিয়ান্ট ফার্মা নামের ওষুধ কোম্পানী রোশ:এর বিভিন্ন প্রডাক্ট আন্ডার লাইসেন্স এর আওতায় তৈরী করে। তবে হারসেপটিন-এর জেনেরিক এখন রেডিয়ান্ট ফার্মা তৈরী করেনি। এদিকে ইন্ডিয়ান বায়োকন ফার্মার তথ্য অনুযায়ী ভারতে প্রতি বছর দেড় লক্ষ মহিলার ব্রেস্ট ক্যান্সার সনাক্ত ...
এন্ডোমেট্রিওসিস:মহিলাদের একটি রোগ
১৮ জানুয়ারী, ২০১৪
এন্ডোমেট্রিওসিস মোটামুটি পরিচিত এক সমস্যা। অনেক মহিলা এই সমস্যায় খুব কষ্ট পায়। আমাদের দেশের বেশীরভাগ মহিলা চাপা স্বভাবের। ছোটখাট সমস্যা হলে কাউকে বলতে চায়না। এমনকি স্বামীকেও বলতে দ্বিধা বোধ করে। কিন্তু এন্ডামেট্রিওসিস হলে তলপেটে এত অসহ্য ব্যথা হয় যে কাউকে না বলে পারা যায়না। এ অসুখ হলে মাসিকের সময় মহিলাদের প্রচন্ড কষ্ট হয়। মহিলাদের ইউটেরাস বা জরায়ুতে তিনটি স্তর থাকে। সবচেয়ে ভেতরের স্তরের নাম এন্ডোমেট্রিয়াম। এই এন্ডোমেট্রিয়াল কোষ যখন অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়ে জরায়ুর বাইরে অন্য কোথাও ছড়িয়ে পড়ে তখন ...
শীতে ত্বকের যত্ন নিবেন কিভাবে
১১ জানুয়ারী, ২০১৪
আবাসিক সার্জন ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সার্জারি ও মূত্ররোগ বিশেষজ্ঞ চেম্বার:ল্যাব সাইন্স ডায়াগনস্টিক লিঃ ১৫৩/১ গ্রিন রোড, ঢাকা। এখন শীত মৌসুম। শুষ্ক হয়ে উঠেছে আবহাওয়া। একই সাথে শুষ্ক হয়ে উঠছে মানুষের ত্বক। শুষ্কতার পরিমাণ বেড়ে গেলে তা ত্বকে সৃষ্টি করে নানা সমস্যা। সৌন্দর্যেরও হানি ঘটে ব্যাপক। কে না চায় চেহারাটা সুন্দর থাকুক? সবাই প্রশংসা করুক তার রূপের? সুন্দর চেহারা বা রূপের জন্য স্বভাবতই প্রথমে পরিচর্যা নিতে হয় ত্বকের। আর শীতে তো কথাই নেই। ত্বকের প্রধান শত্রু শীত। আরো ...
বুকে ব্যথা মানেই হূদরোগ নয়
১১ জানুয়ারী, ২০১৪
মানব দেঞের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে বুক অত্যন্ত জরুরী অংশ। এর মধ্যেই আছে ফুসফুস, শ্বাসনালী, খাদ্যনালী, পাজরের হার মাংশসহ সবচেয়ে জরুরী হূদপিন্ড। তাই বুকের কোন অসুখ হলেই বিশেষ করে ব্যথা অনুভুত হলেই অনেকেই হূদরোগে আক্রান্ত হলো কিনা তা নিয়ে চিন্তিত বা অস্থির হয়ে পড়েন। তাই হাসপাতাল বা ক্লিনিকের ইমারজেন্সিতে বুকে ব্যথার সমস্যা নিয়ে অনেক রোগীই আসেন। কিন্তু বুকে ব্যথা হলেই যে তা হূদরোগ, এধরণের বদ্ধমূল ধারণা মোটেই ঠিক নয়। অন্যান্য অনেক কারণে বুকে ব্যথা অনুভূত হতে পারে। তাই বলে ...
উচ্চ রক্তচাপ আবহেলা নয়
১১ জানুয়ারী, ২০১৪
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। একবিংশ শতাব্দির শুরুর দিক থেকে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে বেশ অগ্রগতি হয়েছে। তবু হার্ট এ্যাটাক, স্ট্রোক, হূদনিষ্ক্রিয়া ও কিডনি রোগের একটি মূল কারণ হিসেবে এটি চিহ্নিত হয়ে আছে। স্বাভাবিক রক্তচাপ থাকা উচিত ১২০/৮০ এর নিচে এবং অনেক লোক এর নিচে রক্তচাপকে নামাতে সক্ষম হননি। রক্তচাপের অসংখ্য ওষুধ ইতিমধ্যে উদ্ভাবিত হয়েছে। তবুও অনেক লোক রয়েছেন ঝুঁকির মধ্যে। যারা রক্তচাপ বিশেষজ্ঞ তারা বলেন, উচ্চ রক্তচাপ অনেকটাই প্রতিরোধ যোগ্য।  উচ্চ রক্তচাপ রোগীদের একটি তাত্পর্যপূর্ণ অংশ জানেনই না যে তাদের উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে। কারণ এদের মধ্যে অনেকেই কখনই ডাক্তারের কাছে যান না চেক আপের জন্য। বাকি যে অংশ তাদের অবস্থা সম্বন্ধে অবহিত অনেকেই মনে করেন না এটি গুরুত্বর একটি রোগ। সেজন্য চিকিত্সাও নেন না, ডাক্তার বললেও একে অবহেলা করেন। অনেকে জীবন যাপনের বিধীতে তেমন কোন পরিবর্তন আনেন না। যেমন স্থূল শরীরের দিকে নজর দেন না, ব্যায়াম করেন না, লবণ খেয়ে চলেন বেশি বেশি, তখন উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ দু:সাধ্য ...
পোড়া রোগীর মৃত্যুর ঝুকি এত বেশী কেন
১১ জানুয়ারী, ২০১৪
সহকারী অধ্যাপক (এ্যানেসথেসিয়া) বার্ণ ও প্লাষ্টিক সার্জারী বিভাগ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ত্বক বা চামড়া মানব দেহের অতিশয় গুরত্বপুর্ণ অংশ। সেই সাথে মুখ ও মুখগহ্বর, নাসিকা ও শ্বাসনালীর গতিপথে যে মিউকাস মেমব্রেন আছে তাও খুবই গুরত্বপূর্ণ। শরীর এবং শরীরের চামড়ার সঙ্গে কলা ও কলার ছোকলা বা চামড়ার তুলনা করলে বুঝা যাবে যে একটি কলাকে তার ছোকলা খুলে ফেললে যে অবস্থা হয় মানব দেহের চামড়া এমনকি শ্বাস-নালী পুড়ে গেলেও একই অবস্থা হয়। ত্বক বা চামড়ার কারণে পরিবেশের অতিক্ষুদ্র ক্ষতিকারক রোগজীবানু, ধুলিকণা, রেডিয়েশন ইত্যাদি শরীরের ভিতরে ঢুকতে পারে না। ত্বকের কারণে প্রতিকূল অবস্থায়ও মানবদেহের আভ্যান্তরিন সকল জৈবিক-রসায়নিক ও বিপাক প্রক্রিয়া প্রায় অক্ষুন্ন থাকে ও স্বাভাবিক তাপমাত্রা ঠিক রাখে। যখন এই ত্বক বা শ্বাসনালীর মিউকাস মেমব্রেন পুড়ে যায় তখন দেহের সকল প্রয়োজনীয় স্বাভাবিক জৈবিক ও রাসায়নিক-বিপাক প্রক্রিয়া এবং অন্যান্য অতি প্রয়োজনীয় গ্রন্থিসমূহ যেমন লিভার কিডনি-এমনকি সকল দেহকোষের কার্যকারিতা বাধাগ্রস্থ হয়। সেই সাথে বার্ণ স্ট্রিচ শরীরের সকল রাসায়নিক উত্তেজক গ্রন্থির সিক্রেশন আরও দুই ...
ডায়াবেটিস ও চোখের সমস্যা
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
শরীরের ইনসুলিন হরমোনের অভাব বা স্বল্পতাজনিত কারণে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বেশী হওয়াকে ডায়াবেটিস বলে। ডায়াবেটিস শরীরের প্রতিটি অঙ্গকে আক্রান্ত করে। চোখ তার মধ্যে অন্যতম। পৃথিবীব্যাপী অন্ধত্বের চারটি প্রধান কারণের মধ্যে ডায়াবেটিসজনিত চোখের রোগ একটি। অন্য কারণগুলো হলো-চোখের ছানি, কর্ণিয়ার রোগ ও গ্লুকোম। ডায়াবেটিসজনিত চোখের রোগ ১. প্রতিসরণজনিত দৃষ্টি স্বল্পতা বা রিফ্রাকটিভ: (ক) মায়োপিয়া বা নিকট দৃষ্টিঃ দূরের জিনিস ঝাপসা দেখা যায়। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বেড়ে গেলে চোখের অ্যাকুয়াস হিউমারেও গ্লুকোজ বেড়ে যায়। তখন বেশী পরিমাণে গ্লুকোজ লেন্সের কর্টেক্সে ঢুকে। এতে লেন্সের কর্টেক্সেও পানির পরিমাণ বেড়ে যায়। এজন্য লেন্সের নিউক্লিয়াসের প্রতিসরণ সূচক বেড়ে যায়। ফলে কোন বস্তুর প্রতিবিম্ব রেটিনাতে না পড়ে তার সামনে পড়ে। (খ) হাইপারমেট্রোপিয়া বা দূরদৃষ্টি: কাছের জিনিস ঝাপসা দেখা যায়। চিকিত্সার মাধ্যমে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রিত হলে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা স্বাভাবিক হয়ে যায়। লেন্সের কর্টেক্সে গ্লুকোজের পরিমাণও স্বাভাবিক হয়ে যায়। এতে লেন্সের কর্টেক্সের পানির পরিমাণ কমে যায়। সেজন্য লেন্সের নিউক্লিয়াসের প্রতিসরণ সূচক কমে যায়। ফলে কোন বস্তুুর প্রতিবিম্ব রেটিনাতে ...
ধূমপান ছাড়তে প্রয়োজন নিজের ইচ্ছা শক্তি
২৮ ডিসেম্বর, ২০১৩
ধূমপান ত্যাগের জন্য সবচেয়ে জরুরী বিষয় হচ্ছে নিজের ইচ্ছেশক্তি। ধূমপান ছাড়ার জন্য নিজের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আপনি যতটা দৃঢ় থাকবেন, ততই সাফল্যের সম্ভাবনা বাড়বে। এই সিদ্ধান্তের জন্য প্রয়োজন ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে জানা। ধূমপান আপনার নিজের জন্য কতটা ক্ষতিকর আর ধূমপানের ফলে আপনি কাছের মানুষটির বা আপনার শিশু সন্তানটির জন্য পরোক্ষে কি ক্ষতি ডেকে আনছেন তা জানুন। প্রয়োজনে কুফলগুলো নিজ হাতে কাগজে লিখে ফেলুন, কাগজটি সঙ্গে রাখুন এবং যখন ধূমপানের ইচ্ছে জাগবে, তখন কাগজটি বের করে পড়ুন। ধূমপান ত্যাগ করতে চাইলে নিচের পরামর্শগুলো অনুসরণ করতে পারেন। - ধূমপান ত্যাগের জন্য নির্দিষ্ট একটি দিন ঠিক করুন। সেই নির্দিষ্ট দিনটির আগের দিন বাসায় থাকা সিগারেট, অ্যাসট্রে, লাইটার ফেলে দিন বা সরিয়ে ফেলুন। - পরিবারের সদস্য, নিকটাত্মীয়, বন্ধু-বান্ধব এবং সহকর্মীদের সহযোগিতা নিন। তাঁদের জানিয়ে রাখুন ধূমপান ত্যাগের তারিখটি। এর পর থেকে যেন তারা আপনাকে ধূমপানের আহ্বান না জানায় এবং আপনার আশপাশে ধূমপান না করে। এ ব্যাপারে সচেতন হতে অনুরোধ জানান। - ধূমপান ত্যাগের ...
ডায়াবেটিস হলে এত নিষেধাজ্ঞা কেন
২১ ডিসেম্বর, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। ডায়াবেটিস হলে মিষ্টান্ন বারণ, একেবারে নিষেধ তা কেন? উত্সবে কদাচিত্ খাওয়া যেতেই পারে। প্রিয় পায়েস বা আইসক্রিম কদাচিত্ উত্সবে কেন নয়? তবে সংযম হলো বড় কথা। বিশেষ অনুষ্ঠানে ছোট এক চামচ বা স্কুপ খাবেন বৈকি। তবে বেশি নয়। আত্মহারা হয়ে নয়। জানেন তো, সুগার হলো এক ধরণের শর্করা আর প্রোটিন ও চর্বির চেয়ে অনেক দ্রুত রক্তের সুগার উঠে যায় শর্করা খেলে। ডায়াবেটিস থাকলে শর্করা খেতে হবে বুঝে শুনে। মিষ্টি খাওয়ার বেশি আগ্রহ থাকলে বরং ...
ঘুমের সমস্যায় করণীয়
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৩
আবাসিক সার্জন ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল সার্জারি ও মূত্ররোগ বিশেষজ্ঞ চেম্বার:ল্যাব সাইন্স ডায়াগনস্টিক লিঃ ১৫৩/১ গ্রিন রোড, ঢাকা। যার চোখে ঘুম আসে না সেই বুঝে ঘুম না আসার যন্ত্রণা। বিছানায় শুয়ে শুয়ে ঘুমের জন্য আকুতি কতজনের। একজন প্রাপ্তবয়ষ্ক মানুষের জন্য দৈনিক ৫-৭ ঘণ্টা ঘুম যথেষ্ট। কিন্তু এই স্বাভাবিক ঘুমটুকু ঘুমাতে পারেন না অনেকে। নিদ্রাদেবীকে হটিয়ে দিয়ে অনিদ্রা এসে জুড়ে বসে মহাভারতের দুর্যোধনের মতো অপাঙক্তেয়ভাবে। ভাবতে অবাক লাগে, আমাদের প্রতি পাঁচজনের মধ্যে অন্তত একজন অনিদ্রায় ভোগেন। অনিদ্রার চিকিত্সা কি,আদৌ কি সম্ভব অনিদ্রা থেকে মুক্তি পাওয়া? গবেষকদের শেষ নেই এই বিষয়টি নিয়ে গবেষণার। বর্তমান লেখাটিতে অনিদ্রা থেকে মুক্তি পাওয়ার বেশ কিছু পরামর্শ দেয়া হলো। পরামর্শগুলো মেনে চললে আপনার চোখে নেমে আসতে পারে সুখকর এক চমত্কার ঘুম। ১. উত্তেজক কোনো কিছু পরিহার করুন শারীরিক উত্তেজনা সৃষ্টিকারী ওষুধ বা মাদক পরিহার করলে আপনি তলিয়ে যেতে পারেন ঘুমের অতল রাজ্যে। অনেকে ঘুমাতে যাওয়ার আগে সিগারেট কিংবা কফি পান করেন। এ দুটোই ঘুমের জন্য ...
স্বাস্থ্য সংবাদ
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৩
ডা:অরূপরতনের ফেলোসিফ লাভ বিশিষ্ট ডেন্টাল সার্জন অধ্যাপক ডা: অরূপরতন চৌধুরী সম্প্রতি ইংল্যান্ডে রয়েল কলেজ অব সার্জন্স থেকে ফেলোসীফ লাভ করেছেন। গত পহেলা নভেম্বর তাকে লন্ডনস্থ রয়েল কলেজ অব সার্জন এর এক সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই ফেলোশিপ প্রদান করেন ডীন, প্রফেসের ক্যাথরিন হারলি। ড. অরূপরতন এদেশে দীর্ঘ ৩৭ বছর যাবত ডেন্টাল সার্জারীতে নিয়োজিত আছেন। ...
মুখের বিব্রতকর সমস্যায়৭টিপস
০৭ ডিসেম্বর, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান, ডেন্টেষ্ট্রি বিভাগ বারডেম, ইব্রাহীম মেডিকেল কলেজ চেম্বার:১৫/এ গ্রীন স্কয়ার, গ্রীন রোড, ঢাকা মুখের দূর্গন্ধের কারণে মানুষ জনসম্মুখে যেতে লজ্জাবোধ করে। মুখের এই দুর্গন্ধ কেন হয়, তা নিয়ে বিজ্ঞানের গবেষণা বহুকাল যাবত্ চলে আসছে। সে সব গবেষণা থেকে সুনির্দিষ্টভাবে কয়েকটি কারণকে চিহ্নিত করা গেছে। দুর্গন্ধ বা দুর্গন্ধযুক্ত শ্বাস একটি বিরক্তিকর স্বাস্থ্য সমস্যা। প্রায়শই আক্রান্ত ব্যক্তি তার এমন অবস্থা সম্পর্কে খুব একটা অবগত থাকেন না। তবে সমস্যাটি আশেপাশে অবস্থানকারীদের। কেননা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলার সময় যখন দুর্গন্ধযুক্ত শ্বাস বেরিয়ে আসে তখন গোটা পরিবেশকে অন্যদিক ঘুরিয়ে দিতে বাধ্য। শুধু পার্শ্বব্যক্তিই যে এর নেতিবাচক প্রভাবে বিরক্ত হন তা কিন্তু নয়। সংশ্লিষ্ট ভুক্তভোগী ব্যক্তিও নানা স্বাস্থ্য সমস্যার সম্মুখীন হন দুর্গন্ধযুক্ত শ্বাস ও এর আনুষঙ্গিক কারণে। তাই কেউ কেউ হরেক ব্র্যান্ডের মাউথওয়াস/ সেপ্র ইত্যাদি ব্যবহার করে বিরক্তিকর অবস্থা থেকে পরিত্রানের উপায় খুঁজেন। তাতে ফলাফল কতদূর পাওয়া যায়- তা বলতে পারবেন সংশ্লিষ্টরা। ...
ফ্যাটি লিভার ডিজিজ:করণীয়
৩০ নভেম্বর, ২০১৩
ইকবাল হোসেন ঢাকা শহরের বড় ব্যবসায়ী। কয়েকদিন যাবত্ তার শরীরটা ভাল যাচ্ছিলো না। এমনিতেই মোটাসোটা গড়নের ভারী দেহ, তার ওপর অল্পতেই ক্লান্ত হয়ে পড়ছিলেন। তাই নিজেই উদ্যোগী হয়ে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়েছেন। ডাক্তার পরীক্ষা নিরীক্ষার পর রিপোর্টসহ দেখা করতে বলেছেন। পেটের আল্ট্রাসনোগ্রাম করার সময় সনোলজিস্ট বলছিলেন, লিভারে চর্বি জমেছে। তাই উদ্বিগ্ন মন নিয়ে ডাক্তারের পরামর্শের অপেক্ষা করছেন। আব্দুর রহীম একজন স্কুল টিচার। স্বাস্থ্যের গড়ন মোটামুটি ভাল। উচ্চতার তুলনায় ওজন খুব বেশীও না, আবার কমও না। এক আত্মীয়ের বিয়েতে ...
ডায়াবেটিস:সারা জীবনের রোগ
২৩ নভেম্বর, ২০১৩
মানুষের কিছু কিছু অসংক্রামক দীর্ঘস্থায়ী রোগ দেখা দেয়। তার মধ্যে ডায়াবেটিস অন্যতম। সেরজা কথায় ডায়অবেটিসে একবার আক্রান্ত হলে সারাজীবন এই রোগ পালতে হবে। তাই সবচেয়ে সহজ উপায় হল এই রোগ যাতে না হয় সেই ব্যবস্থা করা। আর কেউ যদি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়েই থাকে, তাহলে তাকে অবশ্যই জানতে হবে এর নিয়ন্ত্রণ কিভাবে করতে হবে, না করলে কি কি জটিলতা হবে ইত্যাদি। মনে রাখতে হবে একবার জটিলতা হয়ে গেলে তা থেকে মুক্তি পাওয়া অত্যন্ত দুরূহ। ডায়াবেটিস নামক ঘাতক রোগটি দিন দিন ...
খারাপ দাঁত স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর
০৯ নভেম্বর, ২০১৩
দাঁতের ক্ষয়জনিত কারণ, গোড়া ফোলা এবং পেকে যাওয়া ইত্যাদির ফলে খাদ্য-দ্রব্যাদির সংঙ্গে নানা ধরণের মারাত্মক রোগের জীবাণু পাকস্থলীতে প্রবেশের সুযোগ পায় এবং এই জীবাণুই পরবর্তীকালে দেহের অভ্যন্তরে কঠিন ও সংক্রামক রোগের সৃষ্টি করে। দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো থাকলে দেহকে সুস্থ রাখা যায় একথা নি:সন্দেহে প্রমাণিত হয়েছে। মুখের রোগের কারণে দেহে এই সমস্ত জটিলতা দেখা দিতে পারে বলেই মুখ ও দাঁতের যত্ন নেওয়া অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে আমাদের মত উন্নয়নশীল দেশে মাড়ির রোগ বেড়েই চলেছে, তবে শহর এলাকার লোকদের ...
ডায়াবেটিস:খাদ্য নির্দেশিকা
০৯ নভেম্বর, ২০১৩
যে কোনও সুষম খাদ্য পরিকল্পনার জন্য একটি খাদ্য নির্দেশিকা প্রয়োজন। স্বাস্থ্যকর খাবার থেকে পাওয়া যাবে শরীরের চাহিদা মাফিক সব পুষ্টি উপকরণ। হূদরোগ ও অন্যান্য রোগের ঝুঁকিও কমে। অনেকে ইউএসডিএ খাদ্য নির্দেশিকা 'মাই পিরামিড' ব্যবহার করেন সুষম খাদ্যের জন্য। ডায়াবেটিস রোগীরাও 'মাই পিরামিডের' সাহায্য নিতে পারেন এবং পুষ্টিবিদের পরামর্শে এতে কিছু পরিবর্তন এনে কাজে লাগাতে পারেন। খাদ্য নির্দেশিকা যে পরিমাণ শ্বেতসার ও শর্করা দিনের জন্য প্রয়োজন একে ভাগ ভাগ করে বিভিন্ন বেলায় খাওয়া যেতে পারে। একবেলা বেশি শর্করা খাওয়া ঠিক ...
স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে ১০ তথ্য
০২ নভেম্বর, ২০১৩
আবাসিক সার্জন, সার্জারি বিভাগ ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল চেম্বার:পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিঃ ২ ইংলিশ রোড, ঢাকা মহিলাদের ক্ষেত্রে সম্ভবত স্তন ক্যান্সারই সবচেয়ে ভীতিকর রোগ। কারণ এটা বেশি ঘটে এবং বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এর কারণ অজানা রয়ে যায়। তবে বর্তমান লেখাটিতে এমন কিছু বিষয়ের অবতারণা করা হয়েছে, যা আপনাকে রোগটি সম্পর্কে জানতে সাহায্য করবে। আর এটা থেকেই আপনি খুঁজে পাবেন প্রতিরক্ষার উপায়। স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে এমন ১০টি বিষয় বা সত্য কথা হলো- ১. স্তন ক্যান্সার সাধারণ রোগ, তবে হূদরোগের ...
শ্বেতী রোগীদের বিড়ম্বনা
২৬ অক্টোবর, ২০১৩
দেশের খ্যাতিমান চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এমইউ কবীর চৌধুরীর নেতৃত্বে ন্যাশনাল ভিটিলাইগো এন্ড সোরিয়াসিস ভাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ গড়ে তোলা হয়েছে। কিছু নিবেদিত চিকিত্সক ও সমাজকর্মী এ অলাভজনক সেবামূলক প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আছেন। আমিও একজন সামান্য কর্মী হিসাবে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে আছি। যদিও আমরা এ বছরের প্রথম দিকে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছি। এখনও ব্যাপক কার্যক্রম হাতে নিতে পারিনি। দেশের অন্তত:১৫ থেকে ২০ লক্ষ ভিটিলাইগো বা শ্বেতী রোগী রয়েছে। এদের মধ্যে তরুণী-মহিলাদের শ্বেতী নামক এ সমস্যাটি হলে যে কি ধরণের বিড়ম্বনায় পড়তে হয় তা ...
স্তন ক্যান্সার:প্রয়োজন পরিবারের সহায়তা
১২ অক্টোবর, ২০১৩
রিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা স্তন ক্যান্সার যখন কোনও মহিলার হয়, তখন তা যে কেবল রোগীর উপর প্রভাব ফেলে তাই নয়, পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের উপরও এর প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে জীবন সঙ্গীতো প্রভাবিত হনই। সংকটাপন্ন এমন রোগীর জন্য, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় জীবন সাহায্য সহানুভূতি, অবলম্বন খুবই প্রয়োজন। স্তন ক্যান্সার চিকিত্সা যখন চলে, নানা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া তো হয়ই। অস্ত্রোপচার করা হলে এবং লসিকাগ্রন্থি সরিয়ে নিলে ফুলেযায় বাহু। কেমোথেরাপি নিলে হয় ববি বমি ভাব, বমি, কেশহানি, ক্ষুধামন্দা ও ওজন হরাস। বিকিরণ চিকিত্সায় ...
তামাক পাতা জর্দ্দা থেকেমুখের ঘা
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান, ডেন্টেষ্ট্রি বিভাগ বারডেম, ইব্রাহীম মেডিকেল কলেজ চেম্বার:১৫/এ গ্রীন স্কয়ার, গ্রীন রোড, ঢাকা বিশেষতঃ যারা পানের সঙ্গে জর্দ্দা খান এবং নিয়মিত অনেক বার পান খান তাদের মুখের ঘা বেশী হয় এবং লক্ষ্য করা গেছে অনেকেই তামাক পাতাকে হাতের মধ্যে নিয়ে চুনের সঙ্গে মিশিয়ে গালের মধ্যবর্তী স্থানে রাখেন, তাতে দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে ঐ স্থানে ঘা হতে পারে। শুধু ঘা নয় পরবর্তীতে এই ঘা ক্যান্সারেও রূপ নিতে পারে। শুধু বাংলাদেশেই নয় ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে যেখানে তামাক পাতা নেশার মত ব্যবহূত ...
কিডনীতে পাথর হলে
১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
কিডনী সীমের বিচি আকৃতির দুইটি অঙ্গ যা মানবদেহের পিছনে বক্ষ খাঁচার নীচে অবস্থিত। কিডনীর মূল কাজ হচ্ছে মূত্র তৈরীর মাধ্যমে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের করে দেয়া। এছাড়াও কিডনী রক্ত তৈরীতে সাহায্য করে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে। শরীরে অম্ল, ক্ষার ও লবণের সমতা রক্ষা করে। ক্যালসিয়াম মেটাবলিজমে অংশ গ্রহণ করে। মিশরের আল হামরা সমাধি ক্ষেত্র থেকে উদ্ধারকৃত ৭০০০ বত্সরের পুরাতন মমির মূত্র থলিতে পাথর পাওয়া গেছে। এই মমিটাই এখন পর্যন্ত আবিস্কৃত সবচেয়ে পুরাতন পাথুরে রোগে আক্রান্ত মানুষ। সেই প্রাচীন ...
শ্বাসকষ্ট, সর্দি-কাশি, এলার্জি
০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
বিভিন্ন ধরনের এলার্জেন যেমন-ধূলা-বালি-ধোঁয়া, ফুলের রেণু, কলকারখানার নির্গত বিষাক্ত গ্যাস, গাড়ীর ধোঁয়া, বিশেষ কিছু খাবার, ওষুধ ইত্যাদি এলার্জি ও এজমার সৃষ্টি করে। যে কোন সুস্থ্য ব্যক্তিরও এলার্জি হতে পারে। সামান্য উপসর্গ হতে শুরু করে মারাত্মক উপসর্গ সৃষ্টি করতে পারে, এমন কি হঠাত্ তীব্র আকারে আক্রমণ করতে পারে। মোট কথা ধূলাবালি, ধোঁয়া, গাড়ীর বিষাক্ত গ্যাস, কলকারখানার সৃৃষ্ট পদার্থ, শীতের কুয়াশা, ফুলের রেণু, বিশেষ কয়েকটি খাবার যেমন-চিংড়ি, ইলিশ, বোয়াল, গজার, গরুর মাংস, হাঁসের ডিম, পাকা কলা, আনারস, নারিকেল, কসমেটিকস ও অগনিত ...
ডায়াবেটিস এবং হূদরোগ
৩১ আগষ্ট, ২০১৩
ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের করোনারি হার্ট ডিজিসের ঝুঁকি অন্য সাধারণের চেয়ে অনেক বেশি। ডায়াবেটিস রোগীরা করোনারি হার্ট ডিজিজ (সিএইচডি) থেকে নিজেদের সুরক্ষা করার জন্য অনেক পদক্ষেপ নিতে পারেন। ডায়াবেটিস তখনই হয় যখন রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে যায় কারণ দেহ তা ঠিকমত ব্যবহার করতে পারে না। রক্তের অতিরিক্ত সুগার হূিপন্ডের চারপাশের ধমনীগুলোতে চর্বি জমাতে সাহায্য করে। ডায়াবেটিসের সাথে ধূমপান, উচ্চ রক্তচাপ এবং অধিক কোলেস্টেরলের মাত্রা হূদরোগের ঝুঁকির পরিমাণ আরো বাড়িয়ে দেয়। নিম্ন লিখিত উপায়ে ডায়াবেটিক রোগীগণ হূদরোগের ঝুঁকি কমাতে পারেন। সচল ...
দূর করুন কাঁধের ব্যথা
২৪ আগষ্ট, ২০১৩
কাঁধের ব্যথা এক মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা। ব্যথা তীব্র হলে দৈনন্দিন জীবনে ঘটে ছন্দপতন। অনেকে ব্যথার জন্য ঘাড়ের ওপরে হাতই তুলতে পারেন না। কাঁধ নাড়াতেও বেশ কষ্ট হয়। অসহ্য ব্যথায় অনেক সময় শরীরের পেশি শক্ত হয়ে ওঠে। সাধারণত যে কারণগুলোর জন্য কাঁধে ব্যথা হয় এবং ভুক্তভোগী মারাত্মক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হন তার মধ্যে 'ফ্রোজেন শোল্ডার' অন্যতম। প্রাথমিকভাবে এটা হলো কাঁধের নরম কলাগুলোর প্রদাহজনিত অবস্থা। পেরি আর্থ্রাইটিস, অসটিও আর্থ্রাইটিস, হাড় ভেঙে গেলে কিংবা স্থানচ্যুত হলে ফ্রোজেন শোল্ডার হয়। পেশি, টেনডন, লিগামেন্ট সবকিছুই ...
হাড়ের ভঙ্গুরতা রোধে কী করবেন
১৭ আগষ্ট, ২০১৩
মহিলারা কেবল কারো মা কিংবা স্ত্রী নন, বর্তমানে এ পরিচয়ের বাইরেও তারা অনেক কাজের সাথে জড়িত। অনেক ক্ষেত্রে পুরুষদের চেয়েও বেশি কাজ করতে হয় তাদের। সময়মতো অফিসে যাওয়া, আবার বাড়িতে ফিরে গৃহস্থালি কাজকর্মে নিয়োজিত থাকা- বিরাট শারীরিক ও মানসিক ধকল। এর সবই করতে হয় তাদের, আর এ জন্য প্রয়োজন প্রচুর শারীরিক ও মানসিক শক্তি। মহিলাদের একটা বিশেষ ঝুঁকি থাকে অস্টিওপরোসিস বা হাড়ের ভঙ্গুরতা রোগে আক্রান্ত হওয়া। অস্টিওপরোসিসে ভুগলে সব কাজই থেমে যায়। তাই সব মহিলারই উচিত সময়মতো এ সমস্যাকে ...
মাথা ব্যথা ও দাঁতের সমস্যা
২৭ জুলাই, ২০১৩
কথায় বলে যার মাথা আছে তার ব্যথা ও আছে। অর্থাত্ মাথা থাকলে ব্যথাও থাকবে। বিজ্ঞানীদের মতে মাথার ব্যথা অন্যান্য কারণে হতে পারে। তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে বেশীর ভাগ মাথা ব্যথার কারণ শুধুমাত্র মাথার অসুস্থতার কারণেই হয় তা সঠিক নয়। শরীরের অন্যান্য অঙ্গ প্রতঙ্গের অসুস্থতার কারণেও মাথা ব্যথা হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ নাক, কান, গলা অথবা মুখের ভিতরের বিশেষ কোনো রোগের কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে। মুখের ভিতরের যে সব কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে সেগুলোর মধ্যে মাড়ির প্রদাহ বা পেরিওডেন্টাল ডিজিজ ও দন্তক্ষয় বা ডেন্টাল ক্যারিজ-এর প্রদাহ জানিত রোগ পালপাইটিস ও আক্কেল দাঁত বা উইজডম দাঁতের অসমান অবস্থানের কারণে জটিলতা, মুখের ভিতরের বিভিন্ন ধরণের ক্ষত বা ঘা, আঘাত জনিত কারণে চোয়ালের বা দাঁতের ফ্রেকচার বিভিন্ন ধরণের মিছ এবং টিউমার। দাঁতের ও মুখের এই ধরণের রোগ বা অসুস্থতা অনেক সময় কানে বা গলার ব্যথার কারণ হতে পারে। তবে বিশেষ যে একটি রোগ-এর কারণে মাথার ব্যথা বেশী হয় সেটি হলো উইজডম দাঁত ...
স্বাস্থ্যসম্মত সেহেরিও ইফতার
১৩ জুলাই, ২০১৩
আবাসিক সার্জন, সার্জারি বিভাগ ঢাকা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল চেম্বার: ল্যাব সাইন্স ডায়াগনস্টিক লিঃ, ১৫৩/১ গ্রিন রোড, ঢাকা। রমজান মাস ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত পবিত্র মাস। এ সময় সংযম সাধনার পাশাপাশি সুস্থ ব্যক্তিরা অনেকেই রোজা রাখেন, যারা অসুস্থ তাদের অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেন রোজা রাখার। কিন্তু রোজা রাখা উচিত হবে কি না তা বুঝে উঠতে পারেন না। কেউ কেউ রোজা রাখার বিপক্ষে অজুহাত সৃষ্টি করেন এই বলে যে, রোজা রাখলে অ্যাসিডিটি বেড়ে যাবে- দেখা দেবে পেপটিক আলসার। আবার অনেকে ...
ছোলার খাদ্য গুণ
১৩ জুলাই, ২০১৩
বিভাগীয় প্রধান কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ কমিউনিটি বেজড্ মেডিকেল কলেজ ময়মনসিংহ স্বাস্থ্যকর খাবার হিসাবে ছোলা বা বুটের বেশ সুনাম। রোজার ইফতারীতে মুড়ি, পিঁয়াজু আর শশার সাথে ছোলা না হলে চলে না। দীর্ঘক্ষণ ভিজিয়ে রেখে ইফতারীতে তেল-মশলায় ভাজা ছোলা আমাদের সংস্কৃতি বা ঐতিহ্যের অংশই হয়ে গেছে। ছোলা মুখরোচকও বটে। শক্তি দেয়। পেটেও থাকে বেশিক্ষণ। সাধারণত দুই প্রকারের ছোলা পাওয়া যায়: দেশী ছোলা ও কাবুলী ছোলা। দেশী ছোলা আকারে ছোট, একটু কালচে রংয়ের এবং অপেক্ষাকৃত শক্ত। কাবুলী ছোলা একটু বড় আকারের, উজ্জ্বলতর ...
রোগীরা কি রোজা পালন করতে পারবেন?
০৬ জুলাই, ২০১৩
ইসলামের ৫টি মূল স্তম্ভের মধ্যে রোজা অন্যতম। রমজানের রোজা আল্লাহ তায়ালার এক বিশেষ নিয়ামত। এর মধ্যেই আল্লাহ তায়ালা রেখেছেন অফুরন্ত রহমত, বরকত, মাগফিরাত, নাজাত ও ফযিলত। রমাজেরন রোজা রোজাদারের জন্য ঢাল স্বরূপ। রোজা আল্লাহ তায়ালার জন্য এবং আল্লাহ নিজেই এর প্রতিদান দিবেন। তাই প্রতিটি ধর্মপ্রাণ মুসলমান শত বাধা বিপত্তির মাঝেও রোজা রাখতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এর মাধ্যমেই তারা আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে চান। অনেকে জটিল রোগে ভোগেন, কিন্তু নিজের আত্মার শান্তি এবং ধর্মীয় নির্দেশনার প্রয়োজনে রমজানে রোজা রাখতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আবার এমনও লোক দেখা যায় যারা অজুহাত খোঁজেন রোজা না রাখার, নিজের মত করে খোঁজেন ধর্মীয় নির্দেশনা। এ ব্যাপারে বিজ্ঞ আলেম ওলামা বা ইসলামী চিন্তাবিদরা সম্পূর্ণ একমত যে অনেক নিয়ন্ত্রণযোগ্য রোগে আক্রান্ত যে কেউ রোজা রাখতে পারবেন। এমনকি অনেক রোগের ক্ষেত্রে রোজা রোগ নিয়ন্ত্রণে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। তবে তীব্র অসুস্থতায় অথবা কোন জটিল রোগে রোজা রাখা না রাখার ব্যাপারেও ধর্মীয় নিদের্শনা আছে। প্রয়োজনে পরে কাযা করার বিধানও সুস্পষ্টভাবে ...
স্বাস্থ্যপাতার আগামী শনিবারের সংখ্যা হবে সুস্থভাবে রোজা পালন নিয়ে
২৯ জুন, ২০১৩
শীঘ্রই শুরু হচ্ছে পবিত্র মাহে রমজান। প্রত্যেক ধর্মপ্রান মুসলমান এই পবিত্র রমজানে রোজা পালন করে থাকেন। অনেক রোজাদারগণ হূদরোগ, কিডনির সমস্যা, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস সহ নানা স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগে থাকেন। চিকিত্সা ও স্বাস্থ্য সম্মত ইফতারী ও সেহরী আহারের পরামর্শ নিয়ে আমাদের স্বাস্থ্য পাতার আগামী ৬ই জুলাই শনিবার সংখ্যাটি রচিত হবে। প্রখ্যাত লিভার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মবিন খান, প্রখ্যাত মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এ বি এম আব্দুল্লাহসহ দেশের খ্যাতিমান বিশেষজ্ঞ ও পুষ্টিবিদগণ লিখবেন। এছাড়া পুরা রজমান জুড়ে প্রতি শনিবারের স্বাস্থ্য পাতায় থাকবে রোজার ওপর নানা স্বাস্থ্য বিষয়ক লেখা। চোখ রাখুন প্রতি শনিবারের স্বাস্থ্য পাতার ওপর। ...
মেয়েলী রোগ লিউকোরিয়া
২৯ জুন, ২০১৩
লিউকোরিয়াকে বাংলায় শ্বেতপ্রদর বলে অভিহিত করা হয়। মাসিক হওয়ার রাস্তা দিয়ে যে সাদা স্রাব নিঃস্বরণ হয় তাই শ্বেতপ্রদর। আসলে এটা কোনো রোগ নয়, উপসর্গ মাত্র। মেয়েদের জীবনে কোনো না কোনো সময় এই লিউকোরিয়া সমস্যা হতে পারে। রস শ্লেষ্মা অথবা পুঁজযুক্ত সাদা স্রাব নিঃস্বরণ হয় বলেই এটাকে লিউকোরিয়া বলা হয়। মহিলাদের এটা মূলত স্বাভাবিক অবস্থা, কোনো রোগ নয়। লিউকোরিয়ার কারণ দুটি এক. ফিজিওলজিক্যাল বা সহজাত শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তন; দুই.প্যাথলজিক্যাল বা রোগজনিত কারণ। ফিজিওলজিক্যাল লিউকোরিয়া যেসব ক্ষেত্রে হতে পারে তা হচ্ছে: জন্মগ্রহণের ...
অর্থোপেডিক চিকিত্সায় আর্থ্রোস্কোপ
২২ জুন, ২০১৩
চিকিত্সা বিজ্ঞানে যতটুকু উন্নতি সাধিত হয়েছে তার অধিকাংশ হয়েছে একুশ শতকের গোড়ার দিকে। এর ধারাবাহিকতায় যন্ত্রের সাহায্যে চিকিত্সা ব্যবস্থা বর্তমান সময়ে কল্পনাতীত সুখ্যাতি অর্জন করেছে। হাড় ও জোড়ার সমস্যার চিকিত্সার ক্ষেত্রে অকল্পনীয় উন্নতি হলেও আমাদের দেশে অত্যাধুনিক যন্ত্রের সাহায্যে চিকিত্সা সীমিত আকারে শুরু হয়েছে। জোড়ার বিভিন্ন সমস্যার অত্যাধুনিক চিকিত্সা এখন শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র। হাড় ও জোড়ার চিকিত্সার এক সফল ও কার্যকর সমাধান এনেছে বিস্ময়কর আর্থ্রোস্কোপিক সার্জারী। এটি হলো অর্থোপেডিক চিকিত্সায় বর্তমান যুগের সর্বশেষ ও সর্বাধুনিক পদ্ধতি। আর্থ্রোস্কোপিক সার্জারী ...
গর্ভাবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ অবহেলা করবেন না
২২ জুন, ২০১৩
ডাঃ শামস মোহাম্মদ নোমান জুনিয়র কনসালটেন্ট চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম। গর্ভাবস্থায় উচ্চ রক্তচাপ থেকে পরবর্তীতে হার্ট ও কিডনির সমস্যার ঝুঁকি অত্যন্ত বেশী। কানাডিয়ান মেডিক্যাল এসোসিয়েশন জার্নালে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞগণ উল্লেখ করেছেন গর্ভাবস্থায় শতকরা ৫ থেকে ১০ ভাগ মহিলাগণ উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যায় আক্রান্ত হন। এ সময় গর্ভবতী মহিলার রক্তচাপ ১৪০/৯০ মিমি: অব মারকারির চেয়ে বেড়ে যায়। এই অবস্থাকে বলা হয় প্রি-একলামশিয়া। আর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে প্রি-একলামশিয়া বা একলামশিয়া পৃথিবীতে মাতৃমৃত্যুর অন্যতম প্রধান কারণ। প্রি-একলামশিয়ার লক্ষণ হচ্ছে ইউরিনে প্রটিন নির্গত হওয়া এবং উচ্চ রক্তচাপ। তাইওয়ানে পরিচালিত গবেষণায় বিশেষজ্ঞগণ দেখেছেন গর্ভাবস্থায় যাদের উচ্চ রক্তচাপ ছিল তাদের শতকরা ১২ দশমিক ৪ ভাগের কিডনির সমস্যা বা কিডনি অকেজো হয়েছে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী। তাই গর্ভাবস্থায় কোন ভাবেই উচ্চ রক্তচাপ অবহলো করা উচিত নয়। এন্টিনেটাল চেকআপ-এর সময় বা সন্তান আগমনের পর থেকে যে সব স্বাভাবিক চেকআপ করা হয় তখন অবশ্যই রুটিন পরীক্ষার পাশাপাশি ইউরিন, উচ্চ রক্তচাপ নিয়মিত পরীক্ষা ...
রোগজীবাণু প্রতিরোধে ডাব
০৮ জুন, ২০১৩
ডাবের পানির ব্যপারে নতুন করে কিছু বলার নেই। সুস্বাদু এই পানীয়টি গোটা এশিয়া ও লাতিন আমেরিকার মানুষের কাছে এটি সমান প্রিয়। তবে কেবল পানীয় হিসাবেই নয়, ডাবের পানির মধ্যে বিজ্ঞানীরা ওষুধিগুণও খুঁজে পেয়েছেন। ডায়রিয়াতে এর পানি  উপকার অনেক বেশী। এটি হার্টের পক্ষেও ভালো কাজ করে। এখন আবার জানা গেছে ডাবের পানি ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে অনেক বেশী সক্ষম। বছরের পর বছর ব্যবহার করার ফলে চলতি এন্টিবায়োটিক ওষুধ রোগজীবাণু প্রতিরোধী হয়ে উঠেছে। ফলে এই সমস্যা মোকাবিলায় বিজ্ঞানীরা নজর দিয়েছেন শরীরে ...
ইউরোলজি বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান
০৮ জুন, ২০১৩
দেশের প্রখ্যাত ইউরোলজিষ্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ব-বিদ্যালয়ের ইউরোলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক এম এ সালাম ইউরোলজি বিষয়ক সাধারণ ধারণা দেয়ার জন্য ইউরোলজি বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান নামের একটি বই রচনা করেছেন। বাংলা ভাষায় সাধারণ মানুষের জন্য এখন পর্যন্ত কোন ইউরোলজি বিষয়ক বই রচিত হয়নি। ইউরোলজি রোগাক্রান্ত মানুষ এবং তার আত্মীয় পরিজন, বন্ধুবান্ধবদের পক্ষে এই ধরণের রোগ সম্পর্কে তথ্য বা জ্ঞান লাভ করা প্রায়ই সম্ভব হয়না। এ দেশের ইউরোলজি বিশেষজ্ঞগণের সংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। ফলে তারা বিপুল সংখ্যক রোগাক্রান্ত মানুষকে পর্যাপ্ত সময় দিতে পারেন না। আর চিকিত্সকদের কথার বাইরেও অনেক বিষয় থাকে যা রোগীদের এবং তাদের ঘনিষ্টজনের জানা অতি প্রয়োজন। রোগী এবং তাদের আপনজনদের মাতৃভাষায় রচিত তথ্যনির্ভর একটি পুস্তক অত্যন্ত দরকার। ইন্টারনেট এক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে, কিন্তু বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষেরই ইন্টারনেট সংশ্লিষ্টতা নেই। দীর্ঘ সময় এবং অক্লান্ত পরিশ্রমের পরে অবশেষে বাংলা ভাষায় ইউরোলজি বিষয়ক প্রথম পূর্ণাঙ্গ গ্রন্থ "ইউরোলজি বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান" প্রকাশ করা হয়। লেখক বলেছেন, ইউরোলজি বিষয়ক এই বইটি ...
মুখের দীর্ঘ দিনের ঘা:করণীয়
০১ জুন, ২০১৩
মুখের ভিতরে সাধারণত যে সমস্ত রোগগুলো দেখি সেগুলো হচ্ছে ডেন্টাল ক্যারিজ, মাড়ির রোগ ও পেরিওডন্টাল ডিজিজ, মুখের ক্যান্সার, অসমান দাঁত, ডেন্টাল সিস্ট ইত্যাদি। দেহের অন্যান্য রোগের জন্য মুখের মধ্যে কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। চিকিত্সা বিজ্ঞানের গবেষণায় দেখা যায় যে, প্রায় দুইশত রোগের প্রাথমিক লক্ষণ মুখগহ্বরে প্রথম দৃষ্টিগোচর হয়। বর্তমান কালের মরণঘাতী রোগ এইডস থেকে শুরু করে ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, হূদরোগ, এমনকি গর্ভাবস্থায়ও অনেক রোগের লক্ষণ মুখের ভিতরে প্রকাশ পায়। যে সমস্ত ডায়াবেটিক রোগী ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখেন না তাদেরই মাড়ির রোগের ...
ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা যায়
০১ জুন, ২০১৩
ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘমেয়াদী রোগ। এ রোগ হলে শরীরের ইনসুলিন নামক হরমোনের অভাবে অথবা ইনসুলিনের দুর্বল কার্যকারীতার কারণে রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে যায়। রক্তের সুগার অব্যবহূত অবস্থায় থাকতে থাকে। এর ফলে শরীরে নানান অসুবিধা দেখা দেয়। ডায়াবেটিস মূলত  দুই ধরনের: টাইপ-১ ও টাইপ-২ ডায়াবেটিস। অগ্নাশয় থেকে ইনসুলিন একেবারেই নি:সরণ না হলে হয় টাইপ ১ ডায়াবেটিস। আর একটু কম ইনসুলিন নি:সরণ বা ইনসুলিনের দুর্বল কার্যকারীতার কারণে হয় টাইপ ২ ডায়াবেটিস। একটু সচেতন হলে টাইপ-২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা যায়। যাদের টাইপ ২ ...
প্রতিদিন কতটুকু চিনি খাওয়া উচিত
০১ জুন, ২০১৩
অনেকেই চিনি খেতে ভালবাসেন। এর মিষ্টি স্বাদ প্রায় সবার প্রিয়। কিন্তু অতিরিক্ত চিনি খাওয়া মোটেই ভাল নয়। মাত্রাতিরিক্ত চিনি শরীরের জন্য নানা বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশন মহিলাদের প্রতিদিন অনধিক ১০০ ক্যালরি (২৫ গ্রাম) এবং পুরুষদের অনধিক ১৫০ ক্যালরি (৩৫.৭ গ্রাম) চিনি খাবার পরামর্শ দিয়েছেন। এক চা-চামচ চিনিতে থাকে ১৬ ক্যালরি। মার্কিনরা গড়ে প্রতিদিন ২২ চা চামচ চিনি খান। এই বাড়তি চিনি তাদের পেটে যায় রান্নায় ব্যবহূত উচ্চ ফ্রাকটোজ যুক্ত কর্ণ সিরাপ, প্রক্রিয়াজাত খাবার, চা বা কফি মিষ্টি করতে ব্যবহূত চিনি প্রভৃতি থেকে। বাড়তি চিনি শরীরে আরো জমা হয় ঠান্ডা পানীয় থেকে। এক ক্যান সোডা পানিতে থাকে ৮ চা চামচ চিনি বা ১৩০ ক্যালরি। প্রত্যেক কোলাতে সাধারণত: এই পরিমাণ চিনি থাকে। মাত্রাতিরিক্ত এই চিনি গ্রহণের ফলশ্রুতিতে দেহ যেমন স্থূল হয় তেমনি এটা উচ্চ রক্তচাপ, হূদরোগ এবং সন্ন্যাস রোগের সঙ্গেও সংশ্লিষ্ট। সুতরাং নিরোগ দেহ ও জীবন দীর্ঘায়িত করতে চাইলে পরিমিত পরিমাণে চিনি খাওয়ার অভ্যাস করুন। ...
উচ্চ রক্তচাপ কমাতে ব্যায়াম
২৫ মে, ২০১৩
উচ্চ রক্তচাপ আমেরিকার মত দেশে তিন জনে একজনের হলেও আমাদের দেশেও কম নয়। সঠিক পরিসংখ্যাণ নেই তবে উচ্চ রক্তচাপের রোগী যে কত তা গুণে শেষ করা কঠিন। উচ্চরক্তচাপ হলে বাড়ে হূদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি। ব্যায়াম এবং স্বাস্থ্যকর আহার হলো উচ্চ রক্তচাপ প্রতিরোধের গুরুত্বপূর্ণ উপায়। উচ্চ রক্তচাপ থাকলেও ব্যায়াম করলে উচ্চ রক্তচাপের ওষুধের কার্যকারিতা অনেক বেড়ে যায়। উপভোগ্য হোক ব্যায়াম যে সব ব্যায়ামে মজা লাগে সেসব ব্যায়াম সপ্তাহের প্রায় প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে করলে ভালো হয়। দৈনন্দিন গৃহকর্ম, বাগান করা, ...
শিশুর জন্মগত হূদরোগ
২৫ মে, ২০১৩
প্রতি এক হাজার শিশুর নূন্যতম ৮ জন জন্মগত হূদরোগ নিয়ে জন্মায় যা মৃদু থেকে তীব্র রকমের হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রকাশিত তথ্য মতে, বিশ্বে হূদরোগ নিয়ে জন্মানো শিশুর শতকরা ১৫ ভাগ ভারতে, ১০ ভাগ শ্রীলংকায়, ৬ ভাগ বাংলাদেশে, ৬ ভাগ মায়ানমারে এবং বাকী ৬৩ ভাগ অবশিষ্ট দেশ সমূহে অবস্থিত। বাংলাদেশে এই রোগী বৃদ্ধিদ হার বেশ উদ্ব্বেগজনক। শিশুর জন্মগত হূদরোগ বলতে হূিপন্ড ও সংশ্লিষ্ট রক্তনালী সমূহের গঠন, কার্য্যপ্রনালী প্রভৃতির অস্বাভাবিকতাকে বুঝায়। শ্রেণীভেদে জন্মগত হূদরোগ নানা ভাগে বিভক্ত। ধারণা করা ...
ডায়াবেটিক ও আপনার চোখ
২৫ মে, ২০১৩
ডায়াবেটিস গ্রস্ত লোকদের অন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অন্যান্যদের তুলনায় ২৫ গুণ বেশি। দীর্ঘকাল ধরে রক্তে উঁচুমাত্রার সুগার থাকলে রেটিনা সমৃদ্ধকারী ক্ষুদ্র রক্তনালীগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং এক সময় দৃষ্টিহানি ঘটে। একে বলা হয় ডায়াবেটিক রেটিনোপথ্যাথী। আপনার ডায়াবেটিস যত পুরনো হবে এর সম্ভাবনাও তত বেশি। সমস্যাটির প্রাথমিক পর্যায়ে আপনার রেটিনাস্থ রক্তনালীর গাত্র দূর্বল হয়ে পড়ে। তিলক-এ তরল এসে না পড়া পর্যন্ত অনেকেই এ সমস্যা অনুধাবন করতে পারে না। এ রোগ বাড়ার এক পর্যায়ে রোগীর রেটিনায় কিছু দুর্বল, ভঙ্গুর, রক্তনালী গজিয়ে উঠতে ...
থাইরয়েড সমস্যা
১৮ মে, ২০১৩
থাইরয়েড গ্রন্থিটি শরীরের বিপাকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, সন্দেহ নাই। এর সমস্যাও বেশি হয় নারীদের, পুরুষের তুলনায়। থাইরয়েডের লঘুক্রিয়া বা 'হাইপোথাইরয়েডিজম' রোগে পুরুষের চেয়ে ৫০ গুণ বেশি ভোগেন নারীরা। কোনও কোনও বিজ্ঞানীর ধারণা, স্ত্রী হরমোন ইস্ট্রোজেন শরীরের অটোইমুন সমস্যা, এমনকি থাইরয়েডের সমস্যাকে উসেক দেয়। তবে এটাও ঠিক কেন যে মহিলাদের থাইরয়েড সমস্যা হয় তা অস্পষ্ট। দেহের বিপাককে নিয়ন্ত্রণ করা হলো থাইরয়েডের মূল কাজ। গলদেশে অবস্থিত এই ছোট গ্রন্থিটি তৈরি করে যে হরমোন তা নিয়ন্ত্রণ করে দেহ বিপাক বা Metabolisin আমাদের দেহযন্ত্রের ...
অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসে মাড়ির রোগ
১৮ মে, ২০১৩
ডায়াবেটিস রোগটির সাথে মাড়ির রোগের সম্পর্ক এখন প্রতিষ্ঠিত সত্য। ইতিমধ্যে বৈজ্ঞানিক গবেষণায় বেশ উল্লেখযোগ্য মিল খুঁজে পাওয়া গেছে। একজন ডায়াবেটিস রোগীর মুখের ভেতরে নানান ধরনের রোগ হতে পারে, যেমন- ডেন্টাল ক্যারিজ, মাড়ির রোগ, মুখের বিভিন্ন ধরনের সাদা ঘা, দাঁতের ক্ষয়, কোষ প্রদাহ, আঁকাবাঁকা দাঁত ইত্যাদি। এই সমস্ত রোগ দাঁতের বা মুখের অসুস্থতার কারণেই শুধু নয়, দেহের অন্য কোন রোগ, অপুষ্টি বা বিপাকজনিত কারণেও হতে পারে। তাই অনেক সময় দেহের অন্যান্য রোগের লক্ষণ মুখের ভেতরে লক্ষ্য করা যায়। মুখের রোগগুলোর ...
মূত্রনালি পথে নিঃসরণ
১৮ মে, ২০১৩
যদি আপনার মূত্রনালি পথে রস নিঃসরণ হয় তাহলে সম্ভবত আপনার যৌনবাহিত সংক্রমণ রয়েছে, যা আপনি অন্যের মধ্যে ছ ড়াতে পারেন। এ ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনি ডাক্তার দেখাবেন, এমনকি আপনার উপসর্গ চলে গেলেও। মূত্রনালির প্রদাহের কারণ মূত্রনালির প্রদাহকে চিকিত্সা পরিভাষায় বলে ইউরেথ্রাইটিস। মূত্রনালি হচ্ছে একটি নল, যা মূত্রথলি থেকে লিঙ্গের মাথা পর্যন্ত বিস্তৃত। মূত্রনালির প্রদাহ সাধারণত যৌনবাহিত সংক্রমণ দ্ব্বারা ঘটে। তবে সব সময় নয়। এটা সীমাবদ্ধ যৌন সম্পর্কের মধ্যেও ঘটতে পারে। গণোরিয়া:এটা এক ধরনের যৌনবাহিত সংক্রমণ যা মূত্রনালির প্রদাহ ঘটাতে পারে। ...
গরমে ত্বক ভালো রাখতে
১১ মে, ২০১৩
চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞ গরম পড়েছে । গরম মানেই ঘাম, ঘামে ভেজা শরীর, ঘামাচি আর অস্বস্তিকর চুলকানি। কিছু কিছু চর্ম রোগ আছে যা গরম এলেই দেখা দেয়। ঘামাচি তার একটি। ঘামাচি থেকে বাঁচতে সূতি কাপড় পরুন। বাচ্চাদের ও তাই পরান। ঘাড়ে, গলায়,বগলে,কুঁচকিতে, পিঠে পাউডার দিবেন। ঘামাচি হলে শরীরে বরফ ঘষতে পারেন, উপকার পাবেন। কিছু চর্ম রোগ আছে যা গরম এলে বেড়ে যায়। ছত্রাক জনিত রোগ যেমন দাউদ, ছুলি প্রভৃতি এর উদাহরণ। যারা দাউদে ভোগেন তারা দেখবেন গরম কাল এলেই তা ...
লেখা আহ্বান
১১ মে, ২০১৩
দৈনিক ইত্তেফাকেরস্বাস্থ্য পাতায় দেশের বিভিন্ন খ্যাতিমান চিকিত্সকগণ লিখে থাকেন। যে কোন রোগ-ব্যাধি, কেস হিস্ট্রি, অপারেশন, খাদ্য-পুষ্টি, ব্যায়াম, মজার মজার হেলথ টিপস ইত্যাদি নানা বিষয়ে লিখতে পারেন। নবীন চিকিত্সকরাও লিখতে পারেন। ই-মেইলেও লেখা পাঠানো যাবে। লেখকের রঙিন ছবি ও পূর্ণ ঠিকানা ও ফোন নম্বর দিতে হবে। লেখা পাঠানোর ঠিকানা: বিভাগীয় সম্পাদক, স্বাস্থ্য-পরিচর্যা ৪০ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫। ই-মেইল: ittefaq_health@yahoo.com ...
ডায়াবেটিস ও সচেতনতা
০৪ মে, ২০১৩
পরিচালক, ল্যাবরেটরী সার্ভিসেস বারডেম, ঢাকা। ডায়াবেটিস রোগটি এমন যা ক্রমান্বয়ে অগ্রসর হতে থাকে। ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকলেও জটিলতা হতে পারে। কখনও কখনও এসব জটিলতা হাজির হয় কোনও উপসর্গ ছাড়াই। তাই নিয়মিত চেকআপ প্রয়োজন। দেখা চাই সব কিছু ঠিক ঠাক আছে। যেসব চেকআপ প্রয়োজন ++ হেমোগ্লুবিন এ১ সি ++ ক্রিয়েটিনিন এবং বিইউএন মান ++ কোলেস্টেরল মান ++ রক্তচাপ ++ পা ও নিম্মাঙ্গ চেকআপ ++ চোখ হেমোগ্লুবিন এ১সি (HbA1C): A1C টেস্ট করলে বোঝা যাবে গত তিন মাসে রক্তে গ্লুকোজের গড় মান কেমন ছিলো। A1C মান লক্ষ্য মাত্রার মধ্যে থাকলে জটিলতার ঝুঁকি খুবই কম থাকে। ...
লিভার সিরোসিস ক্যান্সার নয়
০৪ মে, ২০১৩
সহযোগী অধ্যাপক, লিভার বিভাগ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় লিভার সিরোসিস আতকে ওঠার মতো একটি রোগের নাম। সিরোসিস শুনলেই যেন মনে আসে আরেকটি আরো ভয়াবহ রোগের নাম লিভার ক্যান্সার। সিরোসিস আর ক্যান্সার সাধারণ মানুষের কাছে একে অপরের সমার্থক। অথচ ব্যাপারটি কিন্তু ঠিক তা নয়। সিরোসিস কি সিরোসিস লিভারের একটি ক্রনিক রোগ যাতে লিভারের সাধারণ আর্কিটেকচার নষ্ট হয়ে যায়। ফলে লিভার হারায় তার স্বাভাবিক কার্যক্ষমতা। অনেক ক্ষেত্রেই লিভার সিরোসিস থেকে লিভারে ক্যান্সারও দেখা দিতে পারে। তবে এসব কোন কিছুই হার্ট এ্যাটাক বা ব্রেন স্ট্রোকের মতো সহসা ঘটে না। সিরোসিসে আক্রান্ত রোগী বহু বছর পর্যন্ত কোন রকম রোগের লক্ষণ ছাড়াই স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে পারেন। ব্যাপারটা অনেকটা এরকম ধরা যাক আমাদের লিভারটা একটা আধুনিক এপার্টমেন্ট যাতে সব আধুনিক সুযোগ সুবিধাই বিদ্যমান। এই এপার্টমেন্টের একটি কল নষ্ট থাকতে পারে কিংবা নষ্ট থাকতে পারে পুরো পানির সাপ্লাই লাইন অথবা আরো বেশি কিছু। ঠিক একইভঅবে সিরোসিরেও লিভারে সামান্য কোন সমস্যা দেখা দিতে পারে কিংবা ...
গর্ভাবস্থায় দাঁত ও মাড়ির যত্ন
২৭ মার্চ, ২০১৩
গর্ভাবস্থা একটি চরম উত্তেজনা ও উত্কণ্ঠার সময়কাল। বিভিন্ন আত্মীয়স্বজন ও বন্ধু বান্ধবের কথা শোনা এবং ডাক্তারের উপদেশ মেনে চলাও আর একটি কাজ। অনেক গর্ভবতী এই সময়ে দাঁত ও মাড়ি নিয়ে বেশ চিন্তিত থাকেন। দাঁতের যত্নে কয়েকটি বিষয় এখানে আলোকপাত করা হলো যা গর্ভাবস্থায় গর্ভবতীর দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখতে সাহায্য করতে পারেঃ- মাড়ির যত্ন অনেক গর্ভবতী হয়ত লক্ষ্য করেছেন দাঁত ব্রাশের সময় মাড়ি থেকে রক্ত বের হয়। এটা অস্বাভাবিক কোনো কিছু নয়। গর্ভাবস্থায় দেহ হরমোনের পরিবর্তন হয় এবং তার ...
গরমে স্বাস্থ্য সমস্যা
২৭ মার্চ, ২০১৩
গরম মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলে। গবেষণায় দেখা গেছে, গরমের সময়ই মানুষের স্বাস্থ্য সমস্যা বেশি দেখা দেয়। তাই এ সময়ে সতর্ক হয়ে না চললে যেকোনো সময়ই আপনি পড়তে পারেন অসুস্থতায়। গরমে সাধারণত যেসব স্বাস্থ্যসমস্যা দেখা দিতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করা হলো। পানিশূন্যতা গরমে শরীর থেকে প্রচুর ঘাম বেরিয়ে যায়। প্রয়োজনীয় পানির অভাবে শরীরে এ সময় দেখা দিতে পারে পানিশূন্যতা। পানিশূন্যতার পাশাপাশি লবণ বা ইলেকট্রোলাইটসের অভাবও দেখা দেয়। এ সময়ে শরীরের কোষ সজীব রাখতে প্রচুর পানি খেতে হবে। ...
হূদপিন্ডের কথা
২০ এপ্রিল, ২০১৩
হূদপিন্ডে চারটি প্রকোস্ট আছে। উপরের দুটি প্রকোস্ট হলো ডান ও বাম অলিন্দ, নিচের দুটি প্রকোস্ট হলো ডান ও বাম নিলয়। নিলয়ের দেয়াল পুরু। অলিন্দের দেয়াল পাতলা। হূদপিন্ড একটি পর্দা দ্বারা পরিবেস্টিত থাকে যাকে পেরিকার্ডিয়াম বলা হয়। পেরিকার্ডিয়ামে দুটি আবরণ থাকে। বাহিরেরটিকে ফাইব্রাস পেরিকার্ডিয়াম ও ভিতরেরটিকে সেরাস পেরিকার্ডিয়াম বলা হয়। দুপর্দার মাঝে পানি বা রক্ত জমতে পারে যাকে পেরিকার্ডিয়াল ইফিউশান বলা হয়। বিভিন্ন কারণে যেমন ভাইরাস, বেক্ট্রিরিয়া, টিবি জীবানু, হাইপোথাইরয়েড, কানেকটিভ টিসু ডিজিজ, ক্যান্সার, কিডনির সমস্যা ইত্যাদি কারণে পেরিকার্ডিয়াল  ইফিউশান ...
বিবর্ণ দাঁত ও তার চিকিত্সা
১৩ এপ্রিল, ২০১৩
সুস্থ দাঁত ঝকঝকে সাদা থেকে ক্রীম বা হলদে সাদা বর্ণের হতে পারে। গায়ের রংয়ের সাথে দাঁতের রংয়ের এক মজার যোগাযোগ লক্ষ্য করা যায়। গায়ের রং পরিষ্কার হলে দাঁতের রং ক্রীম বা হলদে সাদা হয় এবং শ্যাম বর্ণের লোকদের দাঁত ঝকঝকে সাদা হয়। তাছাড়া দুধ দাঁত স্থায়ী দাঁতের তুলনায় বেশি সাদা হয় এবং বয়স্কদের দাঁতের রং ক্রমান্বয়ে গাঢ় হয়ে ধূসর বর্ণের হতে পারে। দাঁতের এ রং বিনষ্ট হওয়া দু'রকম হতে পারে। যেমন- ১. বাহ্যিক ২. অন্তর্গত প্রথমটার ক্ষেত্রে দাঁতের বাইরের ...
ফ্যাটি লিভারে কি খাবেন কি খাবেন না
০৬ এপ্রিল, ২০১৩
লিভার রোগ মানেই যেন আেক উঠা। অন্য কোন রোগে যেমন-তেমন, লিভারের অসুখ হয়েছে মনে করলেই মনে নানা অজানা আশঙ্কার সৃষ্টি হয়। আর চারপাশের সবাই হয়ে উঠেন এককজন লিভার বিশেষজ্ঞ। এটা করতে হবে, ওটা করা যাবেন না, এজাতীয় পরামর্শ আসতে থাকে ক্রমাগত। বিশেষ করে কি খেতে হবে আর কি খাওয়া যাবে না এই নিয়ে পরামর্শের যেন শেষ থাকেনা। প্রতিদিন লিভার রোগীদের করতে যেয়ে যে জিনিসটা মনে হয় তা হলো এ ধরণের রোগীরা তাদের খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে খুবই বিভ্রান্তিতে থাকেন। বিশেষ করে লিভার বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলতে গিয়ে তাদের বিভ্রান্তি অনেক ক্ষেত্রেই বেড়ে যায়। কারণ লিভার রোগীর পথ্যের ব্য